টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

ইন্টারনেটের দাম কমানোর দাবিতে মানববন্ধন

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ৩১ মে, ২০১৩
  • ২৪০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

ssssssssঢাকা: পূর্ণগতির ইন্টারনেট সুবিধা ও দাম কমানোসহ সাত দফা দাবিতে মানববন্ধন করেছেন অনলাইনকর্মী, ফ্রিল্যান্সার, অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট ও আইটি কর্মীরা।

বৃষ্টি উপেক্ষা করে শুক্রবার দুপুর ১২টায় শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে ‘পিসি হেল্পলাইন বিডি.কম’ আয়োজিত এ মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন পিসি হেল্পলাইন বিডি.কমের অ্যাডমিন ফাহাদ ইসলাম ও রুবেল আহমেদ, তথ্যপ্রযুক্তি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জুলিয়াস চৌধুরী, টেকটিউনস ম্যানেজার ও বিডি সফট আইএনসি’র প্রধান নির্বাহী শাকিল আরেফিন, ডেভেসটিমের প্রধান নির্বাহী আল আমিন কবির, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আইটি সোসাইটির (ডিইউআইটিএস) সভাপতি আবদুল্লাহ আল ইমরানসহ তথ্যপ্রযুক্তিবিদ ও ফ্রিল্যান্সাররা।

প্রায় অর্ধশত অনলাইন কর্মী বৃষ্টির মধ্যে ঘণ্টাব্যাপী এ মানববন্ধন করেন।

“আমাদের দাবি পূরণ করো, আমরাই ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়বো” স্লোগানে গ্রাহক পর্যায়ে ইন্টারনেট ব্যবহারের নিম্নহার বিটিআরসি কর্তৃক ন্যায্য দামে পূর্ণগতির ইন্টারনেট নির্ধারণ, পেপাল চালুর উদ্যোগ গ্রহণ ও ‘ইন্টারনেট ফেয়ার ইউজ পলিসি’ নিষিদ্ধসহ সাত দফা দাবি উত্থাপন করেন মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারীরা।

এসব দাবির মধ্যে রয়েছে- দফায় দফায় ডেটার দাম কমলেও গ্রাহক লেভেলে কোনো প্রভাব পড়েনি। আমরা চাই, সরকার ন্যায্য দামে পূর্ণগতির ইন্টারনেট ব্যবহারের মূল্যহার বিটিআরসি কর্তৃক নির্ধারণ করে দেওয়া থাকবে। ফলে, ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার (আইএসপি) ও মোবাইল ফোন কোম্পানিগুলো আর ইন্টারনেটের জন্য উচ্চমূল্য নিয়ে প্রতারণা করতে পারবেনা। গিগাবাইট (জিবি) ডাটার দাম ৫০ টাকা ও ৫ জিবির দাম ২০০ টাকা নির্ধারণ; ফ্রিল্যান্সার ও ই-কমার্সের স্বার্থে বাংলাদেশে দ্রুত পেপাল চালুর ব্যাপারে সরকারি জরুরি উদ্যোগ গ্রহণ; ইন্টারনেটের ফেয়ার ইউজ পলিসি সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করে ইন্টারনেটের ন্যূনতম গতি নির্ধারণ করে পূর্ণগতির ডাটার ব্যবস্থা; ইন্টারনেট সেবাদানকারী মোবাইল কোম্পানিগুলোর স্বেচ্ছাচারিতা রোধে একটি বিশেষ সেল গঠন; ডাটার মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেও অব্যবহৃত ডাটা পরের বার ডাটা প্যাকেজ চালু করার সঙ্গে সঙ্গে যোগ করার পদ্ধতি; সংবাদমাধ্যমে আনলিমিটেডের বিজ্ঞাপন দিয়ে গ্রাহক প্রতারণা বন্ধ ও ফ্রিলান্সিংয়ের ব্যাপারে ব্যাংক কর্মকর্তাদের বিশেষ প্রশিক্ষণ দিয়ে, ব্যাংক কর্মকর্তাদের তত্ত্বাবধানে ফ্রিল্যান্সারদের সব হয়রানি বন্ধ করা।

বক্তারা জানান, দেশের বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান ও ই- কমার্সের স্বার্থে গ্রামীণফোনসহ মোবাইল ফোন কোম্পানিগুলোর ইন্টারনেট নিয়ে প্রতারণা বন্ধ করা জরুরি। সরকার মুখে ডিজিটাল বাংলাদেশ বলছে, আর কাজে ডিজিটালের বিপরীত কাজ করছে এটা মেনে নেওয়া যায়না।

বক্তারা বলেন, প্রধানমন্ত্রী এ ব্যাপারে আন্তরিক হলেও আইসিটি মন্ত্রণালয়, তথ্য মন্ত্রণালয় ও বিটিআরসি কোনো পদক্ষেপ নিচ্ছেনা। আর সরকারি আমলারা আইসিটি ভালোভাবে না বোঝার ফলে এ সেক্টরে নানা সমস্যা দেখা দিচ্ছে।

তারা এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

ইভেন্ট আয়োজনের প্রধান সমন্বয়ক ফ্রিল্যান্সার মো. রুবেল আহমেদ বাংলানিউজকে বলেন, “আমরা জনস্বার্থে রাজপথে নেমেছি। আমাদের আন্দোলন কোনো মৌলভী, নাস্তিক, কোনো ধর্ম, সরকার, বিরোধীদল বা রাজনৈতিক নেতাদের বিরুদ্ধে নয়, আমাদের আন্দোলন গলাকাটা ইন্টারনেটের বিরুদ্ধে। দাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত আমরা আরো কর্মসূচি দেবো।”

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT