টেকনাফ উপজেলার ২০ হাজার ৮১ পরিবারে স্বাস্থ্যসম্মত শৌচাগার নেই

প্রকাশ: ২৯ অক্টোবর, ২০১২ ৭:২৬ : অপরাহ্ণ

টেকনাফ নিউজ ডেস্ক…টেকনাফ উপজেলার একটি পৌরসভা ও ছয়টি ইউনিয়নের ৪৭ হাজার ৭২৬ পরিবারের মধ্যে ২০ হাজার ৮১ পরিবারে স্বাস্থ্যসম্মত নেই। ২০০৯ সালে জুন মাস থেকে সরকারি বরাদ্দ না থাকায় এসব পরিবার এই সুবিধা থেকে বঞ্চিত রয়েছে।
জানা গেছে, উপজেলার অধিকাংশ গ্রামের বাসিন্দা নালা-নর্দমা, বেড়িবাঁধ ও ঝোপঝাড়ে মলত্যাগ করেন। এতে পরিবেশ দূষণের পাশাপাশি পানিবাহিত নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন এলাকার লোকজন। স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে পৌরসভার জালিয়াপাড়া, চৌধুরীপাড়া, সাইটপাড়া ও নাইট্যংপাড়া এলাকায় দুই হাজার পরিবারের মধ্যে মাত্র পাঁচ শতাধিক পরিবারে স্বাস্থ্যসম্মত শৌচাগার আছে। যাঁদের এমন ব্যবস্থা নেই তাঁদের কাক ডাকা ভোরে অথবা সূর্য ডোবার পরে এ কাজ সারতে হয়। আর দিনেরবেলায় জরুরি প্রয়োজনে তাঁদের পড়তে হয় বিপাকে।
সদর ইউনিয়নের ডেইলপাড়া গ্রামের নবী হোসেন (৫৫) বলেন, ‘চার-পাঁচ বছর শুনছি স্বাস্থ্যসম্মত শৌচাগার হবে। কিন্তু স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের কাছ থেকে এখনো কোনো সাহায্য পাইনি।’
চৌধুরীপাড়ার গৃহিণী জয়নাব বিবি (৪৫) বলেন, ‘খুব ভোরে ও সন্ধ্যার পর ঘরের বাইরে গিয়ে টয়লেট সারতে হয়। এটা তো স্বাস্থ্যকর অভ্যাস নয়। দিনেরবেলায় প্রয়োজনের সময়ও প্রাকৃতিক কাজ সারতে পারি না। বিষয়টা অনেক সময় অসহনীয় হয়ে ওঠে। বয়স্ক মানুষজনের সমস্যা হয় সবচেয়ে বেশি। কিন্তু তাঁদের কথা কে আর ভাবে?’
উপজেলার জনস্বাস্থ্য উপসহকারী প্রকৌশলী (ভারপ্রাপ্ত) মুহাম্মদ জহিরুল হক বলেন, ‘জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরে লোকবল-সংকট আছে। পাশাপাশি পর্যাপ্ত বরাদ্দও নেই। এই কারণে উপজেলায় শতভাগ স্যানিটেশন কার্যকর করা সম্ভব হচ্ছে না।’


সর্বশেষ সংবাদ