সীমান্ত উত্তেজনা টেকনাফ স্থলবন্দরে কোন প্রভাব পড়েনি / মে মাসে ৮ কোটি ৪২ লাখ ৫২ হাজার ১৮২ টাকা রাজস্ব আয়

প্রকাশ: ৪ জুন, ২০১৪ ১:৪০ : পূর্বাহ্ণ

Teknaf Bondhorহাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, টেকনাফ= বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্ত উত্তেজনা বিরাজমান থাকলেও টেকনাফ স্থল বন্দরে এর কোন প্রভাব পড়েনি। সম্পুর্ণ স্বাভাবিক ও সচল রয়েছে টেকনাফ স্থল বন্দরের কার্যক্রম। তাছাড়া সেন্টমার্টিনদ্বীপের অদুরে বঙ্গোপসাগরে সিয়ানমারের ৩টি যুদ্ধ জাহাজের অবস্থান সম্পর্কেও কোন সত্যতা পাওয়া যায়নি। টেকনাফ ও সেন্টমার্টিনদ্বীপে অবস্থানরত বাংলাদেশ কোস্টগার্ড বাহিনীসহ সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলে এতথ্য জানা গেছে। ৩ জুন রাতে খোঁজ নিয়ে সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে- টেকনাফ স্থল বন্দর দিয়ে টেকনাফ-মংডু সীমান্ত বাণিজ্যের আওতায় আমদাণী-রপ্তানী স্বাভাবিক নিয়মে অব্যাহত রয়েছে। চলতি জুন মাসের প্রথম ৩ দিনে অর্ধ কোটি টাকারও বেশী রাজস্ব আমদানী খাতে আয় হয়েছে হয়েছে বলে টেকনাফ স্থল বন্দর শুল্ক ষ্টেশন সুত্রে জানা গেছে। এদিকে গত ৩ দিনে ১৫টি পন্য ভর্তি ট্রলার মিয়ানমার থেকে টেকনাফ বন্দরে ভিড়েছে । যা খালাসের অপেক্ষায় রয়েছে। এর মধ্যে আদা, হলুদ,বরই, কাঠ ও মাছের বোট রয়েছে। টেকনাফ শুল্ক কর্মকর্তা নুরে আলম জানান, বাংলাদেশ মিয়ানমার সীমান্ত উত্তেজনা টেকনাফ বন্দরে কোন প্রভাব পড়েনি। এদিকে সদ্য সমাপ্ত মে মাসে টেকনাফ স্থল বন্দও কাস্টমস ২৩৬টি বিল অব এন্ট্রির মাধ্যমে সব মিলিয়ে ৮ কোটি ৪২ লাখ ৫২ হাজার ১৮২ টাকা রাজস্ব আয় করেছে। তম্মধ্যে শুধু কাস্টমস খাতে রাজস্ব আয়ের পরিমাণ ৬ কোটি ৪৩ লাখ ৪৩ হাজার ৩৫৩ টাকা। যা মাসিক লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১ কোটি ৭০ লাখ ৯৩ হাজার ৩৫৩ টাকা বেশী। উক্ত মাসে ৩৩ কোটি ৭৯ লাখ ৩২ হাজার ৫০৬ টাকা মুল্যের পণ্য আমদানী ও ৯৭টি বিল অব এক্সপোর্টের বিপরীতে ৩ কোটি ৩১ লাখ ৪৪ হাজার ১৭৮ টাকা মুল্যের বাংলাদেশী পণ্য টেকনাফ স্থল বন্দর দিয়ে মিয়ানমারে রপ্তানী হয়েছে।


সর্বশেষ সংবাদ