টেকনাফ মেরিনড্রাইভে চালু হল ৫০ আসনের দোতলা বাস: রয়েছে আন্তর্জাতিক মানের সব সুবিধা

প্রকাশ: ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২:৫৮ : অপরাহ্ণ

কক্সবাজার সংবাদদাতা: কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিনড্রাইভে চলাচলকারী পর্যটকদের জন্য অনন্য সুবিধার ‘অ্যাকোয়াহোলিক ট্যুরিস্ট ক্যারাভান’ নামে বিশেষ বাস চালু হয়েছে। ৫০ আসনের দোতলা এই বাসে রয়েছে আন্তর্জাতিক মানের সব সুযোগ-সুবিধা। এতে চড়ে সমুদ্রের সৌন্দর্য্য দেখার পাশাপাশি পাহাড়ের অপরূপ দৃশ্যও উপভোগ করতে পারবেন পর্যটকরা।

একপাশে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত, অন্যপাশে পাহাড়ের সারি। মাঝখানে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিনড্রাইভ সড়ক। ৮০ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে পৃথিবীর দীর্ঘতম এই মেরিনড্রাইভের দু’পাশে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের ছড়াছড়ি। কক্সবাজারে আসা পর্যটকরা মেরিনড্রাইভ দিয়ে যাতায়াতের সময় যাতে নয়নাভিরাম এই সৌন্দর্য্য উপভোগ করতে পারেন, সেজন্য প্রথমবারের মতো চালু করা হলো ‘অ্যাকোয়াহোলিক ট্যুরিস্ট ক্যারাভান’ নামে বিশেষ বাস সার্ভিস।

৫০ আসনের দোতলা এই বাসে লাইব্রেরি, ওয়াইফাই, কিচেন, খাবারের ব্যবস্থা ও টয়লেটসহ রয়েছে আন্তর্জাতিক মানের সব সুযোগ-সুবিধা। বুধবার দুপুরে ইনানীতে এই সার্ভিসের উদ্বোধন করা হয়। প্রতিদিন সকালে পেঁচারদ্বীপ রেজুখাল পয়েন্ট থেকে টেকনাফ বিচ পর্যন্ত চলাচল করবে ছাদখোলা এই বাসটি। যাত্রা শুরু করবে সকাল ৯টায়। এমন আয়োজনে উচ্ছ্বসিত পর্যটকরা।

মেরিনড্রাইভ সড়কে ভারী যানচলাচল নিষিদ্ধ থাকায় ছোট পরিবহণে ভ্রমণ করতেন দেশি-বিদেশি পর্যটকরা। এসময় ইনানী পর্যন্ত ৩০ কিলোমিটার যাওয়া গেলেও, বাকি ৫০ কিলোমিটার পথ পর্যটকদের দেখা হতোনা। এখন ছাদখোলা ক্যারাভান থেকে পর্যটকরা পুরো মেরিনড্রাইভের সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারবেন।

পর্যটন শিল্পের প্রসারে এই সেবা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আশাবাদী স্থানীয় প্রশাসনের কর্মকর্তারা।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এমন আয়োজন পর্যটকদের আরো বেশি করে আকৃষ্ট করবে, উপভোগ্য করে তুলবে গোটা ভ্রমণকেই।


সর্বশেষ সংবাদ