বন্ধ করা হচ্ছে ভারতের আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয়

প্রকাশ: ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ৬:৪৪ : অপরাহ্ণ

টেকনাফ নিউজ ডেস্ক::  নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদের এই মুহূর্তে উত্তাল ভারতের বিভিন্ন রাজ্য। এরই ধারাবাহিকতায় রবিবার আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করে। বিক্ষোভ রুখতে আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়, রবিবার দিল্লির জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়ার শিক্ষার্থীদের সঙ্গে মিলে বিক্ষোভে অংশ নেয় আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। এসময় পুলিশের সঙ্গে শিক্ষার্থীদের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। ১৫ জন ছাত্রকে গ্রেপ্তার করা হয়। আহত হন অনেকে।

উত্তরপ্রদেশের পুলিশ সুপার ওপি সিং বলেন, ‘আমরা আজ আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস খালি করে দিচ্ছি। সমস্ত শিক্ষার্থীদের বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হবে। শহরে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত ইন্টারনেট বন্ধ রাখা হয়েছে।’

এদিকে দিল্লিতে ছাত্র-পুলিশ সংঘর্ষ চলাকালীন পরিস্থিতি যাতে আরও অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে সেই জন্যে কিছু বাসে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে পুলিশই। এমন চাঞ্চল্যকর অভিযোগ উঠে দেশটির সংবাদমাধ্যমে। বাসে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে পুলিশ, এমন দাবির পক্ষে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। ভিডিওতে দেখা যায়, একটি বাসে কেরোসিনের জার থেকে কিছু তরল ছিটিয়ে দিচ্ছে দেশটির পুলিশ কর্মীই।

এ বিষয়ে পুলিশ সুপার ওপি সিং বলেন, ‘পুলিশ ভাঙচুর করেছে এমন কোনও খবর আমরা পাইনি।’


সর্বশেষ সংবাদ