কখনও দুর্বল কখনও স্বাভাবিক রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মোবাইল নেটওয়ার্ক

প্রকাশ: ৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১১:৩৪ : অপরাহ্ণ

আবদুর রহমান,টেকনাফ থেকে **

কক্সবাজারের টেকনাফের আলীখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মোহাম্মদ আলম শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে মালয়েশিয়ার পিনাক শহরে থাকা বড় ভাইয়ের সঙ্গে কথা বলেছেন। কথা বলতে গিয়ে মোবাইল ফোনের নেটওয়ার্ক দুর্বলতায় ঝামেলায় পড়েছেন তিনি।
আলম দাবি করেন, দিনের বেলায় ভাইয়ের সঙ্গে পুরোদমে ভিডিওকলে কথা বলছিলেন, তবে সন্ধ্যার পর থেকে একটু সমস্যা হয়েছে। তার মতো অনেকেই জানিয়েছেন, ক্যাম্পের আশপাশে বিশেষ কিছু জায়গায় গিয়ে বিদেশে থাকা আত্মীস্বজনের সঙ্গে তারা কথা বলেছেন। কখনও দুর্বল, কখনও স্বাভাবিক নেটওয়ার্ক পেয়েছেন তারা।

এর আগে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার জানিয়েছিলেন, উখিয়া ও টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্প এলাকায় বিকেল ৫টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত টু-জি নেটওয়ার্ক চালু থাকবে। এতে ওই এলাকার মানুষ শুধু ভয়েস কল করতে পারবেন। এ ঘোষণার পর শনিবার থেকে উখিয়া ও টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে মোবাইল নেটওয়ার্ক দুর্বল হয়ে পড়েছে।

শনিবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে টেকনাফের লেদা রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাসিন্দা মোহাম্মদ নুর জানান, কিছুক্ষণ আগে তিনি মোবাইল ফোনে ভিডিওকলে কথা বলেছেন বিদেশে থাকা এক চাচার সঙ্গে। তবে কথা বলতে তার কোনো সমস্যা হয়নি। প্রায় ১০ মিনিটের উপরে ভিডিওকলে চাচার সঙ্গে কথা হয়েছে বলে তিনি জানান।

এদিকে টেকনাফের জাদিমুরা, শালবাগান, নয়াপাড়া লেদা, আলীখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পের থাকা লোকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, অন্যদিনের মতো শনিবার তাদের মোবাইল সংযোগ স্বাভাবিক ছিল না। কিন্তু টাওয়ারের কাছাকাছি কিছু জায়গায় ভালো নেটওর্য়াক ব্যবহার করছে।

উখিয়ার ক্যাম্পে টেকনাফের তুলানায় নেটওর্য়াক একটু বেশি দুর্বল রয়েছে। এছাড়া বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি এলাকার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে মোবাইল নেটওর্য়াক ছিল স্বাভাবিক। সেখানে মিয়ানমারের এমপিটি সিমের নেটওর্য়াকের মাধ্যমে পুরোদমে মোবাইল সংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন শূন্যরেখার রোহিঙ্গারা।

ক্যাম্পের বাসিন্দা মোহাম্মদ ফারুক জানান, মোবাইল নেটওর্য়াক ঠিকঠাক পাওয়ায় আগের মতো সবার সঙ্গে কথা বলেছেন। সেখানে কি টু-জি ছিল জানতে চাইলে তিনি বলেন, টু-জি থাকলে কি ভিডিও কলে কথা বলা যায়? নেটওর্য়াক ভাল ছিল, তাই অন্যদিনের মতোই ভিডিওকলে অনেকের সঙ্গে কথা বলেছেন।

টেকনাফ লেদা রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ডেভলপমেন্ট কমিটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলম বলেন, রাতে অনেকে ভিডিওকলে কথা বলেছেন বলে সেখানার লোকজন জানিয়েছেন। তবে অন্য দিনের চেয়ে মোবাইল নেটওর্য়াক ভালো ছিলা না বলে জানান তিনি।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ রবিউল হাসান বলেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মোবাইল নেটওর্য়াকের বিষয় নিয়ে সরকার কঠোর অবস্থানে। কিছটা দুর্বল হলেও কয়েকটি ক্যাম্পে আগের মতই নেটওর্য়াক পাওয়ার খবর পেয়েছি। বিষয়টি কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছি এবং পরবর্তী নির্দেশনা পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা পরিষদের চেয়াম্যান মোহাম্মদ নুরুল আলম বলেন, ‘আগের মতো মোবাইল সংযোগ স্বাভাবিক থাকার কথা স্থানীয় লোকজনের কাছে শুনেছি। বিষয়টি জেলা পর্যায়ে জানানো হবে।’
fil pic


সর্বশেষ সংবাদ