১০৯ নম্বরে ফোন করে বাল্যবিবাহ বন্ধ করলেন টেকনাফ উপজেলা প্রশাসন

প্রকাশ: ১৮ আগস্ট, ২০১৯ ১১:২৯ : অপরাহ্ণ

নুরুল হোসাইন,টেকনাফ:
বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের ১০৯ নম্বরে ফোন পেয়ে টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নে বাল্যবিবাহ বন্ধ করলেন উপজেলা প্রশাসন।
প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়া পর্যন্ত তাদের বিয়ে না দেওয়ার শর্তে মুচলেকায় ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবুল মনসুর।
গতকাল রবিবার দুপুরে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কমকতা মো. রবিউল হাসান ১০৯ নম্বর ঢাকা থেকে ফোন পাওয়ার পর বিয়েটি বন্ধ করা হয়েছে।
উপজেলা সূত্রে জানায়, গতকাল উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের নাটমোরা পাড়ার নুরুল হকের মেয়ে ও হ্নীলা উচ্চবিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী সালমা আক্তার (১৪) ও ঢাকার একজন কিশোরের সঙ্গে বাল্যবিয়ে খবর দেন। পরে ঢাকা থেকে উপজেলা নিবাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করা হলে তাৎক্ষনিক উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) আবুল মনসুর, উপজেলা একাডেমিক সুপার ভাইজার নুরুল আছার এবং হ্নীলা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সালামসহ আইন-শৃংখলা বাহিনী সদস্যরা হ্নীলার উলুচামরী কোনারপাড়ায় ছাত্রীর ফুফুর বাড়িতে গিয়ে বিয়ে বন্ধ করার আগে ঘরের পিছনের রাস্তা দিয়ে কিশোর পালিয়ে যান।পরে উপজেলা প্রশাসনের দলটি উক্ত বাড়ি থেকে স্কুল ছাত্রী এবং তার মা সেতেরা বেগমকে ইউএনও কার্যলয়ে এনে প্রাপ্ত বয়স্ক না হওয়ার পর্যন্ত বিয়ে দেবে না মর্মে অঙ্গিকার নামা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। তবে স্কুল ছাত্রীকে প্রতিনিয়ত স্কুলে পাঠানের নিদেশ দেওয়া হয় এবং স্কুলে প্রধান শিক্ষককে এর তদারকির ব্যবস্থা করা হয়েছে।


সর্বশেষ সংবাদ