সেন্টমার্টিনদ্বীপে আটকে পড়া পর্যটক ফিরেছেন

প্রকাশ: ৭ মার্চ, ২০১৯ ১১:০৫ : অপরাহ্ণ

 

হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, টেকনাফ … সেন্টমার্টিনদ্বীপে আটকা পড়া পর্যটক ২দিন পর ৭ মার্চ সন্ধ্যায় টেকনাফে ফিরেছেন। বৈরী আবহাওয়া ও ৩ নম্বর সর্তক সংকেত বলবৎ থাকায় টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌ-রুটে জাহাজ চলাচল বন্ধ থাকায় পর্যটকগণ ফিরতে পারেননি।
জানা যায়, উত্তাল সাগর ও হঠাৎ করে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেতের কারণে সেন্টমার্টিনদ্বীপে ভ্রমনে আসা প্রায় ৩ হাজার পর্যটক ২ দিন ধরে বিভিন্ন হোটেল ও কটেজে আটকা পড়েন। এতে পর্যটকদের মাঝে হতাশা ও উদ্বেগ বিরাজ করছিল। সেন্টমার্টিনদ্বীপের বিভিন্ন হোটেল-মোটেল ও কটেজ গুলোতে ২ হাজারেরও বেশী পর্যটক হোটেল বøু মেরিন রিসোর্ট, সমুদ্র কুঠির, শেনচুর, সীমানা পেরিয়ে, সী-বøু রিসোর্ট, জল তরঙ্গ সহ বিভিন্ন হোটেলে অবস্থান করছিল। গত সোমবার ৪ মার্চ থেকে পরিবার নিয়ে সেন্টমার্টিন ভ্রমনে আসা কিছু পর্যটক হঠাৎ ৩ নম্বর সর্তক সংকেতের কারনে জাহাজ চলাচল বন্ধ থাকায় আটকা পড়তে হয়েছে। তবে পর্যটকগণ সেন্টমার্টিনদ্বীপের বিভিন্ন হোটেল অবস্থান করছিল এবং নিরাপদে ছিল। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারনে পর্যটকদের মন একটু খারাপ হয়ে পড়ছিল।
পর্যটকবাহী জাহাজ কেয়ারী সিন্দাবাদের ব্যবস্থাপক মোঃ শাহ আলম জানান, ‘৩ নম্বর সর্তকতা সংকেত ও সমুদ্র উত্তালের কারণে জাহাজ চলাচল বন্ধ ছিল। যার ফলে সেন্টমার্টিন ভ্রমনে যাওয়া ২ হাজারেরও বেশী পর্যটক আটকা পড়েন। আবহাওয়া ভাল হওয়ায় আটকা পড়া পর্যটকদের ৪টি জাহাজ করে সন্ধা ৬টার দিকে সেন্টমার্টিনদ্বীপ থেকে টেকনাফে ফিরিয়ে আনা হয়েছে। আটকা পড়া পর্যটকদের স্থানীয় প্রশাসনের মাধ্যমে খোঁজ নেওয়া হচ্ছে’।
টেকনাফস্থ ট্যুরিষ্ট পুলিশের ইনচার্জ উপ-পুলিশ পরিদর্শক এসআই আনোয়ার জানান, ‘সেন্টমার্টিনদ্বীপে আটকা পড়া পর্যটকদের ৪টি জাহাজে করে নিরাপদে টেকনাফে ফিরে এসেছেন’।
টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো: রবিউল হাসান কাজল জানান, ‘প্রশাসনের সহযোগীতায় আটকে পড়া পর্যটকদের ফিরিয়ে আনতে ৭ মার্চ বৃহষ্পতিবার দুপুরে ৪টি জাহাজ সেন্টমার্টিনে পাঠানো হয়। সন্ধ্যার দিকে পর্যটকদের নিয়ে জাহাজ ৪টি টেকনাফে ফিরে আসে’। ##


সর্বশেষ সংবাদ