টেকনাফে কোস্টগার্ড-বিজিবি’র পৃথক অভিযানে ৯ কোটি টাকার ইয়াবা উদ্ধার

প্রকাশ: ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১১:১৭ : অপরাহ্ণ

হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, টেকনাফ …টেকনাফে কোস্টগার্ড ও বিজিবি’র পৃথক অভিযানে ৯ কোটি টাকা মুল্যের ২ লক্ষ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানা গেছে। তবে উভয় অভিযানেই কোন মাদক চোরাচালানী আটক হয়নি।
টেকনাফ-২ বিজিবি’র পরিচালক অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মোঃ আছাদুদ-জামান চৌধুরী জানান ‘গোপন তথ্যের মাধ্যমে জানা যায় সাবরাং ইউপিস্থ নয়াপাড়া বাজার হতে পূর্ব দিকে রাস্তার পার্শ্বে ইয়াবা ক্রয়-বিক্রয় হতে পারে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে ১৮ সেপ্টেম্বর রাতে ২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের অধীনস্থ খুরেরমুখ অস্থায়ী চেকপোষ্টে কর্মরত নায়েক মোঃ রকিবুল হাসানের নেতৃত্বে একটি টহল দল মোটর সাইকেলযোগে নয়াপাড়া এলাকায় গমন করে। বর্ণিত এলাকায় পৌঁছার পর কিছুদূরে দুইজন লোককে দেখতে পেয়ে দাড়াঁনোর জন্য সংকেত দেয়। এমতাবস্থায় তারা রাস্তা থেকে নেমে পার্শ্ববর্তী গ্রামের দিকে চলে যাওয়ার চেষ্টা করলে টহল দল তাদের পিছু ধাওয়া করে। একপর্যায়ে ইয়াবা পাচারকারীরা তাদের হাতে থাকা ব্যাগটি ফেলে অন্ধকারের সুযোগ নিয়ে জংগলাকীর্ণ এলাকা দিয়ে পার্শ্ববর্তী গ্রামের ভেতর পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে টহল দল ইয়াবা পাচারকারী কর্তৃক ফেলে যাওয়া প্যাকেটটি খুলে গণনা করে ১ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা মূল্যমানের ৫০ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট জব্দ করতে সক্ষম হয়। জব্দকৃত ইয়াবা ট্যাবলেটগুলো ব্যাটালিয়ন সদরে জমা রাখা হয়েছে। যা পরবর্তীতে উর্দ্ধতন কর্মকর্তা, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রতিনিধি, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও মিডিয়া কর্মীদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হবে’।
অপরদিকে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড বাহিনী ঢাকা সদর দপ্তর অপারেশন পরিদপ্তর গোয়েন্দা শাখার সহকারী গোয়েন্দা পরিচালক লেঃ কমান্ডার বিএন আবদুল্লাহ আল মারুফ জানান ‘গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ১৮ সেপ্টেম্বর রাতে বাংলাদেশ কোস্টগার্ড বাহিনী পূর্ব জোনের অধীনস্থ টেকনাফ সিজি স্টেশন কর্তৃক একটি বিশেষ অভিযান পরিচালনা করা হয়। উক্ত অভিযানে টেকনাফ থানার অর্ন্তগত সাবরাং জালিয়াপাড়া এলাকায় ইয়াবা পাচারের খবর পেয়ে কোস্টগার্ড সদস্যরা একটি সন্দেহজনক বোটকে তল্লাশীর উদ্দেশ্যে থামার সংকেত দিলে উক্ত বোটে থাকা লোকজন একটি বড় প্লাস্টিকের বস্তা পানিতে ফেলে দ্রুত মিয়ানমারের সীমানার দিকে পালিয়ে যায়। পরর্তীতে উক্ত ভাসমান প্লাস্টিকের বস্তা হতে ১ লক্ষ ৫০ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট জব্দ করা হয়। উক্ত অভিযানে কোন চোরাকারবারীকে আটক করা সম্ভব হয়নি। জব্দকৃত ইয়াবা ট্যাবলেট গুলোর আনুমানিক বাজার মূল্য ৭ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা। জব্দকৃত ইয়াবা পরবর্তী কার্যক্রমের জন্য টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে’। ##


সর্বশেষ সংবাদ