নাজিরপাড়া গোয়াল ঘরে ৩৯ লক্ষ ৭৯ হাজার ৫০০ টাকার ইয়াবা, ঘরের মালিক ছৈয়দ আলম আটক

প্রকাশ: ১৯ জুন, ২০১৮ ১০:৫৮ : অপরাহ্ণ

হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, টেকনাফ … টেকনাফের ‘ইয়াবা পল্লী’ হিসাবে খ্যাত টেকনাফ সদর ইউনিয়নের নাজিরপাড়া একটি বসত বাড়ির গোয়াল ঘর থেকে ৩৯ লক্ষ ৭৯ হাজার ৫০০ টাকা মুল্যের ১৩ হাজার ২৬৫ পিস ইয়াবা উদ্ধার করেছে বিজিবি। এ অভিযানে বসত বাড়ির মালিক ছৈয়দ আলমকে আটক করা হয়েছে। ধৃত ছৈয়দ আলম নাজিরপাড়া গ্রামের আবদুল গণির পুত্র। নিষিদ্ধ ঘোষিত মাদক ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে নিজ দখলে রাখার অপরাধে ধৃত আসামীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতঃ ৩ হাজার ২৬৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ ধৃত আসামীকে টেকনাফ মডেল থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। অবশিষ্ট ১০ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট ব্যাটালিয়ন সদরে জমা রাখা হয়েছে। যা পরবর্তীতে উর্ধতন কর্মকর্তা, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রতিনিধি, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও মিডিয়া কর্মীদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হবে।
টেকনাফ-২ বিজিবি’র পরিচালক অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মোঃ আছাদুদ-জামান চৌধুরী ১৯ জুন প্রেস বিফিংয়ে জানান ‘১৮ জুন রাত ১০টায় বিশ্বস্ত গোয়েন্দা তথ্যের মাধ্যমে জানা যায় টেকনাফস্থ নাজিরপাড়া মোঃ সৈয়দ আলমের গোয়াল ঘরে ইয়াবা ট্যাবলেট লুকায়িত থাকতে পারে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে ২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের অধীনস্থ নাজিরপাড়া বিওপিতে কর্মরত হাবিলদার মোঃ দেলোয়ার হোসেনের নেতৃত্বে একটি টহল দল বর্ণিত ব্যক্তির বাড়িতে গমন পূর্বক স্থানীয় বেসামরিক ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে গোয়াল ঘরে তল্লাশী অভিযান পরিচালনা করে। তল্লাশীর এক পর্যায়ে আনুমানিক ১১টায় টহল দল গোয়ালঘরের একপার্শ্বে সামান্য মাটি খুড়া অবস্থায় পলিথিন দেখতে পায়। এমতাবস্থায় বর্ণিত স্থানের মাটি অন্যত্র সরানোর পর পলিথিনে মোড়ানো ইয়াবা ভর্তি একটি প্যাকেট পাওয়া যায়। অতঃপর ঘটনাস্থলে উপস্থিত বেসামরিক ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে উক্ত প্যাকেট খুলে গণনা করে ৩৯ লক্ষ ৭৯ হাজার ৫০০ টাকা মুল্যের ১৩ হাজার ২৬৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এবং উক্ত গোয়ালঘরের মালিক মোঃ সৈয়দ আলমকে আটক করতে সক্ষম হয়।
নিষিদ্ধ ঘোষিত মাদক ইয়াবা ট্যাবলেট বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে নিজ দখলে রাখার অপরাধে ধৃত আসামীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করতঃ ৩ হাজার ২৬৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ ধৃত আসামীকে টেকনাফ মডেল থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। অবশিষ্ট ১০ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট ব্যাটালিয়ন সদরে জমা রাখা হয়েছে। যা পরবর্তীতে উর্ধতন কর্মকর্তা, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রতিনিধি, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও মিডিয়া কর্মীদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হবে’। ##


সর্বশেষ সংবাদ