সিএম উপকূলীয় উচ্চ বিদ্যালয়ে কক্সবাজার সাহিত্য একাডেমীর সাহিত্য প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

প্রকাশ: ১৮ অক্টোবর, ২০১৭ ১০:১৮ : অপরাহ্ণ

বার্তা পরিবেশক = কক্সবাজার সাহিত্য একাডেমী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ভিত্তিক প্রতিভা অন্বেষণ কার্যক্রমের আওতায় সাহিত্য প্রতিযোগিতা জেলার উখিয়া উপজেলার প্রত্যন্ত জালিয়াপালং ইউনিয়নের চেপটখালী-মাদারবনিয়াস্থ সি এম উপকূলীয় উচ্চ বিদ্যালয়ে ১৮ অক্টোবর বুধবার সকালে বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে।
কক্সবাজার সাহিত্য একাডেমীর সভাপতি লোকগবেষক মুহম্মদ নূরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করেন প্রতিষ্ঠাতা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোক্তার আহমদ।
অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করতে গিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোক্তার আহমদ বলেন, কক্সবাজার সাহিত্য একাডেমী জেলার শিশু-কিশোরদের প্রতিভা বিকাশে যে কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে তা এককথায় অনন্য। ভবিষ্যতেও বিদ্যালয়ে সাহিত্য-সংস্কৃতির কর্মসূচি বাস্তাবয়নের জন্য একাডেমী কর্তৃপক্ষকে অনোরুধ করেন।
সভাপতির বক্তব্যে মুহম্মদ নূরুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশের পড়ায় লেখায় পিছিয়ে পড়া অঞ্চলগুলোর মধ্যে কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফ অন্যতম। তৎমধ্যে উখিয়া উপজেলার জালিয়াপালং ইউনিয়নের প্রত্যন্ত এলাকার শিক্ষা ব্যবস্থা দুই যুগ আগে ছিলো অন্ধকার যুগ। সেই অন্ধকার ভেঙ্গে এখন আলোর ঝলকানিতে আমরা আশান্বিত। এতে করে এই প্রজন্মের শিশু-কিশোরেরা শিক্ষার আলো পাচ্ছে। শিক্ষার আলোর পাশাপাশি তিনি শিক্ষার্থীদের সাহিত্য-সংস্কৃতিতে এগিয়ে আসার আহবান জানান। তিনি বলেন সাহিত্য একাডেমী শিশুদের প্রতিভার বিকাশে কাজ করে যাচ্ছে। এতে অংশ গ্রহণ করে শিশুরা তাদের প্রতিভার বিকাশে সুযোগ গ্রহণ করতে পারে।
একাডেমীর সভাপতি মুহম্মদ নূরুল ইসলাম বলেন, বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর একদিনে বিশ্বকবি হন নি। ‘জল পড়ে, পাতা নড়ে’ এই চারটি শব্দ দিয়েই বিশ্বকবির কবিতা লিখা শুরু।
সভাপতি বক্তব্যে ‘শিশুর পিতা ঘুমিয়ে আছে সব শিশুদের অন্তরে’ একথা উল্লেখ করে বলেন, আমাদের শিশু-কিশোরেরাও একদিন বিশ^ব্যাপী খ্যাতি পাবে। তাদের লিখনির মাধ্যমে সমাজ পরিবর্তন হবে। তাই শিশুদের সাহিত্য মানস করে তোলার জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকদেরকে ও বাড়িতে অভিভাবদেরকে শিশুদের প্রতি দায়িত্বশীল আচরণ করতে। একই সাথে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিশুদের সুকুমার বৃত্তির বিকাশে শিক্ষার্থীদের সম্পৃক্ততামূলক কর্মসূচি বাস্তবায়ন করতে হবে।
একাডেমীর সহ-সভাপতি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ভিত্তিক প্রতিভা অন্বেষণ কমিটির আহবায়ক ও কক্সবাজার সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক ছড়াকার মো. নাছির উদ্দিন স্বাগত বক্তব্য পেশ করেন।
একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক কবি রুহুল কাদের বাবুলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতায় অন্যদের বক্তব্য পেশ করেন সিএম উপকূলীয় উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক মৌলভী আবুল কাসেম, একাডেমীর নির্বাহী সদস্য নাইক্ষ্যংছড়ি হাজী আবুল কালাম সরকারি কলেজের ইংরেজি বিভাগের প্রভাষক হাসান আহমদ সোবহানী, একাডেমীর নির্বাণ পাল।
এসময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের শিক্ষক মোহাম্মদ মুসা, শাহেদা বেগম, সূর্য লতা তঞ্চঙ্গা, আনোয়ারা বেগম, সাজেদা বেগম, খাদিজাতুল কোবরা ও এস্তাফিজুর রহমান।
এই কর্মসূচির মধ্যে সি এম উপকূলীয় উচ্চ বিদ্যালয়ে ৬ষ্ঠ থেকে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের ‘খ’ গ্রুপ ও ৯ম ও ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ‘গ’ গ্রুপভুক্ত করে প্রতিযোগীতার আয়োজন করা হবে। একই সাথে গ্রুপ ভিত্তিক শিক্ষার্থীরা স্বরচিত কবিতা-ছড়া ও গল্প-প্রবন্ধে অংশগ্রহণ করে।
বক্তাগণ আরো বলেন, কক্সবাজার সাহিত্য একাডেমীর শিশুদের প্রতিভা অন্বেষণ কর্মসূচির মাধ্যমে এ প্রজন্মের শিশু-কিশোরেরা তাদের সুকুমার বৃত্তির বিকাশের সুযোগ পাচ্ছে। এর মাধ্যমে শিশু-কিশোরেরা নিজেদেরকে আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার সুযোগ পাচ্ছে।
প্রধান অতিথি ভবিষ্যতেও তার বিদ্যালয়ে উক্ত কর্মসূচিসহ সাহিত্য একাডেমীর অন্যান্য কর্মকা- অব্যাহত রাখার জন্য একাডেমীর কর্মকর্তাদের প্রতি আহবান জানান। সাথে সাথে তিনি বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের এসব সৃজনশীল কর্মকা-ে অংশগ্রহণ করার জন্য আহবান জানান।
প্রতিযোগিতায় বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন একাডেমীর সহ-সভাপতি মো. নাছির উদ্দিন, নির্বাহী সদস্য অধ্যাপক হাসান আহমদ সোবহানী ও নির্বাণ পাল।
প্রতিযোগিতা শেষে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।
প্রতিযোগিতায় ‘খ’ গ্রুপে কবিতা আবৃত্তিতে ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী তাহমিনা আক্তার প্রথম, ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র আরাফাত ইসলাম সাকীব দ্বিতীয় ও ৭ম শ্রেণির ছাত্রী ফারজানা আক্তার তৃতীয় স্থান অধিকার করে। স্বরচিত ছড়া-কবিতা বিভাগে ৮ম শ্রেণির ছাত্রী নাজমা সুলতানা আনিকা প্রথম, ৭ম শ্রেণির ছাত্র সাইফুল ইসলাম সোহান দ্বিতীয় ও ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী হুমায়রা সুলতানা তৃতীয় স্থান অধিকার করে এবং স্বরচিত গল্প-প্রবন্ধ বিভাগে ৭ম শ্রেণির ছাত্র কাওসার আকতার রানা প্রথম, ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র আনিসুল আকতার দ্বিতীয় ও ৮ম শ্রেণির ছাত্র মোহাম্মদ তারেক তৃতীয় স্থান অধিকার করে।
প্রতিযোগিতায় ‘গ’ গ্রুপে স্বরচিত ছড়া-কবিতা বিভাগে ৯ম শ্রেণির ছাত্রী রেজিয়া আকতার প্রথম, ১০ম শ্রেণির ছাত্রী ফাতেমা বেগম দ্বিতীয় ও ৯ম শ্রেণির ছাত্র মিজানুর রাহমান তৃতীয় স্থান, কবিতা আবৃত্তিতে ৯ম শ্রেণির ছাত্রী মর্জিনা আক্তার প্রথম, ৯ম শ্রেণির ছাত্রী জোবাইদা আক্তার শোভা ও ৯ম শ্রেণির ছাত্রী মান্থ চাকমা তৃতীয় স্থান এবং স্বরচিত গল্প-প্রবন্ধ বিভাগে ৯ম শ্রেণির ছাত্র মোহাম্মদ আরাফাত প্রথম, ৯ম শ্রেণির ছাত্রী মর্জিনা আক্তার সুইটি ও ৯ম শ্রেণির ছাত্রী জোবাইদা আক্তার শোভা তৃতীয় স্থান অধিকার করে।
অধিকার করে।
বার্তা প্রেরক
রুহুল কাদের বাবুল
সাধারণ সম্পাদক
কক্সবাজার সাহিত্য একাডেমী।
০১৮৪৩ ৬৩৭ ১৬৩


সর্বশেষ সংবাদ