টেকনাফে জেএসসি-জেডিসি পরিক্ষার ৪টি কেন্দ্রে ১ম দিন ১০৫ জন পরিক্ষার্থী অনুপস্থিত

প্রকাশ: ২ নভেম্বর, ২০১৯ ১০:২৭ : অপরাহ্ণ

হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, টেকনাফ … টেকনাফে জেএসসি ও জেডিসি পরিক্ষার ১ম দিনে মোট ১০৫ জন পরিক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিল। এরমধ্যে জেএসসির ৩টি কেন্দ্রে ৬৩ জন এবং জেডিসির ১টি কেন্দ্রে ৪২ জন। ২০১৮ সালে অনুষ্টিত জেএসসি ও জেডিসি পরিক্ষায় অনুপস্থিত ছিল ৭২ জন।
কেন্দ্রওয়ারী অনুপস্থিতি হচ্ছে জেএসসি টেকনাফ পাইলট হাইস্কুল ১নং কেন্দ্রে ১৭ জন, টেকনাফ এজাহার গার্লস হাইস্কুল ২নং কেন্দ্রে ৩৬ জন এবং হোয়াইক্যং আলহাজ্ব আলী-আছিয়া হাইস্কুল ৩নং কেন্দ্রে ১০ জন। টেকনাফ উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার মোঃ নুরুল আবসার রাতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
উল্লেখ্য, দেশব্যাপী ২ নভেম্বর শনিবার একযোগে শুরু হওয়া ২য় বৃহত্তর পাবলিক পরিক্ষায় জেএসসি এবং জেডিসিতে টেকনাফ উপজেলায় এবারে ৩টি কেন্দ্রে জেএসসি এবং ১টি কেন্দ্রে জেডিসি পরিক্ষা অনুষ্টিত হচ্ছে। নিয়মিত ও অনিয়মিতসহ এবারে মোট পরিক্ষার্থীর সংখ্যা ৩ হাজার ৭৭৮ জন। তম্মধ্যে জেএসসিতে ১৭টি মাধ্যমিক স্কুল ও ১টি সরকারী প্রাইমারী স্কুলের মোট পরিক্ষার্থীর সংখ্যা ২ হাজার ৮৪১ জন এবং জেডিসিতে ১০টি মাদ্রাসার ৯৩৭ জন। জেএসসির কেন্দ্রগুলো হচ্ছে টেকনাফ পাইলট হাইস্কুল, টেকনাফ এজাহার সরকারী গার্লস হাইস্কুল ও হোয়াইক্যং আলহাজ্ব আলী-আছিয়া হাইস্কুল। আর ১টি মাত্র মাদ্রাসা কেন্দ্র হচ্ছে রঙ্গীখালী দারুল উলুম ফাজিল মাদ্রাসা।
টেকনাফ পাইলট হাইস্কুল ১নং কেন্দ্রে হোয়াইক্যং আলহাজ্ব আলী-আছিয়া হাইস্কুল, টেকনাফ এজাহার গার্লস হাইস্কুল, শাহপরীরদ্বীপ হাজী বশির আহমদ হাইস্কুল, নয়াবাজার হাইস্কুল, নয়াপাড়া হাজী নবী হোসেন হাইস্কুল, লম্বরী মলকাবানু হাইস্কুল বিজিবি-পাবলিক এই ৭টি হাইস্কুলের মোট ১০৩৭ জন পরিক্ষার্থী পরিক্ষা দিচ্ছে। তম্মধ্যে ৪৯৭ জন ছাত্র এবং ৫৪০ ছাত্রী। একাডেমিক সুপারভাইজার মোঃ নুরুল আবসার কেন্দ্র সচিব, লম্বরী মলকাবানু উক্ত স্কুলের সহকারী শিক্ষক বাঁশী রাম দে হল তত্ববধায়ক হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন।
টেকনাফ এজাহার গার্লস হাইস্কুল ২নং কেন্দ্রে টেকনাফ পাইলট হাইস্কুল, মারিশবনিয়া হাইস্কুল, সাবরাং হাইস্কুল, সেন্টমার্টিনদ্বীপ বিএন ইসলামিক হাইস্কুল, পল্লানপাড়া সরকারী প্রাইমারী স্কুল, লেদা জুনিয়র হাইস্কুল এই ৫টি হাইস্কুলের ও ১টি প্রাইমারী স্কুলের মোট ৮৭৩ জন পরিক্ষার্থী পরিক্ষা দিচ্ছে। তম্মধ্যে ৪৩৮ জন ছাত্র এবং ৪৩৫ ছাত্রী। উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ এমদাদ হোসেন চৌধুরী কেন্দ্র সচিব, উক্ত স্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষক শব্বির আহমদ হল হল তত্ববধায়ক হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন।
হোয়াইক্যং আলহাজ্ব আলী-আছিয়া হাইস্কুল ৩নং কেন্দ্রে হ্নীলা হাইস্কুল, হ্নীলা গার্লস হাইস্কুল, নাইক্ষংখালী জুনিয়র হাইস্কুল, কাঞ্জরপাড়া জুনিয়র হাইস্কুল, শামলাপুর হাইস্কুল এই ৬টি হাইস্কুলের মোট ৯৩১ জন পরিক্ষার্থী পরিক্ষা দিচ্ছে। তম্মধ্যে ৫২৪ জন ছাত্র এবং ৪০৭ ছাত্রী। উপজেলা পল্লী উন্নয়ন অফিসার মৃণাল কান্তি কেন্দ্র সচিব, উক্ত স্কুলের সহকারী শিক্ষক উ হ্লা অং হল তত্ববধায়ক হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন।
১টি মাত্র জেডিসি মাদ্রাসা কেন্দ্র হ্নীলা রঙ্গীখালী দারুল উলুম ফাজিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে উপজেলার সকল মাধ্যমিক স্তরের ১০টি মাদ্রাসার মোট ৯৩৭ জন পরিক্ষার্থী পরিক্ষা দিচ্ছে। তম্মধ্যে ৪৪৫ জন ছাত্র এবং ৪৯২ ছাত্রী। মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওঃ কামাল হোছাইন কেন্দ্র সচিব, জমিরিয়া দারুল কুরআন সিনিয়র মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওঃ ফরিদুল আলম হল তত্ববধায়ক হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। প্রত্যেক কেন্দ্রে প্রতি ২০ জন পরিক্ষার্থীর জন্য ১ জন করে কক্ষ পর্যবেক্ষক রয়েছেন। তাছাড়া ভিজিল্যান্স টিম গঠন ও ৪টি কেন্দ্র কমিটি গঠন ছাড়াও সুষ্ট-সুন্দরভাবে পরিক্ষা অনুষ্টানের জন্য ইতিমধ্যেই উপজেলা প্রশাসন যাবতীয় প্রস্ততি সম্পন্ন করেছেন।
প্রসঙ্গতঃ, ২০১৭ সালে পরিক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ২ হাজার ৫২৮ জন। তম্মধ্যে জেএসসিতে ১৮টি স্কুলের ১ হাজার ৮৯৫ জন এবং জেডিসিতে ১০টি মাদ্রাসার ৬৩৩ জন। সর্বমোট ২৫২৮ জন। ২০১৮ সালে মোট পরিক্ষার্থীর সংখ্যা ৩ হাজার ২৪২ জন। তম্মধ্যে জেএসসিতে ১৮টি মাধ্যমিক স্কুলের পরিক্ষার্থীর সংখ্যা ২ হাজার ৪৩৪ জন এবং জেডিসিতে ১০টি মাদ্রাসার ৮০৮ জন। ##


সর্বশেষ সংবাদ