হটলাইন

01787-652629

E-mail: teknafnews@gmail.com

সর্বশেষ সংবাদ

ক্রীড়া

২৯ বছর পর বিশ্বকাপের ফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ

১৯৮৩ বিশ্বকাপের ফাইনালে ভারতের কাছে হেরে গিয়েছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। দীর্ঘ ২৯ বছর পর আবার তারা কোনো বিশ্বকাপের ফাইনালে। শুক্রবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৭৪ রানে হারিয়েছে অস্ট্রেলিয়াকে।
রোববার ফাইনালে ক্যারিবীয়দের প্রতিপক্ষ স্বাগতিক শ্রীলঙ্কা।
কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে ওয়েস্ট ইন্ডিজের জয়ের নায়ক ক্রিস গেইল। মাত্র ৪১ বলে তার ৬টি ছক্কা ও ৫টি চার সমৃদ্ধ অপরাজিত ৭৫ রানের দুর্দান্ত ইনিংসে ড্যারেন স্যামির দলের স্মরণীয় জয়ের ভিত রচিত।
টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ৪ উইকেটে ২০৫ রান করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জবাবে ১৬ ওভার ৪ বলে ১৩১ রানেই অলআউট হয়ে যায় অস্ট্রেলিয়া।
ব্যাট করতে নেমে প্রথম ৫ ওভারে জনসন চার্লসকে (১০) হারিয়ে ৩৩ রান সংগ্রহ করা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ১০ ওভারে ২ উইকেটে ৭৪ রানের ভালো ভিতের ওপর দাঁড় করায় মারলন স্যামুয়েলস ও গেইলের আক্রমণাত্মক ব্যাটিং। দলীয় ৫৭ রানে প্যাট কামিন্সের বলে স্যামুয়েলস (২০ বলে ২৬) বোল্ড হলে ভেঙ্গে যায় ৪১ রানের জুটি।
স্যামুয়েলসের বিদায়ের আগ পর্যন্ত মোটামুটি শান্তই ছিলেন গেইল। সে সময় ১৬ রানে ব্যাট করা বাঁহাতি এই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান তৃতীয় উইকেটে ডোয়াইন ব্রাভোকে পেয়ে খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসেন। ১১ থেকে ১৫ ওভারে অবিচ্ছিন্ন থেকে ৫৮ রান সংগ্রহ করে দলকে বড় স্কোরের দিকেই নিয়ে যান তারা। ব্রাভোকে (৩১ বলে ৩৭) জর্জ বেইলির ক্যাচে পরিণত করে ৮ ওভার ৩ বলে তাদের ৮৩ রানের জুটি ভাঙ্গেন কামিন্স।
ব্রাভোর বিদায়ের পর অস্ট্রেলিয়ার বোলারদের ওপর আরো চড়াও হন গেইল ও কাইরন পোলার্ড। ৪ ওভার ১ বলে তাদের ৬৫ রানের জুটির সৌজন্যে দুশ পেরোয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ইনিংসের শেষ বলে ওয়ার্নারের হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেয়ার আগে ১৫ বলে ৩টি করে চার ও ছক্কার সাহায্যে ৩৮ রান করেন পোলার্ড।
জাভিয়ের ডোহার্টির শেষ ওভারে ২৫ রান নেন গেইল-পোলার্ড। এর মধ্যে পোলার্ড আউট হওয়ার আগের তিন বলকে উড়িয়ে সীমানা ছাড়া করেন। তাদের দাপুটে ব্যাটিংয়ে শেষ ৫ ওভারে ৭৩ রান সংগ্রহ করে ড্যারেন স্যামির দল।
অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে কামিন্স ৩৬ রানে নেন ২ উইকেট।
লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ডেভিড ওয়ার্নার (১) ও শেন ওয়াটসনকে (৭) বোল্ড করে দ্রুত ফিরিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে সবচেয়ে বড় ধাক্কাটা দেন স্যামুয়েল বদ্রি। সপ্তম ওভারে জোড়া আঘাতে ক্যামেরন হোয়াইট (৫) ও ডেভিড হাসিকে (০) ফিরিয়ে দিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে ধ্বংস্তুপে পরিণত করেন রবি রামপল।
মাঝখানে স্যামুয়েলস ফিরতি ক্যাচ নিয়ে মাইক হাসিকে (১৮) এবং পরে সুনীল নারায়ণ ম্যাথু ওয়েডকে (১) ফিরিয়ে দিলে অস্ট্রেলিয়ার স্কোর দাঁড়ায় ৪৩/৬।
সপ্তম উইকেটে কামিন্সের (১৩) সঙ্গে বেইলির ৬৮ রানের জুটি অস্ট্রেলিয়ার আশা জাগিয়ে তুলে। সপ্তম বোলার হিসেবে বল করতে এসে পোলার্ড পরপর দুই বলে বেইলি (৬৩) ও কামিন্সকে বিদায় করে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সহজ জয় নিশ্চিত করেন। বেইলির ২৯ বলের ইনিংসে ৬টি চার ৪টি ছক্কা।
এরপর আর বেশি দূর এগোয়নি অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস।
১৬ রানে ৩ উইকেট নিয়ে রামপল ওয়েস্ট ইন্ডিসের সেরা বোলার।

Leave a Response

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.