টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

১১৭ ইয়াবার ডিলার.. ছবিসহ পূর্ণ বায়োডাটা সংগ্রহ

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শনিবার, ১১ আগস্ট, ২০১২
  • ৩২২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

বর্তমান সময়ের আধুনিক যৌন উত্তেজক ও নেশার ট্যাবলেট ইয়াবা দেশব্যাপী ছড়াচ্ছে ১১৭ ডিলার। মিয়ানমার-বাংলাদেশ সীমান্তে ১৪টি ইয়াবা তৈরির কারখানা থেকে এর চালান সারা দেশে যাচ্ছে বলে গোয়েন্দারা নিশ্চিত হয়েছেন। এসব ডিলারদের তালিকা করে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছে সরকারের একটি বিশেষ গোয়েন্দা সংস্থা। পাচারে জড়িত ডিলাররা বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সম্পৃক্ত। দ্রুত বিত্তবান হওয়ার সহজতম উপায় হওয়ায় এসব ডিলারদের হয়ে কাজ করছে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরাও। তাদের জড়িত থাকার ব্যাপারে গোয়েন্দারা নিশ্চিত হয়েছেন বলে তালিকায় উল্লেখ করেছেন। স্কুল-কলেজ থেকে শুরু করে সরকারি-বেসরকারি অফিস-আদালতেও বিক্রি হচ্ছে ইয়াবা। ইয়াবা কেনাবেচায় জার্মানির পর বাংলাদেশের অবস্থান বলে জানা গেছে। এ ব্যবসা ঠেকাতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে শুরু করে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার দফতরগুলো দফায় দফায় বৈঠক করছে। এ তালিকা নিয়ে সারা দেশ চষে বেড়াচ্ছে র‌্যাব ও পুলিশ।
এ ব্যাপারে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার এম সোহায়েল সম্প্রতি সাংবাদিকদের জানান, ইয়াবা ব্যবসা রোধ করতে র‌্যাবের একাধিক টিম কাজ করছে। ইয়াবা ডিলারদের তালিকা করে ধরার চেষ্টা চলছে। একাধিক শক্তিশালী সিন্ডিকেট মিয়ানমার থেকে দেশে ইয়াবার চালান নিয়ে আসছে বলে তথ্য পেয়েছি। এ ব্যবসার সঙ্গে জড়িত একাধিক জনপ্রতিনিধির নাম এসেছে। তাদের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কোন সদস্য এ ব্যবসা করছেন কি না, তা চিহ্নিত করতে গোয়েন্দারা কাজ করছেন বলেও উল্লেখ করছেন তিনি।
গোয়েন্দাসূত্র জানায়, দীর্ঘদিন ধরে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ইয়াবা কেনাবেচা হয়ে আসছে। শহর থেকে শুরু করে গ্রামাঞ্চলে ইয়াবায় আসক্ত হয়ে পড়েছে কিশোর-কিশোরীরা। এমনকি এ নেশা থেকে চিকিৎসক, প্রকৌশলী, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও শিক্ষকেরাও বাদ যাচ্ছেন না। অনেকে নেশায় আক্রান্ত হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছেন। প্রতিদিনই কোথাও না কোথাও ইয়াবার চালান উদ্ধার ও মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার হচ্ছে। তারপরও ইয়াবার চাহিদা কমছে না। আবার অনেক সময় দেখা যায় ব্যবসায়ীদের গ্রেফতার করলেও তারা কারাগার থেকে ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করছে। আইন প্রয়োগকারী সংস্থার চোখ ফাঁকি দিতে মৃত মুরগি, গ্যাস সিলিন্ডার, ম্যাচ বক্স, ক্যান বা কৌটা ও মোবাইল বক্সের ভেতরে করে ইয়াবার চালান আনা হচ্ছে।
সম্প্রতি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশে একটি বিশেষ গোয়েন্দা সংস্থা ইয়াবা ডিলারদের তালিকা করে। ওই তালিকায় ১১৭ জনের নাম এসেছে। তাদের ছবিসহ পূর্ণ বায়োডাটা সংগ্রহ করা হয়েছে। তালিকাটি মন্ত্রণালয়ে পৌছানো হয়। তালিকাভুক্তরা হলেন টেকনাফের লেংগুরবিল এলাকার মোস্তাক, রহিম, আবদুর, আহমদ, দিদার হোসেন, ডেইলপাড়ার মৌলভী বোরহান, আবদুর রাজ্জাক, নুরুল আমিন, আবদুল্লাহ, জালিয়াপাড়ার সিরাজ মিয়া, সৈয়দ আলম, শুক্কুর আলী, মুজিব, মোহাম্মদ আলম, নুর মোহাম্মদ, জাদিমুরার আবদুল্লাহ হাসান, কেকেপাড়ার একরামুল হক, জাহেদ হোসেন, উত্তর লম্বরীর কামাল হোসেন, চৌধুরীপাড়ার জহির, নাজিরপাড়ার জাফর নুর আলম, তোতা মিয়া, কান্তি রায়, আবদুর রহমান, নাইট্যংপাড়ার আনোয়ার, তৈয়ব মিয়া, পিচ্চি আনোয়ার, জাবেদ, জামাল উদ্দিন, মণ্ডলপাড়ার নুর হোসেন, হারিয়াখালীর কবির আহমদ, শাহপরীর দ্বীপের ইবরাহিম, রমজান, করিম উদ্দিন, রুহুল আমিন, ইসলামাবাদের মোহাম্মদ হোসেন, আবদুর রাজ্জাক, মনুপাড়ার জাকির হোসেন, একটেল রমজান; ঢাকায় ফার“ক, শহিদ, মামুন, মুন্না, মনির, মিলন, তোতা মিয়া, বেলাল, রায়লা, সোহাগ, ডালিম, নাসির, দাদা ফারুক, আকতার, মিয়া, রমজান, জাবেদ আলী, রনি মিয়া, পেট কাটা আলম, সাজ, বিউটি আক্তার, পারুল বেগম অন্যতম। এদের মধ্যে পিচ্চি আনোয়ার ও সৈয়দ আলম টেকনাফের একটি ইউনিয়নের জনপ্রতিনিধি। আবদুর রশিদকে কয়েক মাস আগে বিপুল পরিমাণ ইয়াবাসহ গ্রেফতার করে র‌্যাব।
তালিকায় উল্লেখ করা হয়েছে কিছুদিন জেল খেটে আবার বেরিয়ে আসেন তিনি। মিয়ানমারের নাগরিক রশিদ টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপে বসবাস শুরু করেন ১৯৭৮ সাল থেকে। একসময় শ্রমিক হিসেবে কাজ করলেও এখন তিনি কোটিপতি। তার দুই ভাই হোসেন আহমদ ও হাফিজ উল্লাহ একই ব্যবসায় জড়িত। রশিদ বিয়ে করেন শাহপরীর দ্বীপের মৌলভী সিরাজুল ইসলামের মেয়েকে। ১৯৯৫ সালে রশিদ বিএনপিতে যোগ দেন। পরে আওয়ামী লীগে চলে আসেন।
কোন পয়েন্ট দিয়ে ইয়াবা আসছে তাও সনাক্ত করেছে গোয়েন্দারা। তাদের উল্লেখিত তথ্য মতে সীমান্তের অন্তত ৪৫টি পয়েন্টে ইয়াবা ট্যাবলেট বাংলাদেশে আসছে। টেকনাফ সদরের নাজিরপাড়া, মৌলবীপাড়া, জালিয়াপাড়া, নাইট্যংপাড়া, কেরুনতলী, বন্দরঘাট, কাইয়ুকখালী ঘাট, নীলার জাদিমুরা, নাটমুরাপাড়া, উলুবুনিয়া, শাহপরীর দ্বীপের মিস্ত্রিপাড়া, ঝিনাপাড়া, সাবরা, ফেনীর পরশুরাম, বিলোনিয়া, ফুলগাজী, কুমিল্লার বিবিরবাজার, যশোর, সাতক্ষীরা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, সিলেট, ছাগলনাইয়া, মুন্সীরহাট, কালিরহাট, পাঠাননগর, রানীরহাট, সুয়াগাজী, চৌদ্দগ্রাম অন্যতম। এসব স্থান থেকে ইয়াবা এসে ঢাকাসহ প্রত্যন্ত অঞ্চলে যাচ্ছে বলে গোয়েন্দারা নিশ্চিত হন।
ইয়াবা ব্যবসায়ীরা কারা কিরছেন তাও গোয়েন্দারা তারিকার সাথে উল্লেখ করে দিয়েছেন। ঢাকার খিলগাঁওয়ে ইয়াবা ব্যবসা করেন রুহুল আমিন। সাত বছর ধরে তিনি টেকনাফ থেকে ইয়াবার চালান এনে ঢাকার বিভিন্ন স্থানে বিক্রি করে আসছেন। কিছুদিন আগে সায়েদাবাদ বাসস্ট্যান্ডে ১ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করে পুলিশ। কিন্তু পুলিশ ১০ হাজার টাকা পেয়ে ইয়াবা ট্যাবলেটগুলো ছেড়ে দেয় বলে খবর পাওয়া গেছে। রুহুল আমিন জানান, পুলিশ ও র‌্যাবকে ম্যানেজ করে ডিলাররা ইয়াবা ব্যবসা করে আসছেন।
ইয়াবা ব্যবসায় বাংলাদেশ বিশ্বে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে বলে প্রকাশ পেয়েছে। গত ১০ বছরের ব্যবধানে ইয়াবা ব্যবসার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ দ্বিতীয় স্থানে আসতে সক্ষম হয়েছে। প্রথম অবস্থানে রয়েছে জার্মানি। জার্মানির আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কঠোর নজরদারি ও ইয়াবা ব্যবসায়ীদের ধরে তৎক্ষণাৎ সাজা হওয়ায় সেখানে এ ব্যবসা আস্তে আস্তে কমে আসছে। তারপরও ওই দেশ শীর্ষ অবস্থান ধরে রেখেছে। মিয়ানমারে ইয়াবা ব্যবসা প্রথমে রাখাইনরা শুরু করলেও এখন তা রোহিঙ্গাদের হাতে চলে গেছে। রোহিঙ্গাদের মাধ্যমেই বাংলাদেশে ইয়াবা ব্যবসা শুরু হয় বলে অভিযোগ রয়েছে।
বর্তমানে ইয়াবা ব্যবসা ও সেবীদের মাঝে উচ্চ শিক্ষিতরা জড়িয়ে পড়ছেন। এদের একজন মুন্নী বেগম (ছদ্মনাম)। বনানীর একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেন তিনি। দুই বছর আগ থেকে তিনি ইয়াবা সেবন করেন। ২০০৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে মাস্টার্স করে ওই প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগ দেন তিনি। তিনি জানান, ইয়াবা সেবন করে তার পুরো জীবনাটা শেষ হয়ে গেছে। সংসার-সন্তান কেউ নেই তার কাছে। নানা অসুখ-বিসুখ লেগেই আছে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাকে তাড়িয়ে দিয়েছে। তার পরও ইয়াবার নেশা ছাড়তে পারছেন না। একটি সরকারি হাসপাতালের এক চিকিৎসক, ঢাবির এক ছাত্র ও এক ছাত্রীও
একই ধরনের কথা বলেছেন। ইয়াবাসহ কোন ধরনের মাদক যেন কেউ সেবন না করেন সেই আবেদনও জানিয়েছেন তারা।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT