টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
টেকনাফে ৪ প্রতিষ্ঠানকে অর্থদন্ড টেকনাফ হাসপাতালে ‘মাল্টিপারপাস হেলথ ভলান্টিয়ার প্রশিক্ষণ’ বান্দরবানে রোহিঙ্গা ‘ইয়াবা কারবারি বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত রামুতে পাহাড় ধসে ২ জনের মৃত্যু দেশের ১০ অঞ্চলে আজ ঝড়বৃষ্টি হতে পারে মাধ্যমিকে বার্ষিক পরীক্ষা হচ্ছে না: গ্রেডিং বিহীন সনদ পাবে জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষার্থীরা যুক্তরাষ্ট্রের উদ্যোগে রোহিঙ্গা বিষয়ক বৈঠক বৃহস্পতিবার মেজর সিনহা হত্যা মামলা বাতিল চাওয়া আবেদনের শুনানি ১০ নভেম্বর মোবাইল ব্যাংকিংয়ে ক্যাশ আউট চার্জ কমানোর উদ্যোগঃ নগদ’এ ক্যাশ আউট হাজারে ৯.৯৯ টাকায় ড্রাইভিং লাইসেন্সের লিখিত পরীক্ষার স্ট্যান্ডার্ড ৮৫টি প্রশ্ন

১১১ প্রার্থীর নাম জানালেন এরশাদ

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১২
  • ১৮২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ‘সম্ভাব্য’ প্রার্থী হিসাবে ১১১ জনের নাম ঘোষণা করেছে জাতীয় পার্টি।দলের চেয়ারম্যান এইচ এম এরশাদ তাদের এলাকায় গিয়ে কাজ শুরুর নির্দেশ দিয়েছেন।রোববার গুলশানের একটি রেস্তোরাঁয় এক সভায় প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করে এরশাদ বলেন, “এককভাবে নির্বাচন করে দেশের প্রথম শক্তি হিসাবে জাতীয় পার্টি আবার ক্ষমতায় গিয়ে জনগণের মঙ্গল সাধন করবে।”
তিনি বলেন, “জাতীয় পার্টির সামনে এখন সুবর্ণ সুযোগ অপেক্ষা করছে। দেশের মানুষই এই সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছেন।”
এই সুযোগ কাজে লাগাতে জাতীয় পার্টির সম্ভাব্য ১১১ প্রার্থীদের নিজ নিজ নির্বাচনী এলাকায় গিয়ে নির্বাচনী কাজ শুরু করার নির্দেশ দেন এরশাদ।
তিনি বলেন, “মানুষ যে দুর্বিসহ যন্ত্রণা ভোগ করছে তা থেকে তারা এখন মুক্তি চায়। তাদের নির্বাচিত প্রতিনিধি হিসেবে জাতীয় পার্টির প্রার্থীরাই সেই মুক্তি এনেদিতে পারে।”আমাদের প্রার্থীরা নিবেদিতভাবে কাজ করতে পারলে নির্বাচনের ফল আমাদের অনুকূলেই আসবে। আমরা তৃতীয় শক্তি হিসেবে নয়, প্রথম শক্তি হিসেবেই ক্ষমতায় যাওবার আশা রাখি।”
কোনো তত্ত্বাবধায়ক সরকারই জাতীয় পার্টির প্রতি নিরপেক্ষ ছিল না উল্লেখ করে এরশাদ বলেন, “এই ব্যবস্থা রাজনীতিবিদদের কপালে একটি কলঙ্ক তিলক। তাই আমরা তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থার বিলোপ চেয়েছি।”
জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় গেলে প্রাদেশিক সরকার ব্যবস্থা প্রবর্তন এবং নির্বাচন পদ্ধতির সংস্কার করবে বলে জানান এরশাদ।
জাতীয় পার্টির সম্ভব্য প্রার্থী
সভায় সম্ভাব্য যেসব প্রার্থীর সঙ্গে এরশাদ মতবিনিময় করেছেন তারা হলেন- মো. আবু সালেক, সুলতানুল ফেরদৌস নম্র, জীবন চৌধুরী, আহমেদ শফি রুবেল, দেলোয়ার হোসেন, জয়নাল আবেদীন, শওকত চৌধুরী, মেজর মো. খালেদ আখতার (অব.), করিম উদ্দিন ভরসা, এস এম ফখর উজ জামান জাহাঙ্গীর, নুরে ইসলাম যাদু, তাজুল ইসলাম চৌধুরী, গোলাম হাবিব দুলাল, আব্দুর রশীদ সরকার, কাজী মো. আবুল কাশেম রিপন, মো. তিতাস, শরিফুল ইসলাম জিন্নাহ, মো. শাহজাহান, তাজ মোহাম্মদ, আলতাফ আলী, মো. আব্দুর রাজ্জাক, তোফাজ্জল হোসেন, এনামুল হক, শাহাবুদ্দিন বাচ্চু, অধ্যাপক আবুল হোসেন, মুজিবুর রহমান সেন্টু, আবুল কাশেম সরকার, আমিনুল ইসলাম ঝন্টু, সরদার শাহজান, মো. হায়দার আলী, মো. নাসির চৌধুরী, মো. কোরবান আলী, আহসান হাবীব লিংকন, বদরুদ্দোজা গামা, মিয়া মো. রেজাউল হক, সোহরাব হোসেন, জহিরুল হক জহির, হাসান সিরাজ সুজা, মেজর গাজী আশরাফ উল আলম (অব.), মো. শরীফ মনির হোসেন, বাবু সোমনাথ দে, মি. সুনীল শুভরায়, মো. শফিকুল ইসলাম মধু, সৈয়দ দিদার বখত, সম সালাউদ্দিন, আব্দুর রাজ্জাক খান, মো. সিদ্দিকুর রহমান, সমীর গুপ্ত, নাসির উদ্দিন সাথী, অধ্যাপক মহসিন উল ইসলাম হাবুল, নাসরিন জাহান রতনা, মোস্তাফা জামাল হায়দার, রুস্তম আলী ফরাজী, মো. শামসুল হক তালুকদার, আব্দুস সালাম চাকলাদার, জহিরুল ইসলাম জহির, কাজী আশরাফ সিদ্দিকী, এম এ সাত্তার, মো. ইলিয়াস উদ্দিন, মো. সালাউদ্দিন মুক্তি, নাজমুল হক, এম এ হান্নান, ফখরুল ইমাম, ফকির আশরাফ, এম হাবিব উল¬াহ, শেখ মুহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, কলিমুল¬াহ, খান মো. ইসরাফিল খোকন, সালমা ইসলাম, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, মীর আব্দুস সবুর আসুদ, হাজি সাইফুদ্দিন আহমেদ মিলন, জহিুরুল আলম রুবেল, অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন খান, কাজী ফিরোজ রশীদ, মো. সিরাজ মিয়া, মো. মোস্তাকুর রহমান মোস্তাক, বাহাউদ্দিন আহমেদ বাবুল, ব্রি. জেনারেল কাজী মাহমুদ হাসান (অব.), খন্দকার আব্দুস সালাম, মো. নুরুল ইসলাম এমএ, মোস্তফা জামাল বেবী, আলমগীর শিকদার লোটন, মৌসুমী আখতার, লিয়াকত হোসেন খোকা, হাবিুবুর রহমান বাচ্চু, নুরুল ইসলাম, আবুল হোসেন, মজিদ মাস্টার, দেওয়ান জয়নাল আবেদীন, আলহাজ শাব্বীর আহমেদ, সেলিম উদ্দিন, শঙ্কর পাল, আতিকুর রহমান আতিক, আহসানুল হক মাস্টার, মো. রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, মো. সেলিম মাষ্টার, অধ্যাপক ইকবাল হোসেন রাজু, নুরুল ইসলাম মিলন, গোলাম মোস্তফা, কাজী জাফর আহমদ, শহিদুল ইসলাম, আলাউদ্দিন, রিন্টু আনোয়ার, সালাউদ্দিন আহমেদ, মো. মোবারক হোসেন আজাদ, জিয়া উদ্দিন আহমেদ বাবলু, সোলায়মান আলম শেঠ, মোরশেদ মুরাদ ইব্রাহিম, মো. ইলিয়াস ও কবির সওদাগর।
এদের মধ্যে জাতীয় পার্টির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফর আহমদকে কুমিল্লা-১১ আসনে প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করেন এরশাদ।
ন্য আসনগুলোর সম্ভাব্য প্রার্থীদের সঙ্গে দুই পর্যায়ে মতবিনিময় করা হবে বলে সভায় জানানো হয়।
সভায় পার্টির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য বেগম রওশন এরশাদ, মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য কাজী জাফর আহমদ, গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি, এম এ সাত্তার, টি আই এম ফজলে রাব্বি চৌধুরী এমপি, এম এ হান্নান প্রমুখ বক্তব্য দেন।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT