টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

হোয়াইক্যং-শামলাপুর যানযোগাযোগ বন্ধের উপক্রম

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৯ অক্টোবর, ২০১২
  • ১১৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং- শামলাপুর ও টেকনাফ স্টেশন হয়ে-বাহার ছরা শামলাপুর সড়কের কয়েকটি ব্রিজ ও সড়কের দু’পাশ ভেঙ্গে যাওয়ায় উপজেলার প্রধান সড়ক গুলো দিয়ে যানচলাচল সম্পূর্নভাবে বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়ে উঠেছে।
টেকনাফ-হোয়াইক্যং সড়ক দিয়ে দীর্ঘদিন থেকে যানচলাচল বন্ধ রয়েছে। ফলে সড়ক গুলোর উভয় দিকের অধিবাসিদের মধ্যে অন্য এলাকার সাথে সম্পুর্ণভাবে যোগাযোগ বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে। চরম ঝুকিতে যাতায়াত করছে মত মত এলাকাবাসী।
সরেজমিনে দেখাগেছে, ইউনিয়নটির দৈর্ঘ্য ১৮ কিলোমিটার পুরুটাই সৈতক এলাকা ওইখানে প্রায় বিশ হাজার লোকজনের বসবাস, তাদের সকলের প্রানেরদাবি সড়ক উন্নয়ন করা। হোয়াইক্যং শামলাপুর সড়কের মাঝখানে সোনালী ব্যাংক নামক জায়গায় একটি ব্রিজ দীর্ঘদিন থেকে বিধ্বস্ত।
কোন প্রকার মেরামত কাজ না করায় যানযোগে যাতায়াত সমপূর্ণভাবে বন্ধ। সড়কের ওই নাজুকাবস্থা সম্পর্কে জানেনা এমন অসংখ্য পর্যটক গাড়ি নিয়ে বিপদে পড়ে। বাহার ছরা অঞ্চলের মানুষ দৈনন্দিনের প্রয়োজনীয় কাজ সমাধানে হোয়াইক্যং বাজারের উপর নির্ভরশীল।
দীর্ঘদিন থেকে সড়ক অকেজো হওয়ার পর থেকে দারুনভাবে কষ্টে রয়েছেন ওই এলাকার মানুষ। হোয়াইক্যং অঞ্চলের অধিবাসিরা বাহার ছরা ও শামলাপুর না গেলেও তেমন কোন অসুবিধায় পড়তে হয়না।
তাই হোয়াইক্যং ইউনিয়ন পরিষদের সেদিকে কোন নজর নেই। বাহরছরা শামলাপুরের মানুষ উক্ত সড়ক মেরামতের দাবি জানিয়ে আসছে দীর্ঘদিন । সড়কটি যাতায়াত উপযোগী হবে ই আশা ছেড়ে দিয়েছেন বাহারছরাবাসি।
বাহারছরার ইউপি চেয়ারম্যান মৌলানা মোহাম্মদ হাবিবুল্লাহ জানান, তিনি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে তার ইউনিয়নে কোন প্রকার সড়ক উন্নয়ন কাজ করা হয়নি তবে তিনটি কালর্ভাট স্থাপন করা হয়েছে ।
তিনি আরো জানান বাহার ছরা ইউনিয়নটির পুরো পশ্চিম পাশ হলো সমুদ্র সৈতক পর্যটকদের আকর্ষণীয় স্থান, দেশিবিদেশী পর্ষটকদের ওখানে ধরে রাখতে চাইলে সৈকতের সাথে সংযুক্ত চারটি রাস্তার উন্নয়ন কাজ অচিরেই করতে হবে।
স্থানীয় পুলিশ ফাঁড়ির আইসি বিল্লাল হোসেন জানান, যোগাযোগ ব্যবস্থা একটু উন্নত হলে ওই এলাকায় আইন শৃঙ্খা উন্নত রাখা সহজ হত।
অপরদিকে টেকনাফ লেংগুরবিল হতে বাহার ছারা পর্যন্ত সড়কটির নির্মান শেষ করার সময়কাল বছর পার হয়নি ইতিম্যধ্যেই সড়কটি খানাখন্দকে যানচলাচলে বিঘ্ন ঘটছে এবং সড়ক যোগাযোগ বিভাগ ও বনবিভাগের রশিটানাটানিতে সড়কের মাঝখানে বড়বড় কয়েকটি গাছ রয়েছে যার ফলে সড়ক দুর্ঘটনা এড়িয়ে চলা সম্ভব নয়।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT