টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

হোয়াইক্যংয়ে অপরাধী চক্রের উত্থান…

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১২
  • ১২০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

গর্ভধারিনী মা কেটে জেল ফেরত শাহ আলমসহ এলাকার চিহ্নিত কয়েক দুর্বৃত্তের নেতৃত্বে সীমান্ত জনপদ হোয়াইক্যংয়ে একটি অপরাধী চক্রের উত্থান ঘটেছে। ইউনিয়নের নয়াবাজার, সাতঘরিয়া পাড়া, খারাংখালীসহ আশপাশের এলাকায় প্রতিনিয়ত চাঁদাবাজি, ভয়ঙ্কর মাদক ইয়াবা ব্যবসা, সীমান্তের ওপার মিয়ানমারে দেশের সার, কেরোসিন, ঔষধ ও প্রয়োজনীয় জিনিস পাচারসহ এলাকা অভ্যন্তরে সাধারণ লোকজনের জায়গা জমি জবরদখলই ওদের প্রধান নেশা হয়ে দাঁড়িয়েছে।
জানা গেছে, মুখোশধারী স্থানীয় কিছু গ্রাম্য প্রভাবশালী দুষ্টলোকের মদদে চক্রটি এতই বেপরোয়া হয়ে উঠেছে যে, এখন সেখানকার আইনশৃঙ্খলা অবনতিতে তারা প্রত্যক্ষভাবে নেতৃত্ব দিচ্ছে। চক্রের সদস্যরা এলাকা অভ্যন্তরে চুরি, ডাকাতি, মারামারিসহ প্রায়সব অপকর্ম সমানতালে চালিয়ে যাচ্ছে। এদের কাছে ভয়ঙ্কর অস্ত্রশস্ত্র মজুদ রয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট এলাকাজুড়ে গুঞ্জন দীর্ঘদিনের। অবিশ্বাস্য হলেও সত্য, মুখোশধারী আরো কয়েক ভয়ঙ্কর দুর্বৃত্তের আস্কারায় হরদম অপকর্মে লিপ্ত উক্ত চক্র ইদানিং পশ্চিম সাতঘরিয়া পাড়া এলাকার অবসরপ্রাপ্ত এক মরহুম শিক্ষকের বসতবাড়ি কেড়ে নিতেও তৎপর হয়ে উঠেছে। ইতোপূর্বে তারা ওই বাড়ির সদস্যদের অনুপস্থিতির সুযোগে একাধিকবার বসতবাড়ি কেড়ে নেয়ার আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হলেও গত বৃহস্পতিবার সর্বশেষ মা কাটা শাহআলমসহ একদল দুর্বৃত্ত অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকের বিধবা স্ত্রীকে পাশবিক কায়দায় গাছের সাথে বেঁধে ব্যাপক মারধর শেষে ভিটের অনেক গাছ-গাছালি নিধন করে দিয়েছে। খবর পেয়ে টেকনাফ থানার নবাগত ওসি ফরহাদ সংঘটিত অপরাধ নিয়ন্ত্রণে তাৎক্ষণিকভাবে হোয়াইক্যং পুলিশ ফাঁড়ির আইসি বখতিয়ারকে নির্দেশ দিলে এএসআই মাহফুজ মুহুর্তেই সঙ্গীয় ফোর্সসহ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ভূমিগ্রাসী সন্ত্রাসীরা দিকবেদিক পালিয়ে গেলেও দুঃসাহসিক এই পুলিশ কর্মকর্তা ঘটনাস্থল থেকে আহত অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকের স্ত্রীকে উদ্ধার এবং কর্তনকৃত গাছ উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এ বিষয়ে ভূক্তভোগী পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতির কথা জানা গেছে। তবে অভিযোগ উঠেছে, মুখোশধারী একটি দালাল চক্র বিষয়টি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জোর প্রচেষ্টায় লিপ্ত ছিল।
আহত স্কুল শিক্ষকের স্ত্রী বেগম বাহার কক্সবাজার থেকে প্রকাশিত দৈনিক কক্সবাজারবাণী সম্পাদক ও দিগন্ত টিভির কক্সবাজারস্থ স্টাফ রিপোর্টার গোলাম আজম খানের মাতা। তিনি অভিযোগ করেন, স্বামী নয়াবাজারের প্রবীণ শিক্ষক মোহাম্মদ ইসহাক খানের মৃত্যুর আগে ৩০/৩৫ বছর ধরে তারা স্বপরিবারে উক্ত জায়গায় অবস্থান করে ফলজ ও বনজ বাগান সৃষ্টি করেন। ২০০৯ সালে উক্ত ভিটে বাড়ির নিজ বসতগৃহে স্বামী মারা যান। এরপর কর্তব্যের খাতিরে ছেলেমেয়েরা কক্সবাজারসহ বিভিন্ন স্থানে থাকলে অভিভাবকহীন এই দৃষ্টিনন্দন বাগানে লুলোপ দৃষ্টি পড়ে একই এলাকার কিছু মুখোশধারী ভূমিগ্রাসীর। ইতোপূর্বে তারা বিভিন্নভাবে এই বাগানবাড়িটি কেড়ে নিতে ব্যাপক তদবির চালিয়েছিল। একসময় অজ্ঞাত কিছু সন্ত্রাসী চাঁদা দাবি করে বলছিল ভিটেবাড়ি ছেড়ে না দিলে পরিণাম ভয়াবহ হবে। এ ব্যাপারে দীর্ঘদিন আগে টেকনাফ থানায় সাধারণ ডায়েরিও করা আছে। সর্বশেষ ভূমিগ্রাসী চক্রটি অনধিকারে বাগানবাড়িতে লুটপাট, বৃক্ষ নিধন, চাঁদা দাবি করে বৃহস্পতিবার আমার উপর জুলুম নির্যাতন চালায়। আমি এ ব্যাপারে উচ্চ পর্যায়ের নিরপেক্ষ তদন্ত পূর্বক সন্ত্রাসীদের দৃষ্টান্ত শাস্তি চাই।
এ ব্যাপারে বৃহস্পতিবার রাতে কক্সবাজারের পুলিশ সুপার সেলিম মোঃ জাহাঙ্গীর জানান, বিষয়টি আমার কানে এসেছে। আমি প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্টদের বলে দিয়েছি। টেকনাফ থানা ওসি ফরহাদ, স্বপন কান্তি নাথ, হোয়াইক্যং পুলিশ ফাঁড়ির আইসি বখতিয়ার ও এএসআই মাহফুজ জানান, অপরাধ সৃষ্টিকারীরা যেই হোক না কেন, প্রয়োজনীয় আইনের আওতায় আসবে।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT