টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

হরতালে দেশজুড়ে জ্বালাও পোড়াও-বৃহস্পতিবার ৮ ঘণ্টা হরতাল ডেকেছে বিএনপি

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বুধবার, ১২ ডিসেম্বর, ২০১২
  • ১৭০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে
undefined

* রোগী নামিয়ে অ্যাম্বুল্যান্স পুড়িয়েছে পিকেটাররা
* বিভিন্ন স্থানে বহু গাড়িতে আগুন
* হরতাল সমর্থকদের ওপর ক্ষমতাসীন দলের হামলা//বিএনপির নেতৃত্বে ১৮ দলীয় জোটের ডাকা গতকাল মঙ্গলবারের হরতালে দেশজুড়ে ব্যাপক ধ্বংসাত্মক কার্যকলাপ চলেছে। পিকেটিংয়ের নামে দুর্বৃত্তরা রাজধানীসহ অনেক স্থানে জ্বালাও-পোড়াও করেছে। এতে সম্পদহানি হয়েছে ব্যাপক। হরতাল ও তা প্রতিরোধের নামে সংঘাতের রাজনীতির কাছে দেশের মানুষ জিম্মি হয়ে পড়ে। স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ব্যাহত হয়। চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয় সাধারণ মানুষকে। আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

ঢাকায় ভাঙচুর, আগুন : বিকেল ৩টার দিকে রাজধানীর বনানী গোলচত্বরে (বাসস্ট্যান্ডের বিপরীতে) একটি বাসে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। বাসটির চালক ইউসুফ আলী কালের কণ্ঠকে জানান, ক্যান্টনমেন্ট মিনি সার্ভিসের (ঢাকা মেট্রো-জ-১৪১৪-২৮-৭৫) গাড়িটি মহাখালীর দিকে যাওয়ার জন্য বনানী ক্রসিং ঘুরছিল। এ সময় মোটরসাইকেলে করে দুই আরোহী পেছন থেকে এসে বাসটিতে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ সময় বাসটিতে কোনো যাত্রী ছিল না। ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি এসে আগুন নেভায়।
বনানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ভূঁইয়া মাহবুব হাসান সাংবাদিকদের জানান, বিকেল সোয়া ৩টার দিকে মোটরসাইকেলে করে এসে দুই যুবক কিছু একটা গাড়িটিতে ছুড়ে মারে এবং আগুন ধরিয়ে দেয়। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, পেট্রল বা এ জাতীয় কোনো পদার্থ দিয়েই আগুন ধরানো হয়েছে।
দুপুর আড়াইটার দিকে মহাখালীর আমতলীতে দুটি এবং বিকেল ৩টার দিকে ওয়্যারলেস গেটে একটি ককটেল বিস্ফোরিত হলে এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। মিরপুর সেকশন-১১ ও সেকশন-১২ এবং গাবতলী ও পল্লবী এলাকায়ও বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর ও কটটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। গাবতলীতে সকালে একটি বাসে ভাঙচুর চালায় হরতালকারীরা। মিরপুর ১ নম্বর সেকশনেও বিআরটিসির একটি বাসে আগুন জ্বালিয়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা।
যাত্রাবাড়ী এলাকায় ভোরে হরতাল সমর্থক মিছিল থেকে কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করে অগ্নিসংযোগের চেষ্টা চলে। এ সময় পুলিশের ধাওয়া খেয়ে পিকেটাররা পালিয়ে যায়। বিকেল ৩টার দিকে শহীদ ফারুক রোড এলাকায় হরতালের সমর্থনে বিএনপি নেতা নবীউল্লাহ নবীর নেতৃত্বে একটি মিছিল বের করলে পুলিশ এসে টিয়ার শেল এবং রাবার বুলেট ছুড়ে মিছিলটি ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এর আগে দুপুর ১টার দিকে দনিয়া কলেজ এলাকায় ২০-২৫ জনের একটি মিছিল বের হলে স্থানীয় ছাত্রলীগ ও যুবলীগের কর্মীরা তাদের ধাওয়া করলে মিছিলকারীরা পিছু হটে। পিকেটারদের হামলায় পুলিশের দুটি গাড়ি ভাঙচুর হয়, এতে তিন পুলিশ সদস্য আহত হন।
পুলিশের রমনা জোনের সহকারী কমিশনার শিবলী নোমান জানান, সকালে রাজধানীর কাকরাইল এলাকায় পিকেটারদের হামলার শিকার হয় খাদ্যসচিবের গাড়ি। সকাল ৮টার দিকে হরতালকারীরা অতর্কিতে হামলা চালিয়ে গাড়িটিতে আগুন দেয়। এ সময় গাড়িতে খাদ্যসচিব মুশফেকা ইকফাত গাড়িতে ছিলেন না। সচিবেকে আনতে গাড়ি নিয়ে তাঁর বাসায় যাচ্ছিলেন চালক। এ ঘটনায় ঘটনাস্থল থেকে দুজনকে আটক করা হয়েছে।
আটক ৪২ : হরতালের সময় বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ও দলের নির্বাহী কমিটির সদস্য জামাল শরীফ হিরু, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মাসুদ খান পারভেজ ও বিএনপি-জামায়াতের নেতা-কর্মীসহ ৪২ জনকে আটক করে পুলিশ। রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে তাদের ধরা হয়। পুলিশ জানায়, দুপুর ১২টার দিকে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ও নির্বাহী কমিটির সদস্য জামাল শরীফ হীরুকে আটক করা হয়। হীরু দলীয় কার্যালয়ে ঢুকতে গেলে পুলিশ তাঁকে আটক করে একটি সাদা মাইক্রোবাসে করে নিয়ে যায়। এর কিছুক্ষণ পর কার্যালয়ের সামনে থেকে বিএনপির আরো চার কর্মী এবং এর কিছুক্ষণ পর বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়ার ব্যক্তিগত সহকারী রনিকে আটক করে পুলিশ।
এ ছাড়া সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে পুলিশের ওপর হামলা ও ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মাসুদ খান পারভেজকে আটক করে পুলিশ। সবুজবাগ থানার মাদারটেক এলাকায় গাড়ি ভাঙচুর করার সময় হরতাল সমর্থনকারী তিনজনকে পুলিশ আটক করে থানায় নিয়ে আসে।
চট্টগ্রামের চিত্র : চট্টগ্রামে গতকাল গাড়ি ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ, গ্রেপ্তার, ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার মধ্য দিয়ে ১৮ দলীয় জোটের হরতাল শেষ হয়েছে। এ সময় পিকেটাররা দুটি গাড়িতে অগ্নিসংযোগসহ অন্তত ১০টি গাড়ি ভাঙচুর করে। পুলিশ নগর বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি আবু সুফিয়ানসহ ১২ জনকে আটক করেছে। এদের মধ্যে আবু সুফিয়ানসহ তিনজনকে কোতোয়ালি থানায় দ্রুত বিচার আইনে দায়ের করা মামলায় আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
সকাল ১০টার দিকে নগরীর বহদ্দারহাট এলাকায় সড়কের পাশে পার্কিং করা একটি বাসে কে বা কারা আগুন ধরিয়ে দেয়। হালিশহর থানার বিশ্বরোডের তাসফিয়া কমিউনিটি সেন্টারের সামনে ‘চট্টলা’ নামক একটি হিউম্যান হলারে আগুন দেয় পিকেটাররা। পরে নগর বিএনপির সহসভাপতি আবু সুফিয়ানকে আটক করে পাঁচলাইশ থানা পুলিশ। সোমবার রাতে গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় দায়ের হওয়া দ্রুত বিচার আইনের একটি মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার দেখায় পুলিশ। ওই মামলায় নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদাতসহ ৬৪ জন নেতা-কর্মীর নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করা হয়।
সীতাকুণ্ডে রাসেল স্মৃতি সংসদ কার্যালয়ে ভাঙচুর চালিয়েছে পিকেটাররা। এ ঘটনায় পুলিশ চার পিকেটারকে গ্রেপ্তার করে। এ ছাড়া সকালে মহাসড়ক রাস্তার মাথায় পিকেটাররা ভলভো পরিবহনের একটি বাসসহ ৮-১০টি গাড়ি ভাঙচুর করে। এ সময় পুলিশ অন্তত ৫০টি রাবার বুলেটসহ বেশ কিছু টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে। ভাটিয়ারীতে পুলিশ ও সরকারদলীয় লোকজনের সঙ্গে পিকেটারদের দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। রাউজানে হরতাল সমর্থকরা চট্টগ্রাম-রাঙামাটি সড়কে এস আলমের একটি গাড়ি ভাঙচুরের পর তাতে আগুন লাগিয়ে দেয়।
অন্যান্য স্থানে জ্বালাও-পোড়াও
বগুড়ায় হরতাল সমর্থকদের সঙ্গে পুলিশ ও হরতালবিরোধীদের সংঘর্ষের সময় ৪৫০টি রাবার বুলেট ও ১০০টি টিয়ার শেল ছোড়ে পুলিশ। এ সময় তিন পুলিশ আহত হয়। আটক করা হয়েছে ১৪ জনকে। ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কে একটি অ্যাম্বুল্যান্সে থাকা রোগী ও তার স্বজনদের নামিয়ে পিকেটাররা সেটি ভাঙচুরের পর আগুন লাগিয়ে দেয়। রেললাইনে পেট্রল বোমা ছুড়ে একটি ট্রেনও আটকে দেয় পিকেটাররা। পুলিশের হাতে আটক পিকেটারদের ওপর হামলা চালায় সরকার সমর্থকরা।
বরিশালের গৌরনদীতে হরতাল সমর্থকরা ভোররাতে একটি অ্যাম্বুল্যান্সসহ ১০টি গাড়ি ভাঙচুর ও একটি ট্রাকে আগুন দেয়। এ সময় ২৮ জন যাত্রী আহত হয়। সাত হরতাল সমর্থককে আটক করেছে পুলিশ। পিরোজপুরে একটি পিকআপ ভ্যানে আগুন দিয়েছে মুখোশধারীরা। ১৩ জন হরতাল সমর্থককে আটক করেছে পুলিশ। আওয়ামী লীগ কর্মীরা উপজেলা বাজারের ছয়টি দোকান ও একটি গুচ্ছগ্রামের ক্লাব ভাঙচুর করে।
পাবনায় গাড়ি ভাঙচুর, সংঘর্ষ ও গুলিবর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। দুপুরে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সমর্থকরা আগ্নেয়াস্ত্র, ধারালো অস্ত্র, লাঠিসোঁটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে কমপক্ষে ৩০ জন আহত হয়। এ সময় ঈশ্বরদীর চারটি ব্যাংকের দরজা-জানালার কাচ ও ইসলামী ব্যাংকের এটিএম বুথে ভাঙচুর চালানো হয়। হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করা হয় পৌর বিএনপির সহসভাপতির বাড়ি ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান। পিকেটাররা সংবাদপত্র বহনকারী দুটি গাড়িসহ ১০টি যানবাহন ভাঙচুর করে।
রাজশাহীতে তিনটি অটোরিকশা ভাঙচুর করেছে পিকেটাররা। আরো দুটি মোটরসাইকেলে আগুন ও একটিতে ভাঙচুর চালায় তারা। এ সময় বিএনপি নেতা-কর্মীদের সঙ্গে পুলিশ ও আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের ত্রিমুখী সংঘর্ষ, ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে পুঠিয়া থানার ওসিসহ অন্তত পাঁচজন আহত হয়েছেন। বাগমারা উপজেলা বিএনপির কার্যালয় ও দোকান ভাঙচুর করেছে হরতালবিরোধীরা।
নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে যাত্রীবাহী একটি বাস ও পাঁচটি ট্রাকে পিকেটাররা আগুন দিয়েছে। হরতাল সমর্থকদের সঙ্গে পুলিশের ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া হয়েছে। শহর ও সিদ্ধিরগঞ্জে সকালে পিকেটাররা কয়েকটি যানবাহন ভাঙচুর করে। পুলিশ শহর বিএনপির সাধারণ সম্পাদকসহ অন্তত ১৫ জনকে আটক করেছে। সিদ্ধিরগঞ্জে পুলিশ প্রহরায় আওয়ামী লীগের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হরতালবিরোধী মিছিল করেছে।
সিরাজগঞ্জে হরতাল সমর্থকরা ১৫টি যাত্রীবাহী বাস ও ট্রাক ভাঙচুর করে। এ সময় পুলিশের রাবার বুলেটে এক ট্রাকচালকসহ পাঁচজন আহত হয়েছে। বিএনপি-জামায়াতের ২৯ নেতা-কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।
লালমনিরহাট পুলিশের সঙ্গে হরতাল সমর্থকদের ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া হয়। পুলিশ ১৭ রাউন্ড টিয়ার শেল ও প্রায় ১৫ রাউন্ড রাবার বুলেট ছোড়ে। দুটি নৈশকোচ ভাঙচুর করা হয়। শিবিরের হামলায় আহত হয় পুলিশের দুই সদস্য। জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান বাবলাসহ ১৫ জন আহত হন। পাঁচজনকে আটক করেছে পুলিশ। দুটি ট্রাকে আগুন দেয় হরতাল সমর্থকরা। তারা বেশ কয়েকটি বাস ও ট্রাক ভাঙচুর করে।
রংপুরে পাঁচটি বাস ভাঙচুর করেছে জামায়াত-শিবিরকর্মীরা। পুলিশ দুই শিবিরকর্মীকে আটক করে। মাদারীপুরে চারটি ইজিবাইক ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করেছে হরতাল সমর্থকরা। এ ঘটনায় দুজনকে আটক করেছে পুলিশ। চাঁপাইনবাবগঞ্জে একটি বাস ভাঙচুর ও একটি মোটরসাইকেলে আগুন দিয়েছে হরতাল সমর্থকরা।
ময়মনসিংহে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় বিএনপির অফিস ভাঙচুর করে হরতালবিরোধীরা। পরিস্থিতি সামাল দিতে গিয়ে পুলিশ সদস্য মজিবুর রহমানের হাতে গুলি লাগে। পিকেটাররা তিনটি টেম্পো ভাঙচুরের পর আগুন লাগিয়ে দেয়। পুলিশ দুজনকে আটক করেছে। এসব ঘটনায় বিএনপি-জামায়াত ও অঙ্গ সংগঠনের দুই হাজার নেতা-কর্মীর নামে মামলা করেছে পুলিশ। ভালুকায় বিএনপির অফিসে ভাঙচুর চালিয়ে আগুন দেয় হরতালবিরোধীরা। ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ায় আহত হয় বেশ কয়েকজন। পুলিশ আটজনকে আটক করেছে। গৌরীপুরে দুজন ইউপি চেয়ারম্যানসহ উপজেলা বিএনপির ৫৯ নেতা-কর্মীর নামে দ্রুতবিচার আইনে থানায় মামলা হয়েছে।
খুলনায় হরতাল সমর্থকরা জিপিও কার্যালয়ে ভাঙচুর চালায়। এ সময় পুলিশ টিয়ার শেল ও রাবার বুলেট ছোড়ে। পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার সময় পিকেটাররা একটি ইজিবাইকে আগুন দেয় এবং পুলিশ বহনকারী একটি মাইক্রোবাস ভাঙচুর করে। পুলিশ ৫০ জনকে আটক করেছে। সাতক্ষীরায় বাস ও ট্রাক ভাঙচুর করে হরতাল সমর্থকরা। এ সময় তিন নেতাকে আটক করেছে পুলিশ।
নোয়াখালীতে হরতাল সমর্থকরা দুটি বাস ও টেম্পো ভাঙচুর করেছে। ১০ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। হরতালবিরোধীরা স্থানীয় বিএনপি কার্যালয়সহ কয়েকটি দোকান ভাংচুর করে। লক্ষ্মীপুরে হরতাল চলাকালে ১০-১২টি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটে।
চাঁদপুরে হরতাল সমর্থকদের সঙ্গে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার পর ২২ জনকে আটক করেছে পুলিশ। বিএনপিকর্মীরা এএসপির গাড়িতে হামলা চালিয়ে আহত করেছে এক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটকে। বেশ কয়েকটি যানবাহন ভাঙচুর করে তারা।
মাগুরায় ১৫০ জনের নামে মামলার পর বিএনপির সাত নেতা-কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। শহরে হরতাল সমর্থকরা ককটেল বিস্ফোরণসহ কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করে। কুড়িগ্রাম ও নাগেশ্বরীতে হরতাল সমর্থকদের সঙ্গে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার পর পুলিশের লাঠিপেটায় ১৩ জন আহত হয়। বিএনপির ছয় কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।
ফেনীতে এসএ পরিবহনের কাভার্ড ভ্যানে আগুন দিয়েছে হরতাল সমর্থকরা। এ ছাড়া দুই শিবিরকর্মীকে কুপিয়ে আহত করেছে সন্ত্রাসীরা। ১১ পিকেটারকে আটক করেছে পুলিশ। কক্সবাজারে যুবদলের সঙ্গে সংঘর্ষে তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। এ সময় ১৭ জনকে আটক করেছে পুলিশ।
কুষ্টিয়ায় ১৬ হরতাল সমর্থককে আটক করেছে পুলিশ। গত সোমবার বিএনপি নেতা-কর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনায় জেলা বিএনপির সভাপতি-সম্পাদকসহ ৪০০ জনের বিরুদ্ধে দুটি মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। ওই মামলায় সাতজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। টাঙ্গাইলে হরতাল চলাকালে বিএনপির সাত নেতা-কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। হরতালবিরোধীদের হামলায় আহত হয়েছে ছাত্রদলের দুই নেতা। মৌলভীবাজারে ছয় হরতাল সমর্থককে আটক করেছে পুলিশ।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT