টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

হরতালের সমর্থনে জেলার বিভিন্ন জায়গায় জামায়াতের পিকেটিং ও মিছিল-সমাবেশ

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বুধবার, ১৪ আগস্ট, ২০১৩
  • ১০৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

অব্যাহত গণগ্রেফতার, জুলুম ও গণনির্যাতনের প্রতিবাদ, গ্রেফতারকৃত নেতা-কর্মীদের মুক্তি ও জামায়াতকে নিষিদ্ধের চক্রান্তের প্রতিবাদে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঘোষিত ১৩ ও ১৪ আগষ্ঠ লাগাতার হরতালের সমর্থনে জেলার বিভিন্ন জায়গায় পিকেটিং ও মিছিল সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা জামায়াতের বিবৃতিঃ অব্যাহত গণগ্রেফতার, জুলুম ও গণনির্যাতনের প্রতিবাদ, গ্রেফতারকৃত নেতা-কর্মীদের মুক্তি ও জামায়াতকে নিষিদ্ধের চক্রান্তের প্রতিবাদে বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ঘোষিত ১৩ ও ১৪ আগষ্ঠ লাগাতার হরতাল সফল করায় জেলাবাসীকে অভিনন্দন জানিয়ে বিবৃতি প্রদান করেছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও কক্সবাজার জেলা আমীর মুহাম্মদ শাহজাহান, নায়েবে আমীর মাওলানা মোস্তাফিজুর রহমান, সেক্রেটারী জি.এম রহিমুল্লাহ, কক্সবাজার শহর আমীর অধ্যাপক আবু তাহের চৌধুরী ও সেক্রেটারী আলহাজ্ব সাইদুল অলম। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকার আজ জামায়াতের সকল গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নিয়েছে। মিছিল, সমাবেশ, হরতাল, পিকেটিং কিছুই করতে দেয়না। রাস্তায় নামলেই পুলিশের লাঠিচার্জ ও গুলি। কথায় কথায় তথাকথিত জামায়াতের নাশকতা ও নৈরজ্যসৃষ্ঠির তথ্য। অথচ সরকারই জামায়াতকে গণতান্ত্রিক কর্মসূচী পালন করতে না দিয়ে সংবিধান লংগন করছে এবং দেশকে নৈরাজ্যের দিকে ঠেলে দিচেছ। নেতৃবৃন্দ চ্যলেন্জ করে বলেন, জামায়াত দেশে সবচেয়ে গনতান্ত্রিক একটি দল। জামায়াতকে নিষিদ্ধ করার জন্য রাষ্ট্রীয় চক্রান্ত চলছে। মুলত দেশ থেকে ইসলামী রাজনীতি নিশ্চিন্ন করাই হচ্ছে তাদের মুল টার্গেট। প্রধান ইসলামী দল হিসাবে জামায়াতের উপর আঘাত প্রথমে এসেছে। অচিরেই সকল ইসলামী দলের উপরও একই আঘাত আসবে। সুতরাং ইসলামপ্রিয় জনতাকে আওয়ামী চক্রান্ত রুখে দেয়ার জন্য এগিয়ে আসতে হবে।

কক্সবাজার শহরঃ জামায়াতে ইসলামী ঘোষিত মঙ্গল ও বুধবারের লাগাতার হরতালের সর্মথনে শহরের প্রধান সড়কে পিকেটিং ও মিছিল-সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

চকরিয়াঃ জামায়াত ঘোষিত দেশব্যাপী লাগাতার হরতালের সমর্থনে চকরিয়ার বিভিন্ন জায়গায় পিকেটিং হয়। খুটাখালী, ডুলাহাজারা, হারবাং ও বরইতলীতে পিকেটিং করে স্থানীয় জামায়াত-শিবিরের নেতা কর্মীরা । উখিয়াঃ  হরতালের সর্মথনে উখিয়ার কলেজ গেইট ও থাইনখালীতে পিকেটিং করে জামায়াত-শিবির। পেকুয়াঃ দেশব্যাপী হরতালের অংশ হিসাবে পেকুয়ার বাজারের পূর্বপাশে প্রধান সড়ক, বাগগুজারা ও টৈইটংএ পিকেটিং করা হয়।  সদর উপজেলা জামায়াতের বিবৃতিঃ জামায়াতে ইসলামী আহুত ৪৮ ঘন্টার হরতালের প্রথম দিনে কক্সবাজারের খরুলিয়াতে গাড়ি চাপায় হামিদলু হকের মুত্যুতে শোক ও সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি প্রদান করেছেন বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর কক্সবাজার সদর উপজেলা আমীর মাওলানা শফিউল হক জিহাদী ও সেক্রেটারী মোস্তাক আহমদ। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, জামায়াতে ইসলামী আহুত দেশব্যাপী হরতাল কক্সবাজারে শান্তিপূর্ণভাবে চলছিল। কিন্তু মংগলবার সন্ধায় খরুলিয়া এলাকায় একটি জীপগাড়ি অপর একটি মাইক্রোবাসকে ওভারটেক করতে গিয়ে র্দূঘটনায় পতিত হয়। এতে ঘঠনাস্থলেই হামিদুল হক মারা যায় এবং অনেকেই আহত হয়। এদিকে রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের জন্য কোন কোন মহল এটিকে পিকেটারের হামলা হিসাবে চিত্রায়িত করার অপচেষ্ঠা করছে। অথচ সেই সময় ঘটনাস্থলে জামায়াত-শিবিরের কোন পিকেটিং বা মিছিল সমাবেশ ছিলনা। আমরা নিহত হামিদুল হকের রুহের মাগফিরাত কামনা এবং পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি। যারা আহত হয়েছেন তাদের জন্য মহান আল্লাহ তায়ালার কাছে আশু সুস্থতা কামনা করছি। বিষয়টি নিয়ে অপরাজনীতি না করার জন্যও নেতৃবৃন্দ সংশ্লিষ্ঠ সকলের প্রতি আহবান জানান

 

 

আবু হেনা মোস্তফা কামাল প্রচার সেক্রেটারী বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী কক্সবাজার জেলা।

 

 

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT