টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

সেনাবাহিনী দিয়ে টেকসই বেড়িবাঁধ নির্মাণের দাবী

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ২৬ আগস্ট, ২০১২
  • ১৪৪ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

আমান উল্লাহ আমান, টেকনাফ…শাহপরীরদ্বীপ। এক সময়ের বানিজ্যখ্যাত জনপদ। দেশের সর্ব দক্ষিন উপজেলা টেকনাফে শাহপরীরদ্বীপ অবস্থিত। শাহপরীরদ্বীপের পূর্বে নাফ নদী, দক্ষিণ ও পশ্চিমে বঙ্গোপসাগর এবং উত্তরে সমতল ভূমি। এক সময় শাহপরীরদ্বীপ মূল ভূখন্ড থেকে বিচ্ছিন্ন ছিল। শাহপরীরদ্বীপের উত্তর-পূর্ব ও পশ্চিমে ভরারখাল নামে একটি খাল ছিল। এ খাল দিয়ে সাগর ও নাফনদীর পানি চলাচল এবং ভারী নৌযান যাতায়াত করত। তৎকালীন পাকিস্তান সরকারের ফিল্ড মার্শাল মোহাম্মদ আইউব খাঁন এর আমলে শাহপরীরদ্বীপকে মূলভূখন্ডের সাথে সম্পৃক্ত করার লক্ষ্যে ভরার খালের উভয় মূখে নাফনদী ও সাগরে মজবুত বেড়ীবাঁধ নির্মাণ করে এবং এখালের মধ্যখানে মাটি ভরাট করে ভূখন্ডের সাথে সড়ক সংযোগ স্থাপন করার পর থেকে শাহপরীরদ্বীপ মূল ভূখন্ডের সাথে মিলে গিয়েছিল। বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর তৎকালীন বিএনপি সরকারের আমলে টেকনাফ থেকে শাহপরীরদ্বীপের বাজারপাড়া পর্যন্ত প্রায় ১৩ কিলোমিটার সড়ক কাপের্টিং এর আওতায় নিয়ে আসেন এবং টেকনাফ টু শাহপরীরদ্বীপ যাত্রীবাহী বাসসহ প্রতিদিন অটোরিক্সা(সিএনজি), মাইক্রোবাস, প্রাইভেটগাড়ী ও ট্রাক যাতায়াত করে আসছে। এছাড়া শাহপরীরদ্বীপ একটি সম্ভাবনাময় আকর্ষনীয় পর্যটন স্পট এবং এখান থেকে সেন্টমার্টিন দ্বীপের দুরত্ব মাত্র ১৩ কিলোমিটার। মৎস্য ও লবণ সম্পদের জন্য বিখ্যাত হচ্ছে শাহপরীরদ্বীপ। এখানকার অধিবাসীরা অধিকাংশ মৎস্যজীবি এবং প্রবাসী। এক সময় শাহপরীরদ্বীপের বদর মোকাম ছিল মিয়ানমারের আকিয়াবের সাথে ব্যবসা বাণিজ্যের কেন্দ্র বিন্দু। বর্তমানে বদর মোকামটি নাফনদী ও সাগর গর্ভে চলে গেছে। এ বর্ষা মৌসুমে পশ্চিম পাড়ার মসজিদসহ কয়েকটি ঘর-বাড়ী ইতিমধ্যে সাগর গিলে খেয়েছে। এ পর্যন্ত সরকার বেড়ীবাঁধের ভাঙ্গন ঠেকাতে কোন প্রকার উদ্যোগ গ্রহন করেনি। ফলে বেড়ীবাঁধ ভেঙ্গে সাগরের পানি লোকালয়ে ঢুকে পড়েছে। টেকনাফ টু শাহপরীরদ্বীপ সড়কটি সাগরের পানিতে ভেঙ্গে চুরমার করে ফেলে। সড়কের টিক মধ্যখান থেকে পানির তোড়ে ভেঙ্গে যায়। ফলে টেকনাফের সাথে সড়ক যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে হয়ে পড়ে শাহপরীরদ্বীপ এবং বিচ্ছিন্ন হয় দেশের মূল ভূ-খন্ড থেকেও। মানুষ সাঁকো ও নৌকা দিয়ে এপার-ওপার যাতায়াত করছে। এতে প্রচুর ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। বিশেষ করে শিশু, মহিলা, বৃদ্ধ ও রোগীদের বেশীর ভাগ সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। এছাড়া দোকানীদের মালামাল বহন করা কষ্ঠ হয়ে উঠেছে। যাতায়াত খরছ বেশী হওয়ায় মালামালের দামও বৃদ্ধি করেছে ব্যবসায়ীরা। জনপদে জোয়ার-ভাটা, সড়ক পথে নৌকায় চলাচল, রোগ-বালাইয়ে চিকিৎসা না পাওয়াসহ খেয়ে না খেয়ে আধমরা জীবন নিয়ে চরম কষ্টে সময় পার করছে মানুষ। বছরের খুশির দিন ঈদেও তাদের ঘরে আনন্দ ছিলনা। টেকনাফ উপজেলার শাহপরীরদ্বীপের দুর্গত এরকম হাজারো মানুষের দুর্বিসহ জীবনের অবসান হবে কবে-এখন সেই প্রশ্নের জবাব খুঁজছে দ্বীপের বাসিন্দারা। কেননা লোক দেখানো বাঁধ নির্মাণ এবং অনিয়ম-দূর্নীতিতে ভরা পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রতি তাদের আস্থা নেই। উপকূলবাসীকে রক্ষায় সেনাবাহিনী দিয়ে টেকসই বেড়িবাঁধ নির্মাণের দাবী জানিয়েছেন স্থানীয়রা। যদি দ্রুত সরকার কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহন না করে তাহলে শাহপরীরদ্বীপ সাগরের বুকে চলে যাবে এমন ধারনা সংশ্লিষ্টমহলের। স্থানীয় সাংসদ আলহাজ্ব আবদুর রহমান বদি একজন সরকার দলীয় সাংসদ হওয়া সত্ত্বেও এখনো পর্যন্ত সাগরের গ্রাস থেকে দেশের ভূ-খন্ডকে বাঁচাতে কোন প্রকার উদ্যোগ গ্রহন না করায় দ্বীপবাসীসহ টেকনাফের জনগন তাঁর প্রতি ফুঁসে উঠেছে। দ্বীপবাসীকে পানিতে ভাসিয়ে এ মূহুর্তে তিঁিন দুবাই সফর করায় উখিয়া-টেকনাফে নানান মুখরোচক আলোচনা চলছে। এদিকে দ্বীপকে বাাঁচাতে স্থানীয়দের উদ্যোগে বেড়ীবাঁধ নির্মাণ করতে দেখা গেছে। তবে তা চেষ্টা মাত্র। দ্বীপকে বাাঁচাতে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার জন্য সরকারের উর্ধ্বতন মহলের প্রতি জোর দাবী জানান শাহপরীরদ্বীপবাসী। পাশাপাশি সেনাবাহিনীকে দিয়ে বেড়ীবাঁধ নির্মান করা হলে টেকসই ও দূর্নিতীমূক্ত ভাবে বলে আশা প্রকাশ করেন ভূক্তভোগী দ্বীপবাসী।

আমান উল্লাহ আমান

টেকনাফ

০১৮১৫০৭৯৬৮১

২৬/০৮/২০১২ ইং।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT