হটলাইন

01787-652629

E-mail: teknafnews@gmail.com

সর্বশেষ সংবাদ

প্রচ্ছদস্বাস্থ্য

সাবধান! শিরায় মাদক নিলেই এইডস

দেশে এইডসে আক্রান্তদের শনাক্ত করার সংখ্যা বেড়েছে। গত এক বছরে এইচআইভি আক্রান্ত ৮৬৯ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। একই সময় ১৪৮ জনের মৃত্যু ঘটেছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের জাতীয় এইডস-এসটিডি কন্ট্রোলের তথ্যানুযায়ী, বর্তমানে বাংলাদেশে এইডসে আক্রান্তের হার সাধারণ মানুষের মধ্যে ০.০১ শতাংশ। তবে শিরায় মাদক গ্রহণকারীদের ক্ষেত্রে এই হার ৩.৯ শতাংশ। অর্থাৎ দেশে শিরায় মাদক গ্রহণকারীদের মধ্যে এইডস আক্রান্তের হার বেশি। পাশাপাশি দেশে এই রোগে আক্রান্তদের উল্লেখযোগ্য সংখ্যক বিদেশ ফেরত।

এইডস-এসটিডি কন্ট্রোল শাখার কর্মকর্তা এসএম আখতারুজ্জামান জানান, ১৯৮৯ সালে বাংলাদেশে প্রথম এইডস রোগী শনাক্ত করা হয়। এর পর থেকে এই রোগে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে চলছে। গত বছর ৮৬৯ এইডস রোগীকে শনাক্ত করা হয়েছে। এর আগের বছর ২০১৭ সালে ৮৬৫, ২০১৬ সালে ৫৭৩, ২০১৫ সালে ৪৬৯ এবং ২০১৪ সালে ৪৩৩ জনকে শনাক্ত করা হয়েছিল। এর মধ্যে ১ হাজার ৭২ জনের মৃত্যু হয়েছে। জাতিসংঘের এইডস-বিষয়ক সংস্থার হিসাব অনুযায়ী বাংলাদেশে এই রোগে আক্রান্তের সংখ্যা বর্তমানে ১৩ হাজার হওয়ার কথা। সেখানে আক্রান্ত হিসেবে ৬ হাজার ৪৫৫ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। বাকিরা এখনো শনাক্তের বাইরে রয়েছে।

এইডস-এসটিডি কন্ট্রোল শাখার তথ্যমতে, ২১০৮ সালে নতুন করে এইডসে আক্রান্ত ৬৮১ বাংলাদেশি এবং ১৮৮ রোহিঙ্গাসহ মোট ৮৬৯ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে বিদেশ থেকে আসা ১৬৮ জনও আছেন। শনাক্ত হওয়া বাংলাদেশিদের মধ্যে ৪৮৪ জন পুরুষ, ১৮৯ জন নারী ও ৮ জন তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ রয়েছেন। অর্থাৎ এইডসে আক্রান্তদের মধ্যে ৭১ শতাংশ পুরুষ, ২৮ শতাংশ নারী এবং ১ শতাংশ তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ। এর মধ্যে ৪৮৫ জন বাংলাদেশি ও ১৮০ জন রোহিঙ্গা চিকিৎসার আওতায় এসেছেন। একই সময় এইডসে আক্রান্ত ১৪৮ জন মারা গেছেন।

এইডস-এসটিডি কন্ট্রোল শাখার একজন কর্মকর্তা বলেছেন, সাধারণত ১৯ থেকে ২৪ বছর বয়সীদের মধ্যে এই রোগ বেশি সংক্রমিত হয়। কিন্তু আমাদের দেশে ২৫ থেকে ৪৯ বছর বয়সীদের মধ্যে এই রোগ বেশি সংক্রমিত হচ্ছে। গত বছর ১৯ থেকে ২৪ বছর বয়সীদের মধ্যে এর সংক্রমণের হার ৭.৩৪ শতাংশ। আর ২৫ থেকে ৪৯ বছর বয়সীদের মধ্যে এর হার ৭৭.৩৯ শতাংশ। ২০১৮ সালে এইডস সংক্রমিত ৬৮১ জনের মধ্যে পাঁচ বছর বছর বয়সী ১৬, ছয় থেকে নয় বছরের ৫, ১০ থেকে ১৮ বছরের ১৬, ১৯ থেকে ২৪ বছরের ৫০, ২৫ থেকে ৪৯ বছরের ৫২৭ এবং ৫০ বছরের বেশি বয়সী ৬৭ জন রয়েছেন। একই সূত্র বলছে, ২০১৮ সালে যেসব এইডস আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে, তাদের অধিকাংশই বিবাহিত। পরিসংখ্যান বলছে, এসব রোগীর মধ্যে ৪৮১ জন বিবাহিত, ১৩৬ জন অবিবাহিত, বিবাহবিচ্ছেদকারী ৭ জন, আলাদা বসবাসকারী ১৬ জন, বিধবা ২৫ জন এবং অন্যান্য ১৪ জন রয়েছে।

Leave a Response

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.