টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

সাগর পথে মালয়েশিয়ায় পাড়ি দিয়ে অকালেই ঝরে যাচ্ছে শত শত জীবন

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই, ২০১৩
  • ৯২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

top_37492013-07-09_137-300x187তাহেরা আক্তার মিলি,টেকনাফ:::::থেমে নেই সাগর পথে মালয়েশিয়ায় মানব পাচার। প্রতিদিনই  উপকূলের কোন না কোন জায়গা থেকে পরিবার পরিজনকে নিয়ে বাঁচার তাগিদে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সাগর পথে মালয়েশিয়ায় পাড়ি জমাচ্ছে নিরীহ লোকজন। অধিক লাভের আশায় পাড়ি দিতে গিয়ে অকালেই ঝরে যাচ্ছে শত শত জীবন। টাকা লোভী শক্তিশালী একাধিক পাচারকারী সিন্ডিকেট এর সাথে জড়িত থাকলেও ক্ষেত্র বিশেষে এর সাথে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পরোক্ষ ও প্রত্যক্ষ সহযোগিতার অভিযোগ উঠেছে। তবে পাচারকালে প্রতিদিন শত শত মানুষ ধরাও পড়ছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে। জেলা পুলিশের মতে বিস্তীর্ণ উপকূলে পাহারা বসিয়ে পাচারকারী এবং মালয়েশিয়াগামীদের ধরতে পুলিশ হিমশিম খাচ্ছে। যারা ধরা পড়ছে তারাও আইনের ফাঁক-ফোকরে ছাড়া পেয়ে যাচ্ছে। ফলে সাগর পথে মালয়েশিয়া পাচার কাজ বন্ধ হচ্ছে না। দালাল চক্র সিন্ডিকেট সারাদেশে তাদের জাল বিস্তার করে ধোকা দিয়ে অভাবী মানুষগুলোকে মালয়েশিয়ার স্বপ্ন দেখিয়ে সাগরে ডুবিয়ে মারলেও পার পেয়ে যাচ্ছে তারা। অনুসন্ধানে দেখে গেছে, গত এক বছরে সাগর পথে মালয়েশিয়াগামী সহ¯্রাধিক মানুষ ধরা পড়েছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে। সারা বছর ছোট ছোট গ্রুপ ধরা পড়ার ঘটনাতো আছেই। গত ১০ জুলাই সেন্টমার্টিন এলাকায় কোস্ট গার্ডের হাতে মায়ানমারের মাঝি-মাল্লাসহ ধরা পড়েছে ২১০ জনের একটি বড় গ্রুপ। যে সব মালয়েশিয়াগামী আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে ধরা পড়েছে তাদের হিসাব থাকলেও দালালদের খপ্পরে পড়ে সাগরে যারা প্রাণ হারিয়েছে তাদের কোন হিসাব নেই। অনেকের মতে এর সংখ্যা হাজার হাজার হতে পারে। আইনের চোখ ফাঁকি দিয়ে মালয়েশিয়া পাচারের বেশক’টি শক্তিশালী সিন্ডিকেট গড়ে উঠেছে জেলা সদর কক্সবাজার, উখিয়া, টেকনাফ, টেকনাফের নয়াপাড়া ও উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির কেন্দ্রিক। এই সিন্ডেকেট দীর্ঘদিন ধরে সাগর পথে মালয়েশিয়ায় মানব পাচার করে আসলেও এরা ধরা ছোঁয়ার বাইরে রয়ে যাচ্ছে বরাবরই। বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, মালয়েশিয়া পাচারকারী দালাল সিন্ডিকেট জন প্রতি ১ থেকে দেড় লাখ টাকা নিয়ে উপকূলের নির্জন স্থান থেকে সাগর পথে কাঠের বোট দিয়ে থাইল্যান্ড সীমান্তে পাঠায়। মালয়েশিয়াগামীদের প্রবাসী আত্মীয় স্বজনদের নিকট থেকে দালাল চক্র বিভিন্ন মাধ্যমে সহজেই টাকা পেয়ে যায় বলেও অনুসন্ধানে জানা গেছে। সিন্ডিকেট সদস্যদের মাধ্যমে মালয়েশিয়া পাঠাবার নামে উত্তাল সাগরে পাঠানো হয় নড়েবড়ে বোট দিয়ে। যেগুলো সাগর পাড়ি দেয়ার উপযোগী নয়। এজন্যই অধিকাংশ দুর্ঘটনা ঘটে থাকে। অনেক সময় এই সিন্ডিকেট সদস্যরা তাদের থাইল্যান্ড ভিত্তিক সিন্ডিকেট সদস্যদের মাধ্যমে এপারের লোকজনকে থাইল্যান্ড সীমান্তে আটকে রেখে মারধর করে মুক্তিপণ আদায় করে। এসব সিন্ডেকেট দীর্ঘদিন ধরে মালয়েশিয়ায় মানব পাচার করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়ার পাশাপাশি মালয়েশিয়া যাত্রী শত শত মানুষকে সাগরে ডুবিয়ে মারলেও তাদের কোন বিচার হচ্ছে না। তারা রয়েছে ধরা ছোঁয়ার বাইরে। এ বিষয়ে কক্সবাজার জেলা পুলিশের ২য় কর্ণধার এডিশনাল এসপি বাবুল আক্তারের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, বিস্তীর্ণ উপকূলীয় এলাকায় সার্বক্ষণিক নজরদারি অনেক কঠিন ব্যাপার। তার পরেও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে প্রায় সময় পাচারকারী ও মালয়েশিয়াগামীরা ধরা পড়ছে। কিন্তু আইনের ফাঁক-ফোকরে তারা ছাড়া পেয়ে যাচ্ছে। এতে উৎসাহিত হচ্ছে দালালরা। তিনি আরো বলেন, দালালরা ভুল প্রচারণা দিয়ে দেশব্যাপি পাচারের নেট গড়ে তুলেছে। এর বিরুদ্ধে জাতীয় ভিত্তিতে প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক প্রচার মাধ্যমে প্রচারণার প্রয়োজনীয়তার কথাও তিনি বলেন। এছাড়াও স্থানীয়ভাবে জনসচেতনতা সৃষ্টির কথাও তিনি বলেন।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT