হটলাইন

01787-652629

E-mail: teknafnews@gmail.com

সর্বশেষ সংবাদ

প্রচ্ছদবিনোদন

শেষ মুহুর্তে কেনাকাটায় সরগরম ঈদ বাজার

নুরুল আমিন হেলালী ::: শহরে মার্কেট গুলোতে শেষ মুহুর্তে জমে ওঠেছে ঈদের কেনাকাটা। ঈদ মানে খুশি, ঈদ মানে আনন্দ। ঈদকে সামনে রেখে শুরু হয়েছে কেনাকাটার ধুম। বাড়তি চাহিদার কারণে দোকানীরাও বাহারি পোশাকে পসরা সাজিয়েছেন নানা রঙে, নানা ঢঙে। শেষ মূহুর্তে পছন্দের পোশাক কিনতে বিপনী কেন্দ্রে ঢুঁ মারছেন বিভিন্ন বয়সের নারী-পুরুষ। অন্যদিকে আগে ভাগে বর্ণিল সাজে সাজিয়েছে সবকটি বিপনী কেন্দ্র । পর্যটন নগরী খ্যাত এ জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের অনেক পরিবারের সদস্য থাকেন প্রবাসে। একদিকে প্রাকৃতিক সম্পদে ভরপুর অন্যদিকে প্রবাসে থাকা লোকজন, তাই তুলনামূলক সচ্ছল বলেও পরিচিত কক্সবাজার জেলার মানুষ। তাই বছর ঘুরে রমজান আসলে জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের অনেক পরিবারও জমানো টাকা নিয়ে ঈদের কেনাকাটা করতে ছুটে আসেন শহরের অভিজাত মার্কেটগুলোতে। আকর্ষনীয় পোশাকের সংগ্রহও রয়েছে মার্কেটের প্রতিটি দোকানে। গতকাল সরজমিনে দেখা গেছে প্রত্যেক শপিংমলে ক্রেতাদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মত। ঈদের এই প্রতিযোগিতামূলক বাজারে ব্যবসায়ীরাও চোখ ধাধানো আলোক সজ্জা করে সাজিয়েছেন নিজের বিপনী বিতান। মার্কেটগুলোর অধিকাংশ দোকান রয়েছে দেশী-বিদেশী কাপড়ের সমারোহ। কথায় আছে মেঘের কোলে রোদ হেসেছে, তেমনি ঈদের পরিবারের সদস্যেদের মুখে হাসি ফুটাতে অনেকেই এসেছেন ঈদের নতুন জামা কিনতে। দেখা গেছে সব মার্কেটের প্রবেশ মুখে ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে বাহারি ডিজাইনের সাজ সজ্জাও করা হয়েছে। এ. ছালাম মার্কেটের ব্যবসায়ি মোঃ শফিক জানান রোজার শুরুতে বৃষ্টি থাকায় ব্যবসা মন্দ ছিল। তবে কয়েকদিনের সুন্দর আবহাওয়ার কারণে বিক্রি অনেকাংশে বেড়েছে। যদি বৃষ্টি না থাকে তবে এই দুইদিন কেনাকাটা আরও বাড়বে বলে মন্তব্য করেন তিনি। অন্যদিকে ক্রেতাদের অভিযোগ গতবারের চেয়ে এবারে কাপড়সহ অন্যান্য নিত্য পণ্যের দাম বেশী। কুতুবদিয়া সরকারী হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স মর্জিনা আক্তার নি¤িœ জানান, ছুটির দিন এবং রোদ থাকায় পরিবারের সদস্যদের নিয়ে পছন্দের কাপড় ছোপড় কিনতে এসেছি। তবে সময় কম থাকায় কাপড়ের দাম বেশী চাইছে ব্যবসায়ীরা। অনেক দোকানে বিক্রয় মূল্যের চেয়ে ৩/৪ গুণ বেশী দাম চেয়েছে বলে অভিযোগ তাঁর। পছন্দের জিনিস কিনতে গিয়ে প্রতিনিয়ত ঠকছেন ক্রেতারা। শহরের অভিজাত মার্কেটগুলোর মধ্যে সী-কুইন, ইডেন গার্ডেন, নিউ মার্কেট, ফজল মার্কেট, হাজেরা শপিং মল, আবু সেন্টার, কোরাল-রীফ পাজা, এ. ছালাম মার্কেট, পৌর সুপার মার্কেট, বার্মিজ মার্কেটসহ বিভিন্ন বিপনী বিতানে ঈদ উপলক্ষে দেশী-বিদেশী পণ্যের সমাহার চোখে পড়ার মত।

Leave a Response

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.