টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
রোহিঙ্গারা কন্যাশিশুদের বোঝা মনে করে অধিকতর বন্যার ঝূঁকিপূর্ণ জেলা হচ্ছে কক্সবাজার টেকনাফে মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে ৩০ পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার জমি ও ঘর হস্তান্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান-মেম্বারদের দায়িত্ব নিয়ে ডিসিদের চিঠি আগামীকাল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন (তালিকা) বাংলাদেশ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান টেকনাফ উপজেলা কমিটি গঠিত: সভাপতি, সালাম: সা: সম্পাদক: ইসমাইল আজ বিশ্ব শরণার্থী দিবস মিয়ানমারে ফেরা নিয়ে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় রোহিঙ্গারা ব্যাটারিচালিত রিকশা-ভ্যান বন্ধের সিদ্ধান্ত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ হাসিনা যতদিন আছে, ততদিন ক্ষমতায় আছি: হানিফ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা সবচেয়ে বড় ভুল : ডা. জাফরুল্লাহ

শাহপরীরদ্বীপে ৬০ হাজার ইয়াবা ভাগভাটোয়ারা করলেও রহস্যজনক নিশ্চুপ প্রশাসন

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : সোমবার, ১৪ অক্টোবর, ২০১৩
  • ৮৮ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, টেকনাফ:::::yeaba2 ৬০ হাজার পিস ইয়াবা হজম করলেন শাহপরীরদ্বীপের চৌকিদার থেকে প্রভাবশালী কর্তা ব্যক্তিরা। ইয়াবা আমদানী কারকদের কয়েক দফা আটকে রেখে  প্রভাবশালীরা ইয়াবার চালান ও নগদ টাকা ভাগভাটোয়ারা করলেও রহস্যজনক নিশ্চুপ রয়েছে প্রশাসন। এঘটনাটি কতিপয় পুলিশ-বিজিবির কর্মকর্তাদের নজরে থাকলেও একটি মহলের কারসাজিতে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়া হয়েছে বলে জানা যায়। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত ২ অক্টোবর বূধবার সকালে কোস্টগার্ডের তাড়া খেয়ে একটি ইয়াবা পাচারে জড়িত অলি আহমদের মালিকানাধীন ফিশিং ট্রলার ঘোলার চরে ভিড়ে। ট্রলার মাঝি লেইট্টা ৬০ হাজার পিস ইয়াবা হতে ৩০ হাজার পিস ইয়াবা মালিক অলি আহমদের জিম্মায় রেখে সটকে পড়ে। এঘটনা জানাজানি হলে শাহপরীরদ্বীপ এলাকার বিভিন্ন প্রভাশালী কর্তা ব্যক্তি ও কতিপয় প্রশাসনিক ব্যক্তি অলি আহমদের উপর হামলে পড়ে। ঐদিন রাতে প্রথম দফায় টেকনাফ থানার এএসআই আরিফ অলি আহমদকে আটক করে। পরে ২ ল টাকায় রফাদফা করে স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা রশিদ আহমদ ও বাক্কু চৌকিদার। এপ্রসংগে টেকনাফ মডেল থানার এএসআই আরিফ বলেন, এসংক্রান্ত খবর পেয়ে অলি আহমদকে শাহপরীরদ্বীপে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল মাত্র। তিনি টাকার বিনিময়ে রফদফার কথা মিথ্যা বলে জানায়। শাহপরীরদ্বীপ বিওপির বিজিবি কমান্ডার তোতা মিয়া জানান, বিষয়টি জেনে একবার অলি আহমদকে ডেকে খোঁজ খবর নেয়া হয়েছে। এব্যাপারে আরও খোঁজ খবর নেয়া হচ্ছে। টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ ফরহাদ জানান, বিভিন্ন মাধ্যমে এসংক্রান্ত খবর কানে পৌঁছেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এব্যাপারে সাবরাং ইউপি চেয়ারম্যান হামিদুর রহমানের কাছে জানতে চাইলে এধরনের খবর তার কানে পৌঁছলেও বিষয়টি নিয়ে তিনি কথা বলতে চাননি।  শাহপরীরদ্বীপের একটি সুত্র দাবী করেছে ঘোলা পাড়ার লেইট্টা মাঝি, কবির আহমদ (কবিরা মামা), অলি আহমদ, মনু সমশু, নুরুল আমিনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে থলের বিড়াল বেরিয়ে আসবে। অপর একটি বিশ্বস্থ সুত্রে জানা গেছে, এখনও আওয়ামীলীগ নেতা রশিদ আহমদের হাতে ১০ হাজার ও কবিরা মামার হাতে ২২ শত পিস ইয়াবা এখনও অবিক্রিত রয়েছে। বিষয়টি এলাকার সর্বত্র ওপেন সিক্রেট হলেও রহস্যজনক কারনে প্রশাসনিক নিরবতাকে ভিন্ন চোখে দেখছেন সচেতন মহল। ###

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT