টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

লোডশেডিংয়ে অতিষ্ট টেকনাফবাসী..২৪ ঘন্টার মধ্যে ১৮ ঘন্টাই বিদ্যুৎ থাকে না

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ৩ অক্টোবর, ২০১৩
  • ১২৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

,,,,,,,,,,জেড করিম জিয়া:…..ঘন ঘন লোড শেডিং এর কারনে অতিষ্ট হয়ে উঠেছে টেকনাফ উপজেলাবাসী। ২৪ ঘন্টার মধ্যে ১৮ ঘন্টাই থাকে না বিদ্যুৎ গুরুত্বপূর্ণ এই উপজেলায়। সরকার বিভিন্ন পদ্ধতিতে বিদ্যুতের দাম বাড়িয়েও ঠিকমতো সরবরাহ না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করছেন ভূক্তভোগীরা। বিদ্যুতের মাত্রাতিরিক্ত লোড শেডিং-এ ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে সাধারণ শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে সরকারী বিভিন্ন প্রতিষ্টান ও ব্যবসায়ীরা।
জানা যায়, গত মাসের শুরু থেকেই উপজেলা জুড়ে চলছে এই মারাত্বক লোড শেডিং। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে এ বিষয়ে বার বার অভিযোগ জানানো হলে ও কোন সমাধান দিতে পারছেনা।
সরেজমিনে দেখা যায়, এ উপজেলায় ৭/৮টি হ্যাচারী, বরফ মিল, বিভিন্ন কলকারখানা,  বিজিবি  রাইফেলস ব্যাটালিয়ন,  মডেল থানা,  স্থল বন্দর,  বাস টার্মিনাল, ট্রানজিট ঘাট, সেন্টমার্টিন ঘাট, বার্মিজ মার্কেট ও সরকারী বেসরকারী প্রতিষ্ঠান, বড় বড় হোটেল মোটেল সহ গুরুত্বপূর্ণ অনেক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। অথচ গত মাস দেড়েক আগে থেকে এ উপজেলায় দৈনিক দুই ঘন্টাও বিদ্যুৎ পাচ্ছেনা এখানকার মানুষ ও প্রতিষ্ঠান গুলো।
দেখা গেছে, প্রায় দেড় মাস ধরে দৈনিক ৭০-৮০ বার বিদ্যুতের আসা যাওয়া করে যাচ্ছে। এখাবে অতিরিক্ত লোড শেডিং যেন টেকনাফে নিত্যনিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে। এতে মানুষের টিভি, ফ্রিজ, মোবাইল সেট, বাল্ব ও বিভিন্ন ইলেট্রনিক্স সামগ্রী নষ্ট হওয়া অব্যাহত রয়েছে। এছাড়া এ উপজেলায় সীমান্ত এলাকায় ৫/৬ টি বিজিবি ক্যাম্প রয়েছে। বিশেষ করে সন্ধ্যার পরে অতিরিক্ত লোড শেডিং হলে অন্ধকারে চোরাকারবারীদের সীমান্ত এলাকায় দৌরাতœ বেড়ে যায়।
সারাদেশের ন্যায় সামনে পিএসসি, জেএসসি-জেডিসি ও নির্বাচনী পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছে উপজেলার শিক্ষার্থীরা, দিনে রাত্রে ঘন ঘন লোড শেডিংয়ের কারনে তারা ঠিকমত পড়াশুনায় মনোযোগ দিতে পারছে না। এই সময়ে অত্যাধিক লোড শেডিং দেখা দেয়ায় চিন্তিত এসব পরিক্ষার্থীরা। পাশাপাশি লোড শেডিং এর কারনে ক্লাসেও তারা ঠিকমতো মনোযোগ দিতে পারছেনা ।
ছেলে মেয়েদের পরিক্ষার জন্য অবিভাবকগণ দারুন ভাবে চিন্তিত হয়ে পড়েছেন,  ভালোভাবে পড়াশুনা করতে না পারায় আগামী বার্ষিক পরিক্ষার জন্য উদ্বিগ্ন তারা। এই লোড শেডিংয়ের অতিষ্ট তারা, তাই দ্রুত সমাধান কামনা করছেন।
অন্যদিকে ঘন ঘন লোড শেডিং এর কারনে জমিতে ঠিকমতো সেচ দিতে না পেরে চরম বিপাকে পড়েছে স্থানীয় চাষিরা।  কৃষকদের সাথে কথা বলে জানা যায় , দিনে রাতে- বেশির ভাগ সময় বিদ্যুৎ থাকে না। যখন বিদ্যুৎ আসে তখন এক সাথে অনেক জন পানির লাইন দেয়ায় সেচ দিতে অনেক সময় লাগে আবার যদি বিদ্যুৎ চলে যায় তখন তাও শুকিয়ে যায়। ফলে সমস্ত জমিতে সেচের পানি পৌছাতে অনেক কষ্ট হচ্ছে। চাহিদা মতো পানি না পাওয়ায় ধান চাষে দারুন ভাবে লোকসানের আশংক্ষা করছেন চাষিরা।
এদিকে স্থানীয়রা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, অবিলম্বে পল্লী বিদ্যুতের ভেল্কিবাজি বা লোডশেডিং তৎপরতা বন্ধ না করলে কর্তৃপক্ষ যে কোন সময় জনরোষের কবলে পড়ে হামলার শিকার হতে পারে বলে আশংকা প্রকাশ করছেন তারা।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT