হটলাইন

01787-652629

E-mail: teknafnews@gmail.com

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয়প্রচ্ছদ

রাঙামাটির বাঘাইছড়িতে গুলিতে  নির্বাচনী কর্মকর্তাসহ নিহত ৬ আহত ১১ 

টেকনাফ নিউজ ডেস্ক:: ভোট শেষে সরঞ্জাম নিয়ে যাওয়ার পথে রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলায় গুলিতে এক নির্বাচনী কর্মকর্তাসহ অন্তত ছয়জন নিহত হয়েছেন। আহত হন আরও অন্তত ১১ জন।

সোমবার বাঘাইছড়ি-দিঘিনালা সড়কের নয় মাইল এলাকায় এ হামলা হয় বলে বাঘাইছড়ি থানার ওসি মঞ্জুরুল আলম জানান।

বাঘাইছড়ির ইউএনও নাদিম সারওয়ার জানান, চিকিৎসক ছয় জনের মৃত্যুর তথ্য দিয়েছেন।

এরা হলেন আমির হোসেন, মন্টু চাকমা, মিহির কান্তি দত্ত, আল আমিন, বিলকিস আক্তার ও জাহানারা বেগম।

আহত ১১ জনকে স্থানীয় হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে। তাদের নেওয়ার জন্য হেলিকপ্টার আনা হচ্ছে বলে ইউএনও জানান।

ওসি বলেন, বাঘাইছড়ির একটি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ শেষে নির্বাচনী সরঞ্জাম নিয়ে প্রিসাইডিং কর্মকর্তাসহ অন্যরা উপজেলা সদরে যাচ্ছিলেন।

“পথে নয় মাইল এলাকায় তাদের উপর গুলি চালায় অজ্ঞাত বন্দুকধারী।”

এ ব্যাপারে নির্বাচন কমিশন সচিব হেলাল উদ্দিন আহমদ বলেন, “আমরা অন্তত পাঁচজনের মৃত্যু ও ১১ জনের আহতের খবর জেনেছি।”

আহতদের দ্রুত চিকিৎসা সেবা দিতে হেলিকপ্টার পাঠানো হয়েছে। তাদের ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) আনা হবে বলে তিনি জানান।

চার প্রার্থীর ভোট বর্জন, হুঁশিয়ারি

এর আগে অনিয়মের অভিযোগ তুলে বাঘাইছড়ি উপজেলায় চার প্রার্থী নির্বচান বর্জনের ঘোষণা দিয়ে পরিণতির জন্য প্রশাসনকে হুঁশিয়ার করেছিলেন।

এরা হলেন চেয়ারম্যান প্রার্থী বড়ঋষি চাকমা, তিন ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী সুমিতা চাকমা, সমীরণ চাকমা ও অমরশান্তি চাকমা।

সোমবার সংবাদপত্রে পাঠানো এই চারজনের স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গতরাতে উলুছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, খেদারমারা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাঘাইহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, করেঙ্গাতলি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ বেশ কয়েকটি কেন্দ্রে প্রশাসন, আইনশৃংখলা ও নিরাপত্তাবাহিনীর সহযোগিতায় সংস্কারপন্থি সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী সুদর্শন চাকমার ‘সন্ত্রাসীরা’ ব্যালট বক্সে ব্যাপক ব্যালট ভরে রাখে।

তারা অনতিবিলম্বে বাঘাইছড়ি উপজেলা পরিষদের ভোটগ্রহণ স্থগিত করে পুনরায় অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবি জানিয়েছেন।

একইসঙ্গে ‘কেন্দ্র দখল করে নজিরবিহীন ভোট ডাকাতির’ নির্বাচন বাতিল করা না হলে বাঘাইছড়ি উপজেলায় যেকোনো অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতির জন্য নির্বাচন কমিশন ও সরকারই দায়ী থাকবে বলে হুঁশিয়ার করেছেন।

এই চারজন সন্তু লারমা নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির সমর্থনে নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছিলেন।

Leave a Response

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.