টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

রাঙামাটিতে গণধর্ষণের শিকার পর্যটক

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ৬ অক্টোবর, ২০১৩
  • ১৪৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

8179181794_edc6bb696d_17736_0রাঙামাটিতে বেড়াতে আসা পর্যটক দম্পতি আবাসিক হোটেলের রুমে অবস্থান কালে গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন। বৃহস্পতিবার রাতে শহরের আবাসিক হোটেল পাহাড়িকায় এ ঘটনা ঘটে।

পর্যটক দম্পতি অভিযোগ করে বলেন, “বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে রাঙামাটি শহরের এলাকায় আবাসিক হোটেল পাহাড়িকার ম্যানেজার আশিষ ওরফে আশু জরুরি কথা আছে বলে রুমের দরজায় ধাক্কাতে থাকে। রুমের দরজা খুললে দেখতে পাই হোটেল ম্যানেজারের সাথে আরো ছয়জন যুবক। তারা জোর করে আমাদের রুমে প্রবেশ করে আমাকে আর আমার স্ত্রীকে ঘিরে ধরে ফেলে। কিছু বুঝে ওঠার আগেই হোটেল ম্যানেজার আশু লোহার হাতুরি দিয়ে আমার মাথার পেছন দিকে সজোরে আঘাত করে।”

তিনি আরো বলেন, “ম্যানেজার আশু, হোটেল বয় আনোয়ার ও সিএনজি চালক নাছিরসহ আরো তিনজন আমাকে টেনে হিচড়ে রুম থেকে বের করে হোটেলের ছাদে নিয়ে যায়। তারপর ছাদের পানি ট্যাংকের ভেতরে ঢোকানোর চেষ্ঠা করে। পানির ট্যাংকের ভেতরে ঢোকাতে ব্যর্থ হলে ওরা আমাকে এলোপাতারি কিলঘুষি মারতে থাকে। এক পর্যায়ে তাদের আঘাতে আমি অজ্ঞান হয়ে য়াই। এসময় আমার স্ত্রীকে পাহাড়িকা হোটেলের দ্বিতীয় তলার একটি রুমে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ করে।”

রাঙামাটি কোতয়ালী থানার এসআই আশরাফুল ইসলাম ও এসআই নেপাল জানান, আমরা খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে যাই এবং অভিযুক্তদের মধ্য থেকে একজনকে আটক করতে সক্ষম হই।

রাঙামাটি পুলিশ বিভাগের এএসপি সার্কেল মনিরুজ্জামান বলেন, “এই রকম একটি ঘটনা অত্যন্ত ন্যাক্কারজনক। অনাকাঙ্খিত এই ঘটনায় সংশ্লিষ্ট অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারে পুলিশের বেশ ক’জন অফিসার কাজ করছে।”

ঘটনাটি সঠিক ও সুষ্ট তদন্ত করে অভিযুক্তদের সর্বোচ্চ শাস্তি প্রদানে পুলিশের পক্ষ থেকে যা যা করনীয় তার সবটুকুই করা হবে বলেও জানান জেলা পুলিশের এই কর্মকর্তা।

গুরুতর আহত স্বামী লিটন ও তার স্ত্রীকে রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে বলে থানা সূত্র জানায়।


Share this:

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT