হটলাইন

01787-652629

E-mail: teknafnews@gmail.com

সর্বশেষ সংবাদ

ক্রীড়া

মেসি-নেইমার একসঙ্গে

দুজন ডিফেন্ডারকে বোঁকা বানিয়ে সামনে নেইমারের দিকে বল বাড়ালেন লিওনেল মেসি। ডি বক্সের ভিতরে থাকা নেইমারের মাপা শটে পরাস্থ গোলরক্ষক। এগিয়ে গেল বার্সেলোনা! এমন দৃশ্যটা বিশ্বের সকল ফুটবল সমর্থকের কাছে স্বপ্নের মতো। স্বপ্নের প্রদীপে আবারো আশার আলো জ্বালালেন বার্সা এবং ব্রাজিল জাতীয় ফুটবল দলের তারকা ফুটবলার দানি আলভেজ। এই রাইট ব্যাক স্বপ্ন দেখছেন, খুব শীঘ্রই সময়ের অন্যতম দুই বড় তারকাকে বার্সায় দেখা যাবে।

ইউরোপের প্রায় সব বড় দলগুলোরই চোখ এখন ব্রাজিলের নেইমারের দিকে। ইতিমধ্যেই ২০ বছর বয়সী এই তারকা ফরোয়ার্ডের সাথে যোগাযোগ করেছে বিশ্বের নামীদামী সব ক্লাবগুলো। এদের মধ্যে আছে বার্সেলোনা, রিয়াল মাদ্রিদ, চেলসি, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, জুভেন্টাসের মত দলগুলো। স্যান্তোস জানিয়েছে ২০১৪ সালের ব্রাজিল বিশ্বকাপ পর্যন্ত দল বদলের কোন সম্ভাবনাই নেই নেইমারের। তবে আলভেজ আশা করছেন এর আগেই নেইমারকে দলে নিতে পারবে কাতালানরা। সংবাদমাধ্যমকে আলভেজ বলেন, ‘আশা করছি কিছুদিনের মধ্যেই নেইমারের ব্যাপারটার সফল সমাপ্তি ঘটবে। আর এর ফলে সবাই সন্তুষ্ট থাকবেন বলেই আমার ধারণা।’ তিনি আরো বলেন, ‘মেসি এবং নেইমারকে একসাথে বার্সেলোনা দলে দেখার জন্য আমি মুখিয়ে আছি। কাতালানদের জন্য নেইমার দারুন মানানসই হবে। বিশ্বসেরা দুই স্ট্রাইকারকে একসাথে খেলানোর ব্যাপারে বার্সেলোনা খুবই আগ্রহী।’ গত মৌসুমেই বার্সেলোনার কোচের দায়িত্ব ছাড়েন সাবেক কোচ পেপ গার্দিওলা। নতুন কোচ টিটো ভিলানোভার বার্সেলোনার ধারা বজায় রেখেছেন বলে জানিয়েয়েছেন আলভেজ। দলে বড় কোন পরিবর্তন না আনা এই কোচের প্রশংসা করে তিনি বলেন, ’গার্দিওলা একজন দক্ষ কোচকেই দায়িত্ব বুঝিয়ে দিয়েছেন। প্রথমে সবাই খানিকটা বিচলিত ছিল। কারণ, নতুন কোচের ধ্যান-ধারনার সাথে সবাই একমত নাও হতে পারে। তবে এটা আনন্দের যে কিছুতেই কোন পরিবর্তন আনা হয়নি।’ গতবার স্পেনের আরেক অভিজাত ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদের কাছে লা লিগার শিরোপা হারানো বার্সেলোনার লা লিগায় সূচনাটা ছিল এককথায় দুর্দান্ত। প্রথম পাঁচটি ম্যাচের পাঁচটিতেই জয় নিয়ে মাঠ ছেড়েছে কোচ টিটো ভিলানোভার দল। পয়েন্ট তালিকাতেও শীর্ষেই আছে তারা।

জাতীয় দলের হয়ে এখন পর্যন্ত ২৩ ম্যাচে ১৩ গোল করে ইতিমধ্যেই নিজের প্রতিভার স্বাক্ষর রেখেছেন নেইমার। অন্যদিকে আর্জেন্টিনার হয়ে ৭৩ ম্যাচে ২৮ গোল করেছেন মেসি। তাই জাতীয় দলের হয়ে গোল করার মাত্রা অনুপাত করলে এগিয়ে থাকবেন নেইমারই। স্যান্তোসের হয়ে ৯৮টি ম্যাচে ৪৮ টি গোল করেন নেইমার। অন্যদিকে স্প্যানিশ ক্লাব বার্সার হয়ে মেসির গোলসংখ্যা ২১৯ ম্যাচে ১৭৫টি।

Leave a Response

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.