টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
মডেল মসজিদগুলোয় যোগ্য আলেম নিয়োগের পরামর্শ র্যাবের জালে ধরা পড়লেন টেকনাফ সাংবাদিক ফোরামের সদস্য ও ইয়াবা কারবারি বিপুল পরিমাণ টাকা ও ইয়াবা উদ্ধার রোহিঙ্গাদের তথ্য মিয়ানমারে পাচার করছে জাতিসংঘ: এইচআরডব্লিউ প্রশাসনে তিন লাখ ৮০ হাজার পদ শূন্য গোদারবিলের জামালিদা ও নাইট্যংপাড়ার ফয়েজ ইয়াবা ও নগদ টাকাসহ গ্রেপ্তার পরীমনির কান্না অথবা নিখোঁজ ইসলামি বক্তা এসএসসি-এইচএসসির পরীক্ষার সিদ্ধান্ত পরিস্থিতি দেখে : শিক্ষামন্ত্রী টেকনাফে পাহাড় ধ্বসে ৩৩ জনের মর্মান্তিক মৃত্যুর ট্রাজেডি আজ পড়ে আছে বিলাসবহুল বাড়ি,নেই দাবিদার শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ লম্বাবিলে বাস—সিএনজির মুখোমুখী সংঘর্ষে রোহিঙ্গাসহ ২ জন নিহত

মিয়ানমার থেকে চোরাইপথে আসছে গবাদি পশু : সরকার হারাচ্ছে রাজস্ব

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
  • ১০০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক ::::কোরবানের ঈদকে সামনে রেখে কক্সবাজারের উখিয়া-টেকনাফ সীমান্তের বিভিন্ন পয়েন্ট দিয়ে মিয়ানমার থেকে চোরাই পথে গরু, ছাগল আসা শুরু হয়েছে বলে একাধিক সূত্রে জানা গেছে। এসব গবাদি পশু গোপন লেনদেনের মাধ্যমে সরাসরি উখিয়ার মরিচ্যা, কক্সবাজার সদর, রামু সহ বিভিন্ন এলাকার হাটবাজারে চলে যাওয়ার কারণে এ খাতে টোল বা রাজস্ব আদায় করতে পারছে না সরকার। স্থানীয় বেশ ক’টি শক্তিশালী সিন্ডিকেট এসব ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করার কারণে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা শত চেষ্টা করেও তা প্রতিরোধ করতে পারছেনা বলে অভিযোগ উঠেছে। তবে বিজিবি চোরাচালান প্রতিরোধে সীমান্তে   সচেতনতা মূলক সুধী-সমাবেশ অব্যাহত রেখেছে।
অনুসন্ধানে জানা গেছে, চোরাই পথে গবাদি পশু যাতে পাচার না হয় এ ল্েয বিগত ২০০৪ সালে উখিয়া উপজেলা সংলগ্ন নাই্যংছড়ির ঘুমধুম ইউনিয়নের উখিয়ার ঘাট, বালুখালী, কাস্টমস্ কর্তৃপরে নিয়ন্ত্রণে একটি করিডোর স্থাপন করা হয়। এসময় মিয়ানমার থেকে করিডোরটি দিয়ে শত শত গরু, ছাগল আমদানি হয়ে আসছিল। সরকারও বিপুল পরিমাণ রাজস্ব আদায় করতে সম হয়। প্রথম দফায় মিয়ানমার থেকে গবাদি পশু আমদানিতে প্রায় তিন লাখ টাকার রাজস্ব আদায় হয়। এভাবে পরবর্তী তিন মাসে তিন দফা গবাদি পশু আমদানি করে বালুখালী কাস্টমস প্রায় এগার লাখ টাকার রাজস্ব আদায় করে। কিন্তু র্দূভাগ্য কয়েক মাস করিডোর সচল থাকলেও করিডোরের সাথে সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীদের কারসাজি ও অসহযোগিতার কারণে করিডোরটি আলোর মুখ দেখেনি।
সূত্র জানায়, স্থানীয় চোরাকারবারিরা অসাধু উপায়ে গবাদি পশুর ব্যবসায় বেশি লাভজনক হওয়ার কারণে করিডোর দিয়ে আসা গরু ক্রয় করতে অনমনীয়তা প্রকাশ করলে করিডোরে আসা গরু, ছাগল অবিক্রিত থেকে যায়। বার বার লোকসান দেওয়ার কারণে সরকার ৫ মাসের মাথায় বালুখালী করিডোরের কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়। সেই থেকে চোরাচালানীরা চোরাই পথে মিয়ানমার থেকে গরু ছাগল পাচার করে নিয়ে আসা অব্যাহত রাখে। প্রতিবছরই কোরবানের ঈদকে সামনে রেখে এসব পাচারকারী চক্র তৎপর হয়ে উঠে।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT