হটলাইন

01787-652629

E-mail: teknafnews@gmail.com

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয়প্রচ্ছদ

মাশরাফি ভালো নেই

টেকনাফ নিউজ ডেস্ক ==

বাংলাদেশ-পাকিস্তানের ম্যাচটি প্রদর্শনীমূলকই। নেহায়েত বাধ্য হয়ে খেলবে দুদল। বাংলাদেশ যদি টসে জিতে ব্যাটিংয়ে যায়, তা হলেই বিদায় ঘণ্টা বেজে যাবে পাকিস্তানের। নিউজিল্যান্ড চলে যাবে সেমিফাইনালে। পাকিস্তান যদি ব্যাটিংয়ে যায় তা হলেও আশা নেই। একটি সম্ভাবনা এমন-পাকিস্তান ৩৫০ রান করে বাংলাদেশকে ৩১১ রানে হারাতে হবে! এমন সব উদ্ভট পরিসংখ্যানে বোঝা যায় পাকিস্তানও মূলত বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে গেছে। ফলে বোঝাই যাচ্ছে দুদলই মান রক্ষার ম্যাচে খেলবে। বাংলাদেশ আজ লাল জার্সি পরে খেলতে পারে।

এমন এক ম্যাচে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে অধিনায়ক মাশরাফি। হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটে তিনি আজ নাও খেলতে পারেন বলে গুঞ্জন রয়েছে। বড় প্রশ্ন আরও আছে। এটিই তার শেষ বিশ্বকাপ। শেষ ওয়ানডে ম্যাচও কি? মাশরাফি কাল অনুশীলনেও নামেননি। ড্রেসিংরুমে ছিলেন। কিছু ভালো লাগছে না বলেই আসেননি! আসলেই ভালো নেই ক্যাপ্টেন! বাংলাদেশ এই বিশ্বকাপে সাত ম্যাচ খেলেছে। এর মধ্যে তিনটি জয় ও চারটিতে হার। ব্রিস্টলে শ্রীলংকার ম্যাচটি বৃষ্টিতে পণ্ড হয়ে গেছে। ফলে ৮ ম্যাচে বাংলাদেশের অর্জন ৭ পয়েন্ট। ভারতের ম্যাচটিতে হেরে যাওয়ায় বিশ্বকাপ শেষ হয়ে যায় মাশরাফিদের। ভারতের কাছে হারের পর হতাশার জন্ম নেয় দলে।

বাংলাদেশের বিশ্বকাপ ইতিহাসে সেরা দলটি সেমিফাইনালে যেতে ব্যর্থ হয়েছে। মাশরাফি সাত ম্যাচে ১ উইকেট পেয়েছেন। সে জন্য একগাদা কথা শুনতে হয়েছে। সাকিব আল হাসান ছাড়া কারও পারফরম্যান্স মনমতো হয়নি। অবশ্য পুরো বিশ্বকাপে ইনজুরি নিয়ে খেলেছেন মাশরাফি। বাংলাদেশের ক্রিকেটকে কাঁধে করে এগিয়ে দিয়েছেন। আজ বিদায়বেলায় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থেকে সর্বত্র মানুষের মুখ ফিরিয়ে নেওয়াটা মানতে পারছেন না। অবশ্য লড়াইটা তার একার। ২০০৯ থেকে ইনজুরির সঙ্গে লড়াই করেছেন। যতদিন পেরেছেন দলকে দিয়েছেন।

পৃথিবীর প্রতিটি খেলোয়াড়কে এটি শুনতে হয়। সাকিব আল হাসানেরও মন খারাপ। মাশরাফি না খেললে আজ অধিনায়ক কে হবেন? সব মিলিয়ে বিশ্বকাপে একটি ধাঁধার শেষ হতে যাচ্ছে। মাশরাফি না খেললে রুবেলই একাদশে প্রবেশ করতে পারেন। কোচ স্টিভ রোডস তো বলেই দিয়েছেন, ‘আবু জায়েদ রাহী পরিশ্রমী খেলোয়াড়। তবে সে তো ম্যাচে নেই। সে জন্য হয়তো আমরা এত আত্মবিশ্বাসী নই।’

বিশ্বকাপে বাংলাদেশ একবারই পাকিস্তানের সঙ্গে খেলেছে। আর সেটি ১৯৯৯ সালে। সে ম্যাচে বাংলাদেশ ৬২ রানে জিতেছিল। আজ আরও একবার পাকিস্তান খেলবে বাংলাদেশের সঙ্গে। জয়-পরাজয়ের প্রসঙ্গ বড় নয়। শুধু খেলা নয়, বাংলাদেশ কোনো কিছুতেই পাকিস্তানের কাছে হারতে চাইবে না। ভারতের সঙ্গেও একই ইনটেনসিটি ছিল টাইগারদের। বাংলাদেশে শুধু মাশরাফি নন, পাকিস্তানের শোয়েব মালিক, মোহাম্মদ হাফিজেরও শেষ বিশ্বকাপ এটি। বিশ্বকাপ শেষ হচ্ছে, আর বিদায়ের গান শোনা ভেসে আসছে। বাংলাদেশ দল গতকাল অনুশীলন করতে আসে সকালে।

মুশফিক একটু ফুটবল খেলে নেটে চলে যান ব্যাটিংয়ে। ব্যাটিংয়ে গিয়ে চোটও পান। অবশ্য আজ তিনি খেলবেন। মাশরাফি ছাড়া প্রায় সবাই অনুশীলন করেছেন। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের সমস্যা অনেকটাই কমে গেছে। কাল নেটে ব্যাট করেছেন। আজ তিনি খেলতে পারেন এমন সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। আজ মাশরাফি না খেললে সেটি দুর্ভাগ্যজনক হবে। পুরো বাংলাদেশ চায়, মাশরাফি বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচ খেলবে, মাথা উঁচু করে দেশে ফিরবে।

Leave a Response

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.