হটলাইন

01787-652629

E-mail: teknafnews@gmail.com

সর্বশেষ সংবাদ

টেকনাফপ্রচ্ছদ

মালয়েশিয়া যাওয়ার প্রস্ততিকালে টেকনাফ-উখিয়ায় ৩১ রোহিঙ্গা আটক

 

হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, টেকনাফ … পুলিশ টেকনাফ ও উখিয়ার উপকুলীয় এলাকা থেকে অভিযান চালিয়ে মালয়েশিয়া যাওয়ার প্রস্ততিকালে ৩১ জন নারী-পুরুষ-শিশুকে আটক করেছে। এরা সকলেই মিয়ানমার নাগরিক রোহিঙ্গা। তবে উভয় অভিযানে কোন দালাল আটক হয়নি। উদ্ধারকৃত রোহিঙ্গাদের স্ব-স্ব ক্যাম্পে ফেরৎ পাঠানো হয়েছে।
জানা যায়, মানব পাচারকারী দালাল চক্রের সহযোগীতায় অবৈধ ভাবে সাগরপথে মালয়েশিয়া পাড়ি দেওয়ার জন্য বেশ কয়েকজন নারী-পুরুষ বাহারছড়া মেরিন ড্রাইভ উপকুলীয় এলাকায় সমবেত হওয়ার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বাহারছড়া এলাকার দায়িত্বে নিয়োজিত পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা ৮ জন মালয়েশীয়াগামীকে আটক করতে সক্ষম হয়। এদের মধ্য ৬ জন নারী এবং ২ জন পুরুষ। ১২ মে রাত ১০ টার দিকে বাহারছড়ার ডেইলপাড়া মেরিন ড্রাইভ সংলগ্ন এলাকা থেকে এই ৮জন রোহিঙ্গাকে আটক করা হয়।
টেকনাফ বাহারছড়া পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বরত কর্মকর্তা মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘অবৈধভাবে বাহারছড়া সমুদ্র উপকূল দিয়ে মালয়েশিয়া যাত্রার প্রস্ততি নিচ্ছিল বেশ কয়েকজন রোহিঙ্গা। আমরা গোপন সংবাদ পেয়ে অভিযান পরিচালনা করে ৬ জন নারী এবং ২ পুরুষকে আটক করতে সক্ষম হই। এরা সবাই রোহিঙ্গা। তারা দালাল চক্রের সহযোগীতায় সাগরপথে মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য সমবেত হয়েছিল’।
এদিকে উখিয়ার উপকূলীয় ইনানী পুলিশ ফাঁড়ির সদস্যরা অভিযান চালিয়ে মালয়েশিয়া যাওয়ার প্রস্ততিকালে নারী পুরুষ ও শিশুসহ ২৩ জন রোহিঙ্গাকে আটক করেছে। সোমবার ১৩ মে ভোর রাতে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের ইনানী বড় খাল এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। এদেরকে দুপুরে উখিয়া থানায় সোর্পদ্দ করা হয়।
জানা গেছে, উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্প ভিক্তিক কিছু দালাল সৃষ্টি হয়েছে। তাদের নেতৃত্বে ক্যাম্প অভ্যন্তরে নানান প্রলোভন দিয়ে নারী, পুরুষ ও শিশুদের সংগ্রহ করছে। কারন বেশির ভাগ রোহিঙ্গাদের হাতে কোন টাকা পয়সা থাকেনা। তারা অভাব অনটন কাটাতে অবৈধ ভাবে মালয়েশিয়ায় যেতে ইচ্ছুক। অল্প টাকায় বিদেশ যেতে পারেন। এসব দালালদের সাথে কিছু সংখ্যক মাঝি জড়িত। তাদের আশ্রয় পশ্রয়ে এসব দালাল ক্যাম্প এলাকায় ঘুরে বেড়ান। আটককৃতরা রোহিঙ্গারা হলেন, টেকনাফ উপজেলার শাপলাপুর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের আবদুস সালামের মেয়ে হাজেরা খাতুন (১৮), কালামিয়ার মেয়ে নেছারুন্নাহার (১৯), আবদুস সালামের মেয়ে মদিনা (১৪), উখিয়ার থাইনখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পের সলিম উল্লাহর মেয়ে হাসিনা বেগম (১৫), আবদুল আমিনের মেয়ে রফিকা বেগম (১৪), হাকিম পাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের মোহাম্মদ রফিকের মেয়ে রোকেয়া বেগম (১৫), মোহাম্মদ রফিকের মেয়ে সেতারা বেগম (১৯), উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের কলিম উল্লাহ মেয়ে হুমায়ারা বেগম (১৬), উখিয়ার কুতুপালং লম্বাশিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের রহমত উল্লাহ মেয়ে শামশুন্নাহার (১৬), জামতলী ক্যাম্পের রশিদ আহমদের ছেলে হাফিজুর রহমান (২০), উখিয়ার বালুখালি রোহিঙ্গা ক্যাম্পের রহমত উল্লাহ ছেলে সালামত উল্লাহ (১৬), মৃত দ্বীন মোহাম্মদের ছেলে রেজুয়ান আহমদ (৯), মৃত দ্বীন মোহাম্মদের স্ত্রী জমিলা খাতুন (২৯), কবির আহমদের মেয়ে রাসমিন আকতার (১৫), সেন্টু আলমের ছেলে মোহাম্মদ রশিদ (১০), সৈয়দ আমিনের মেয়ে ইয়াছমিন আকতার (১৬), সৈয়দ আমিনের মেয়ে তাহমিনা আকতার (১৮), কালা মিয়ার মেয়ে আকলিমা (৬), কালা মিয়ার ছেলে আয়াস উদ্দিন (৫), কালা মিয়ার স্ত্রী ফাতেমা (২৫), রশিদ আহমদের মেয়ে কাউসার বিবি (১৭), আজিজুল হকের মেয়ে উম্মে হাবিবাা (১৫) ও এনায়েত উল্লাহর মেয়ে সাবেকুন্নাহার (১৫)।
ইনানী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ উপ-পরিদর্শক সিদ্ধাদ বলেন, ‘স্থানীয়দের সহযোগিতায় ইনানী বড় খাল এলাকা থেকে মালয়েশিয়া যাওয়ার প্রস্ততিকালে ২৩ রোহিঙ্গাকে আটক করি’। উখিয়া থানার ওসি আবুল খায়ের বলেন, ‘আটককৃত রোহিঙ্গাদের নিজ নিজ ক্যাম্পে ফেরত পাঠানো হয়েছে’। ##

Leave a Response

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.