টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

মহেশখালীতে কবরস্থান দখলকে কেন্দ্র করে দু’গ্রুপের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের শঙ্কা-জনতার বিক্ষোভ

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট, ২০১৩
  • ১০৯ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

এম রমজান আলী মহেশখালী (ককসবাজার) ২০ আগষ্ট
ককসবাজারের মহেশখালীতে কবরস্থান দখলকে কেন্দ্র করে দু’গ্রুপের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের শঙ্কা সাধারন জনগনের বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভা। প্রাপ্ত তথ্যমতে, বড় মহেশখালীর ফকিরাঘোনা বটতলাস্থ যাত্রী চাউনীর পূর্ব ও পশ্চিমের দু’ কবরস্থানের জমি দখলে নিতে ফকিরাঘোনা এলাকার এম আবুল কাশেম গং ও মিয়াজি পাড়া এলাকার রিদুয়ান গং এ দু’ গ্রুপের মাঝে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের শঙ্কা দেখা দিয়েছে। এবং বিষয়টি নিয়ে এলাকায় উত্তেজনা বিরাজের খবর প্রশাসন পর্ষন্ত গড়ালে তৎক্ষনাত উপজেলা নির্বাহী অফিসার আনোয়ারুল নাসের ঘটনাস্থল ও বিরোধীয় জমি পরিদর্শন করেন এবং উভয় পক্ষকে ডেকে কোন ধরণের সংঘাতের দিকে না গিয়ে কবরস্থানের জমিতে কোন প্রকার বাধা বিঘœ সৃষ্টি না করার জন্য নির্দেশ দিলে ও তার নির্দেশ উপেক্ষা করে আবুল কাশেম গং কবরস্থানের চতুর পার্শ্বে  টেংরা দিয়ে ঘিরে জায়গা দখলে নিয়ে আছে। দু’ কবরস্থানে চিরশায়িতদের জীবিত আত্বীয় স্বজনেরা দখল উচ্ছেদ ও প্রশাসনের জ্ঞাতার্থে সম্প্রতি বটতলী স্থানে দফায় দফায় বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সভা করেছে। সভায় বক্তব্য রাখেন বড় মহেশখালী ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি বশির আহমদ, ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক জাফর আলম, নুরুল ইসলাম কোং,  হাফেজ অহিদুল আলম (সাংবাদিক), আওয়ামীলীগ নেতা আমির হোসেন হেলালী, সাবেক মেম্বার উলা মিয়া, সাহেব মিয়া প্রকাশ সাহফু, যুবনেতা আব্দুর রহিম, আবদুল আজিজ কোং, বশরত আলী, নজির আহমদ, সিরাজ মিয়া, নুরুল আমিন, নুরুল আজম ভুট্টু, মৌঃ মনজুর, মোঃ হোসেন, জিয়াউল হোসেন, নুরুল হাশেম, ইয়াছিন আরফাত, সেলিম সহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও এলাকার সর্বস্থরের জনগন। সভায় বক্তারা বলেন, অবিলম্বে ভুমিগ্রাসী ও খোদারদ্রোহী কর্তৃক কবরস্থান দখল ছেড়ে দিতে হবে নচেৎ আমরা এলাকার সর্বস্থরের জনগনকে সাথে নিয়ে কঠোর কর্মসুচী দিতে বাধ্য হব।
মহেশখালীতে বর্ষার শেষ বৃষ্টিতে নি¤œাঞ্চল প্লাবিত
এম রমজান আলী মহেশখালী (ককসবাজার) ২০ আগষ্ট
ককসবাজারের মহেশখালীতে টানা কয়েক দিনের বৃষ্টিতে নি¤œাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। পৌরসভার- চরপাড়া, ঘোনারপাড়া, সী-বীচ,বড় মহেশখালীর- আমতলী, মগরীয়া কাঠা, সিপাহীর পাড়া, সাত ঘরিয়া পাড়া, ফকিরা ঘোনা, মুহুরির ডেইল, মাহারা পাড়া, মুন্সীর ডেইল, ছোট মহেশখালীর- ঠাকুর তলা,তেলী পাড়া, পাপড়া ও মৌ পাড়া, সোনা পাড়া, মুদির ছড়া, উম্বনিয়া পাড়া, উত্তর ও দক্ষিণ কুল,কুতুবজোমের-ঘটিভাঙ্গা,সোনাদিয়া, তাজিয়া কাটা, নয়া পাড়া, কামিতার পাড়া, চান্দা কাটা, মগ কাটা, মেহেরিয়া পাড়া, হোয়ানকের- ছন খোলা পাড়া, ডেইল্য ঘোনা, হরিয়ার ছড়া, পদ্ম পুকুর পাড়া, হামিদুর রহমান পাড়া, পুইছড়া, বড় ছড়া, পানির ছড়া, বারঘর পাড়া, কালারমারছড়ার- চালিয়াতলী, দরগাহ ঘোনা, ইউনুছ খালী, উত্তর সরদার ঘোনা, নয়া পাড়া, চামিরা ঘোনা, মধুখালী পাড়া, নুনাছড়ি, ছড়ার লামা, মিজির পাড়া, শাপলাপুরে- বারিয়া পাড়া, দিনেশ পুর, ঘাট পাড়া, ষাইটমারা, মাতারবাড়ীর- ওয়াপদার পাড়া, বানিয়া কাটা ও জেলে পাড়া, উত্তর রাজঘাট, মন হাজারী পাড়া, সাইট পাড়া, দক্ষিণ মিয়াজী পাড়া, নয়া পাড়া, মাঝের ডেইল, তিতা মাঝির পাড়া, হংস মিয়াজীর পাড়া, সাইরার ডেইল, মগ ডেইল, ধলঘাটার- উত্তর মুহুরীঘোনা, পানিরছড়া, বনজামির ঘোনা, উত্তর সুতরিয়া পাড়া, সরই তলা, নাপিত পাড়া, পন্ডিতের ডেইল, বেগুন ধনিয়া, সিকদার পাড়া, আমতলী, হামিদ খালী, সাপমারার ডেইল এলাকার প্রায় সহ জায়গায় পানি কানাই কানাই যার দরুন ক্ষতি হচ্ছে অসংখ্য বাড়ী ঘর ও ফসলি জমি, পানের বরজ,চিংড়ী ঘের। এমনকি মসজিদ, গীর্জা, মন্দিরেও পানি ঢুকে পড়েছে। যার দরুন ধর্মীয় ইবাদত করতেও ব্যাঘাৎ ঘটেছে ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেও পানি ঢুকে পড়েছে। ছাত্র-ছাত্রীদের লেখা পড়ার চরম ব্যাঘাত ঘটেছে বলে জানা যায়। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আনোয়ারুল নাছের জানান, বিভিন্ন নিচু এলাকায় প্লাবিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।
০১৮৪০২২৬০৭১/০১৭৪৯৩৪৬৮০১

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT