টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

বিশ্বব্যাংকের ৩২৮০ কোটি টাকা উপকূলে বরাদ্দের চূড়ান্ত অনুমোদন মঙ্গলবার

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : সোমবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
  • ১৩৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

উপকূলীয় অঞ্চলের উন্নয়নের জন্য ৩ হাজার ২৮০ কোটি টাকা দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক। কোস্টাল ইমব্যাংকমেন্ট ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্ট ফেইস-১ (সিইআইপি) শীর্ষক প্রকল্পের মাধ্যমে এ টাকা দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক।

মঙ্গলবার শেরেবাংলা নগরস্থ পরিকল্পনা কমিশনে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) সভায় প্রকল্পটি চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হবে বলে জানা গেছে।

প্রকল্পের আওতায় খুলনা জেলায় ৬টি, সাতক্ষীরায় ২টি, বাগেরহাটে ৩টি, পিরোজপুরে ১টি, বরগুনায় ২টি এবং পটুয়াখালী জেলায় ৩টি ছাড়াও মোট ১৭টি পোল্ডার নির্মাণ করা হবে।

এ প্রকল্পের আওতায় নির্ধারিত উপকূলীয় জনবসতির সম্পদ প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময়ও রক্ষা করা এবং দুর্গত এলাকার জীবন উন্নয়নে ব্যয় করা হবে। প্রকল্প এলাকায় বাণিজ্যিক বনায়নেরও পরিকল্পনা আছে। পোল্ডার এলাকায় অগভীর চিংড়ি ঘেরও তৈরি করা হবে।

বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড এ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে। এ প্রকল্পের উদ্যোক্তা পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়। প্রকল্পের মেয়াদকাল জুলাই ২০১৩ থেকে জুন সেপ্টেম্বর ২০২০ সাল অবধি।

কোস্টাল ইমব্যাংকমেন্ট ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্ট ফেইস-১ (সিইআইপি) প্রকল্পের সার্বিক সমন্বয়কারী ও প্রকল্প পরিচালক সারাফাত খান বাংলানিউজকে বলেন, প্রকল্পটির সার-সংক্ষেপ পরিকল্পনা কমিশনে পাঠানো হয়েছে। আশা করা যাচ্ছে, মঙ্গলবার একনেক সভায় প্রকল্পটি চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হবে।

এ প্রকল্পের প্রথমেই জলোচ্ছ্বাসের হাত থেকে ১৭টি পোল্ডারের বাঁধকে রক্ষার উদ্যোগ নেওয়া হবে। বাঁধ রক্ষা করাই প্রধান কাজ। কারণ, পোল্ডার এলাকার বাঁধ রক্ষা না করা গেলে কোনো উন্নয়নমূলক কাজই করা যাবে না। এক কথায় পোল্ডার এলাকায় সব ধরণের অবকাঠোমো গড়ে তোলা হবে। ইতোমধ্যে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে যেসব প্রকল্প বাস্তবায়িত হয়েছে তার মধ্যে এটি মেগা প্রকল্প।

উপকূলীয় এলাকার উন্নয়নে দুটি প্রকল্পের মাধ্যমে এ টাকা দিচ্ছে বিশ্বব্যাংক। কোস্টাল ইমব্যাংকমেন্ট ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্ট ফেইস-১ (সিইআইপি) প্রকল্পের আওতায় বাংলাদেশের ৭টি উপকূলীয় জেলায় বাঁধ নির্মাণ করা হবে। এছাড়া উপকূলীয় এলাকার ৭টি জেলার ১২টি উপজেলার ১৭টি স্থানে পোল্ডার নির্মাণ করা হবে। প্রকল্পের প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়।

উপকূলীয় খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, পিরোজপুর, বরগুনা, পটুয়াখালি জেলার ১৭টি স্থানে পোল্ডার নির্মাণ করে বসবাসের উপযোগী করা ছড়াও চাষাবাদযোগ্য করা হবে। পোল্ডার এলাকা সাধারণত নির্বাচন করা হয়েছে টেকনিকেল, পরিবেশ, সামাজিক, অর্থনৈতিক এবং ভৌগলিক দিক বিবেচনায় করে।

এছাড়া ঘূর্ণিঝড়, সিডর, আইলার মতো যেকোনো ধরনের প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় পোল্ডার এলাকাগুলো রক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এছাড়াও অপেক্ষাকৃত নিচু উপকূলীয় এলাকাগুলোকে উঁচু করা হবে।

৬টি জেলার উপকূলীয় এলাকায় পোল্ডার নির্মাণ করে ১ লাখ ৮১৭ হেক্টর জমি নদীর গ্রাসের হাতে থেকে উদ্ধার করা হবে। এর মধ্যে ৮০ হাজার ৫৭৪ হেক্টর জমি আবাদযোগ্য করে তোলা হবে। পোল্ডার এলাকায় প্রায় ৭ লাখ ৬২ হাজার ৯৬০ জনকে পুনর্বাসন করা হবে।

উপকূলীয় নানা ধরনের প্রাকৃতিক দূর্যোগের হাত থেকেও এদের রক্ষা করা হবে। পোল্ডার সীমানা বেষ্টিত এলাকার জনবসতির জীবন মানোন্নয়ন করে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে সহায়তা করা হবে। যেমন- এ এলাকায় নানা ধরনের চাষাবাদ, মৎস্য চাষ, বৃক্ষরোপণ, ক্ষুদ্র কুটির শিল্পনির্ভর কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে এসব জনবসতির জীবনমান উন্নয়ন করা হবে।

প্রকল্পের প্রতিবেদনে প্রকাশ করা হয়, ২০৫০ সালে উপকূলীয় জনবসতির সংখ্যা দ্বিগুণ হয়েও ছাড়িয়ে যাবে। প্রাকৃতিক দু্র্যোগের কারণে যেন উপকূলীয় অঞ্চলের মানুষ দারিদ্র্য সীমার নিচে বসবাস না করে এজন্য নানা ধরনের উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড হাতে নেওয়া হবে।

উপকূলীয় অঞ্চলের জনবসতিকে বন্যা, খরা, ভাঙন, সাইক্লোন ও বন্যার হাত থেকেও রক্ষা করা হবে। এ ছাড়াও প্রকল্পের আওতায় ১৭টি পোল্ডার এলাকায় প্রাকৃতিক সৌন্দর্যসহ সবুজ বনায়ন গড়ে তোলা হবে। এ প্রকল্প উপকূলীয় জনবসতির মানোন্নয়নে কার্যকর পদক্ষেপ রাখবে।

এছাড়া, প্রাকৃতিক দূর্যোগের সময় বসতবাড়ি, ফসল, মৎস্য ও প্রাণীসম্পদ এবং অন্যান্য সম্পদ রক্ষা করা হবে। জলবায়ুজনিত কারণে লবণাক্ত পানি অনুপ্রবেশ রোধের মাধ্যমে ফসল উৎপাদন বৃদ্ধি করা হবে। উপকূলীয় এলাকার বাঁধসমূহের উন্নয়ন ও পূনর্বাসন করা হবে। ১৭টি পোল্ডারের ১ লাখ ৮১৭ হেক্টর এলাকা রক্ষা করা হবে। উপকূলীয় অঞ্চলের মানুষের জীবিকার প্রসার ঘটানো হবে। এছাড়া ১৭টি পোল্ডারের বাঁধ ও অভ্যন্তরীণ নিষ্কাশন ব্যবস্থার উন্নয়ন এবং সেচ সুবিধার মাধ্যমে ৮৬ হাজার ৩৮২ হেক্টর ফসল উৎপাদন বৃদ্ধি করা হবে।

 

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT