হটলাইন

01787-652629

E-mail: teknafnews@gmail.com

সর্বশেষ সংবাদ

ক্রীড়াপ্রচ্ছদ

বিশ্বকাপে ফ্রান্স সাত মুসলিম এবং ১৫জন আফ্রিকান নিয়ে ফাইনালে

টেকনাফ নিউজ ডেস্ক::
রাশিয়া বিশ্বকাপে সাত জন মুসলিম এবং ১৫জন আফ্রিকান নিয়ে ফাইনালে মাঠে নামবে এবারের বিশ্বকাপের সবচেয়ে সফল ও পরিশ্রমী দল ফ্রান্স। তারা সাদা, কালো, বাদামী, এরাবিয়ান, মুসলিম, আফ্রিকান যেকোন কিছু হতে পারে। কোনো সমস্যা নেই, যতক্ষণ তারা ফ্রান্সের হয়ে ভালো খেলে আরকি! এমনই চিন্তাভাবনা অধিকাংশ ফরাসী সিটিজেনের।

বিশ্বকাপ শুরুর আগে ফ্রান্স দলে এই বহুজাতিত্ত্বের বিপক্ষে সমালোচনায় মুখর ছিলেন সাবেক তারকা খেলোয়াড় থেকে শুরু করে ফ্রান্সের সাদা চামড়ার অধিকাংশ মানুষ। কিন্তু রাশিয়া বিশ্বকাপে এই আফ্রিকান এরাবিয়ান বংশোদ্ভূত খেলোয়াড়দের নিয়েই বাজিমাত করেছে ফ্রান্স। যার ফলে ’৯৮ সালের সেই জিদান বাহিনীর ইতিহাস গড়ার পর আবারো স্বপ্ন বুনতে শুরু করছে ফরাসীরা। অধরা শিরোপা থেকে যে তারা মাত্র একটি ধাপ দূরে।

কে নেই ফ্রান্সের এই আফ্রিকান-এরাবিয়ান লিস্টে? পল পগবা থেকে শুরু করে হালের ওসমান ডেম্বেলে! ২৩ সদস্যের ফ্রান্স স্কোয়াডে ১৫ জনই আফ্রিকান, এরাবিয়ান বংশোদ্ভূত। পল পগবার পরিবার আফ্রিকান দেশ গিনি’র বংশোদ্ভূত হলেও পগবা খেলছেন ফ্রান্সের হয়ে। তেমনিভাবে জিব্রিল সিদিবে, এন’গোলো কান্তে বা বার্সেলোনা সেনসেশন ওসমান ডেম্বেলে খেলতে পারতেন আরেক আফ্রিকান দেশ মালির হয়ে।

কিন্তু পগবার মতো এই তিনজন মুসলিম ফুটবলারও আজ ফ্রান্সের প্রতিনিধি হয়েছেন। আলজেরিয়ান বংশোদ্ভূত নাবিল ফেকির, মরক্কো অরিজিন আদিল রামি, সেনেগালিজ বেঞ্জামিন মেন্ডি ফ্রান্স দলের বাকি তিনজন মুসলিম ফুটবলার।

এই সাত খেলোয়ার ইসলাম ধর্মানুসারী ছাড়াও আরো একজন আছেন যাকে বলা হয় অর্ধেক মুসলিম। যিনি কিনা এবারের আসরের গোল্ডেন বল পাওয়ার অন্যতম দাবিদার। নাম তার কিলিয়ান এম্বাপ্পে!
এছাড়াও স্টিভ মানদান্দা, স্টিভেন এনজঞ্জি, প্রেসনেল কিমপেমবেরা গায়ে জড়াতে পারতেন কঙ্গোর জার্সি। ব্লেইস মাতুইদি (এঙ্গোলা), স্যামুয়েল উমতিতি (ক্যামেরুন), থমাস লেমার (নাইজেরিয়া), করেনটিন টলিসো (টোগো) রাও নিজেদের আসল কে প্রতিনিধিত্ব না করে বেছে নিয়েছেন বর্তমান নিবাস ফ্রান্সকে।

অবশ্য ফ্রান্সের এই বহুসংস্কৃতি, ভিন্ন জাতিসত্বার ফুটবল দলকে কেন্দ্র করে সমালোচনায় মেতেছেন অনেকেই। যার মধ্যে অন্যতম একজন কিংবদন্তী ডিয়েগো ম্যারাডোনা। ঠিক ম্যারাডোনার মতো করে না ভাবলেও ফ্রান্স দলে এই বহুজাতিক খেলোয়াড়দের মিশ্রণ আজ তাদের দুর্বলতা না হয়ে উল্টো শক্তিতে পরিণত হয়েছে। প্রথম দল হিসেবে বিশ্বকাপ ফাইনালে জায়গা করে নেয়ার চেয়ে বড় প্রমাণ এরজন্য আর কিইবা হতে পারে।

Leave a Response

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.