টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
রোহিঙ্গাদের এনআইডি কেলেঙ্কারি : নির্বাচন কমিশনের পরিচালকের বিরুদ্ধে দুপুরে মামলা, বিকালে দুদক কর্মকর্তা বদলি সড়কের কাজ শেষ হতে না হতেই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং! আপনি বুদ্ধিমান কি না জেনে নিন ৫ লক্ষণে ৫৫ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশি ভোটার: নিবন্ধিত রোহিঙ্গাও ভোটার! ইসি পরিচালকসহ ১১ জন আসামি হ’ত্যার পর মায়ের মাংস খায় ছেলে ব্যাংকে লেনদেন এখন সাড়ে ৩টা পর্যন্ত আগামী ১৫ জুলাই পর্যন্ত লকডাউন বাড়ল মডেল মসজিদগুলোয় যোগ্য আলেম নিয়োগের পরামর্শ র্যাবের জালে ধরা পড়লেন টেকনাফ সাংবাদিক ফোরামের সদস্য ও ইয়াবা কারবারি বিপুল পরিমাণ টাকা ও ইয়াবা উদ্ধার রোহিঙ্গাদের তথ্য মিয়ানমারে পাচার করছে জাতিসংঘ: এইচআরডব্লিউ

বার কাউন্সিলের প্রতারণার আশংকা

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
  • ১২৩ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

প্রায় এক বছর পূর্বে প্রথম তালিকাভুক্ত করার পর বিগত দু’মাস পূর্বে ফাইনাল রেজিস্ট্রেশন দিয়েও আগামী ৬ সেপ্টেম্বর এডভোকেসি পরীার আগমুহুর্থে এসে প্রবেশপত্র দেয়ার বেলায় তা কাউকে দিয়ে আর কাউকে না দিয়ে এক রহস্যজনক আচরণ শুরু করে বার কাউন্সিলের বর্তমান বিতর্কিত ডিজিটাল কমিটি। কাকে কেন প্রবেশপত্র দেয়া হবে না তার কোন কারণ দর্শানো পূর্ব নোটিশ ছাড়াই এ ধরনের আচরণ মূলত আইনী লোকদের বেআইনী কার্যকলাপে সাধারণ পরীার্থীরা হতবাক। তাদের প্রশ্ন হল, প্রবেশপত্র না দিলে কেন দিচ্ছে না? এ সংক্রান্ত কোন নোটিশ কেন দেয়া হচ্ছে না? কারো ব্যাপারে বার কাউন্সিলের কোন আপত্ত্বি থাকলে তা রেজিস্ট্রেশনের পূর্বে কেন জানানো হল না? কেন শত শত ছাত্রের কাছ থেকে হাজার হাজার টাকা রেজিস্ট্রেশনের নামে হাতিয়ে নেয়া হল? এটা একপ্রকার ডিজিটাল প্রতারণা ও লোটতরাজ নয় কি? তা কি ফেরত দেয়া হবে? কোন প্রতিষ্ঠানের বিরোদ্ধে কোন অভিযোগ থাকলে তার দায়ভার নিরিহ ছাত্র-ছাত্রীদের উপর চাপানোর যৌক্তিকতা কী? রাষ্ট্রপতির নামে প্রকাশ্যে বিজ্ঞাপন দিয়ে প্রশাসনের নাকের ডগায় যাবতীয় কার্যক্রম চালানোর সুযোগপ্রাপ্ত কোন প্রতিষ্ঠান থেকে ছাত্রছাত্রীরা শিাজীবন শেষে সার্টিফিকেট নিয়ে ঘরে ফেরার পর কেন কর্তৃপরে খবর হয়? তা কি মূলত ভাগাভাগীতে গরমিলের কারণেই হয় কিনা? কোন প্রতিষ্ঠানের ২৯টি শাখাকে আদালত অনুমোদন দিয়ে রাখলে সে প্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রী তো বেশি হতেই পারে। তাদের যোগ্যতা নিয়ে কারো কোন সন্দেহ থাকলে তা দূর করার জন্যেই তো এ পরীার আয়োজন। সে পরীায় সবাইকে অংশগ্রহণ করতে দিয়ে অযোগ্যদের বাদ দিয়ে দিলেই তো সব সমস্যার সমাধান হয়ে যায়। এ সহজ পথে না গিয়ে তাদেরকে হরতাল অবরোধ ভাংচুর অরাজকতার পথে ঠেলে দেয়া হচ্ছে কার স্বার্থে? রেজিস্ট্রেশনকারী সকল পরীার্থীদেরকে আগামী বুধবারের মধ্যে প্রবেশপত্র না দিলে বৃহস্পতিবার দেশব্যাপী হরতাল করবে প্রবেশপত্র বঞ্চিত পরীার্থীরা। তাদের সাথে যোগ দেবে তাদের আত্মীয় স্বজন, বন্ধুবান্ধব ও ছোট ভাইরাও। তাদের প্রতি সহমর্মিতা জানাতে এগিয়ে আসবে সাধারণ জনগণ। এতে সরকারী দলের তি ছাড়া কোন লাভ হবে না। তাই বর্তমান সরকারের উচিত হবে নিজ স্বার্থেই এ মুহুর্থে কোন প্রকার আগুণের সুত্রপাত হতে না দেয়া। বর্তমান সময়ে যে কোন অরাজনৈতিক আন্দোলনও রাজনৈতিক গুরুত্ব বহন করে বৈকি। এটি একটি সরকার বিরোধী ষড়যন্ত্রও হতে পারে। তাই ষড়যন্ত্রকারীদেরকে দ্রুত চি‎িহ্নত করে সকল পরীার্থীদেরকে বুধবারের মধ্যেই প্রবেশপত্র দেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানিয়েছেন সচেতন জনগণের পাশাপাশি সরকার দলীয় সমর্থকরাও। বিজ্ঞজনরা মনে করছেন, মূলত ঐ সকল ছাত্রছাত্রীকে যে কোন টুনকু অযুহাতে আটকে রেখে নিজ প্রতিষ্ঠানে ভাগিয়ে নেয়ার জন্যেই কোন কোন সরকার দলীয় লোকজন সম্পূর্ণ ব্যক্তিস্বার্থেই এ ঝামেলা পাকাচ্ছে। তাদের ব্যাপারে সরকারের সর্বোচ্চ মহলের সথর্ক হওয়া উচিত।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT