হটলাইন

01787-652629

E-mail: teknafnews@gmail.com

সর্বশেষ সংবাদ

টেকনাফসাহিত্য

বাবা দিবস এবং তাদের দিনলিপি….

মোহাম্মদ ওমর ফারুক==বাবা দিবসের মাহত্ব হয়তো আমায় খুব একটা ছুঁয়ে যায় না। কিন্তু, যারা
হারিয়েছে ভালবাসায় মাখামাখি এই পিতৃস্নেহ তাদের কাছে?সাইয়ারা নওয়ালঃ ২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল থেকে বাবার অপেক্ষায় দিন গুনছেইলিয়াস আলীর ১০ বছর বয়সী মেয়ে সাইয়ারা ন্‌ওয়াল। সাইয়ারা এখনো বারান্দায়
দাঁড়িয়ে থাকে তার বাবা ফিরে আসবে ভেবে। বাবার কাছে চিঠি লিখে সাইয়ারা।
ছোট ছোট আঙ্গুলে বুনে চলে বাবার জন্য হাহাকার, কখনো সে হাহাকার রুপ নেয়
কান্নায়। ‘এখন বাবার মতো করে কেউ আদর করে মাথায় হাত বুলিয়ে দেয়
না।’–কান্না জড়ানো গলায় বলতে থাকে সাইয়ারা।মেঘঃ ছয় বছরের ছোট্ট শিশু মেঘ। নিহত সাংবাদিক দম্পতি সাগর ও রুনীর
একমাত্র সন্তান। খুন কী, তা বুঝার সময় হয়নি এখনো। কিন্তু তার আগেই চোখের
সামনে দেখেছে মা-বাবার রক্তাক্ত লাশ। আর কিছু না বুঝলেও বাবা-মায়ের আদর
মাখা হাত দুটি যে মাথার চুলগুলোকে আর এলোমেলো করে দেয়না তা ঠিক্‌ই বুঝতে
পারে শিশুটি। মেঘের নিরব গুমোট বাঁধা মুখের দিকে তাকালে বুঝা যায়, না বলা
কথাগুলো যেন মুখ দিয়ে গুমরে বেরুচ্ছে–মা তুমি আমাকে ছুঁয়ে দাওনা কেন?
বাবা-মাকে হারিয়ে সে তার পৃথিবীর সবকিছুই হারিয়ে ফেলেছে।

নিষাদ-নিনিতঃ প্রয়াত কথা সাহিত্যিক হুমায়ুন আহমেদের দুই শিশু সন্তান
নিষাদ আর নিনিত। সৃষ্টির অমোঘ নিয়মে পৃথিবী থেকে বিদায় নিয়েছে তাদেরা
বাবা। সেই নিয়মে ‘বাবা’ নামক আদরমাখা ডাক হয়তো আর  কখনোই শোনা যাবেনা
নিষাদ-নিনিতের কন্ঠে। হাজার কষ্ট করেও তারা আর কখনো ফিরে পাবেনা বাবার
গলা জড়িয়ে ধরে আবদার করার মুহুর্তগুলো। স্মৃতি-বিস্মৃতির অতল তলে একদিন
হারিয়ে যাবে তাদের সোনা ঝরা দিনগুলি।

নিষাদ-নিনিত, সাইয়ারা, মেঘদের মতো অসংখ্য হতভাগা রয়েছে যারা শৈশবেই
বাবাকে হারিয়েছে; ধুসর স্বপ্নের দিনলিপিতে ঘুরপাক খাচ্ছে তাদের জীবন রথ।
শ্রদ্ধা-ভালবাসায় অশ্রুসজল নয়নে বাবা দিবসটি স্মরণীয় হয়ে উঠে তাদের কাছে;
আর শোকাতোর হৃদয়ে বেজে উঠে,
“অবিনাশী দিন জানে,
রাত জানে,
জানতে জানতে এখন পুরো গ্রাম জানে,
তোমাকে আমার মতো কেউ আর ভালবাসে না।”

মোহাম্মদ ওমর ফারুক
ফ্রিল্যানস সাংবাদিক
০১৮২৫১৫৭৭৩৩