টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

বাংলাদেশে ইন্টারনেটে আয় ৪০ মিলিয়ন ডলার

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট, ২০১২
  • ২৫৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

বাংলাদেশে ইন্টারনেটভিত্তিক মুক্ত পেশাজীবীরা চলতি বছরে আয় করবেন ৪০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের বেশি৷ এর মধ্যে শুধুমাত্র ‘ওডেক্স’ থেকেই আয়ের পরিমাণ হবে ২৮ মিলিয়ন৷ বাকিটা আসবে অন্যান্য ‘মার্কেটপ্লেস’ থেকে৷ বাংলাদেশে ইন্টারভিত্তিক মুক্ত পেশাজীবীদের আয়ের অন্যতম একটি উৎস হচ্ছ ‘ওডেক্স’৷ এই ইন্টারনেট ‘মার্কেটপ্লেস’ থেকে কাজ পাওয়া অপেক্ষাকৃত সহজ৷ তবে কাজ করার পর সেই অর্থ বাংলাদেশে বসে সংগ্রহ করা এতদিন খানিকটা কঠিন ছিল৷ সম্প্রতি এই কাজটি অনেক সহজ হয়ে গেছে৷ এখন ওডেক্সের বাংলাদেশ অংশের ব্যবহারকারীরা কাজ শেষে সরাসরি তাদের স্থানীয় ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকেই অর্থ সংগ্রহ করতে পারছেন৷ এরফলে মুক্ত পেশাজীবীদের অর্থ উপার্জনের পথ আরো সুগম হলো৷
বাংলাদেশের তথ্য প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ মুনির হাসান জানান, গত বছর ঢাকায় এক সম্মেলনের অংশ নেয়ার পর ওডেক্সের ভাইস-প্রেসিডেন্ট ম্যাট কুপার অর্থ লেনদেনের বিষয়টি সহজ করার চেষ্টা করেন৷ তার সেই চেষ্টা অবশেষে সফল হয়েছে৷ মুনির হাসান বলেন, ‘‘আমরা একটা ফ্রিল্যান্সিং কনফারেন্স করেছিলাম৷ সেখানে প্রায় হাজারখানেক ফ্রিল্যান্সার ওডেক্সের ভাইস-প্রেসিডেন্টের সঙ্গে কথা বলার সুযোগ পেয়েছে৷ তারা তখন জানিয়েছে, কাজ করলেও তাদের টাকা পয়সা পেতে সমস্যা হয়৷ একটি হচ্ছে সরাসরি ব্যাংক অ্যাকাউন্টে টাকা আসেনা এবং আরেকটি হচ্ছে বাংলাদেশে ‘পে-পল; এখনো আসেনি৷”
বর্তমানে বাংলাদেশের যেকোনো ব্যাংকের অ্যাকাউন্টেই ওডেক্সের থেকে প্রাপ্ত অর্থ জমা ও সংগ্রহ করা যাবে৷ এজন্য ওডেক্স প্রোফাইলে গিয়ে ব্যাংকের তথ্য যোগ করে দিতে হবে৷ ওডেক্স থেকে বাংলাদেশের অ্যাকাউন্টে এই অর্থ পেতে সময় লাগে মাত্র তিন থেকে চারদিন৷ ইতিমধ্যে একাধিক মুক্ত পেশাজীবী নিশ্চিত করেছেন এই তথ্য৷ মুনির হাসান জানান, বর্তমানে বাংলাদেশের প্রায় বিশ হাজার পেশাজীবীর বিভিন্ন ইন্টারনেট ‘মার্কেটপ্লেস’-এ অ্যাকাউন্ট রয়েছে৷ তবে নিয়মিত ইন্টারনেটে কাজ করছেন আট হাজারের মতো পেশাজীবী৷ এদের গড় আয় নেহাত কম নয়৷
তিনি বলেন, ‘‘ওডেক্সের হিসাব হচ্ছে, বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সাররা প্রতিদিন এক কোটি টাকা আয় করে৷ আমার হিসাব হচ্ছে ওডেক্স থেকে যারা ঘণ্টাভিত্তিতে এবং প্রজেক্টে কাজ করে তাদের আয় হবে ২৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের মতো, চলতি বছরে৷ আর অন্য যে সাইটগুলো আছে, সেখান থেকেও তারা কম-বেশি ১২ থেকে ১৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় করবে৷ সেই হিসাবে আমার মনে হচ্ছে, এবছর ফ্রিল্যান্সারদের আয় চল্লিশ মিলিয়ন ইউরো ছাড়িয়ে যেতে পারে৷ গত বছর এই আয়ের পরিমাণ ছিল ১৭ মিলিয়নের মতো৷”
ওডেক্স ছাড়াও আরো কয়েকটি আন্তর্জাতিক মার্কেট প্লেস ওয়েবসাইটে বাংলাদেশি মুক্তপেশাজীবীদের নিয়মিত পদাচারণা রয়েছে৷ এছাড়া এখন স্থানীয় ওয়েবসাইটও তৈরি হচ্ছে, যেখান থেকে কাজ সংগ্রহ করতে পারেন পেশাজীবীরা৷ বাংলাদেশি মুক্ত পেশাজীবীরা খুব বড় ধরনের কাজ এখনো করছেন না৷ ডাটা এন্ট্রি এবং সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশনের মতো কাজগুলো বাংলাদেশের তরুণরা করছেন বেশি৷ এই কাজে অবশ্য কিছুদিন আগে বড় সাফল্যও প্রদর্শন করেছেন তরুণরা৷ মুনির হাসান বলেন, ‘‘সম্প্রতি ফ্রিল্যান্সার ডটকম একটি সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন বিষয়ক প্রতিযোগিতার আয়োজ করে এবং সেই প্রতিযোগিতায় প্রথম হয়েছে বাংলাদেশের ফ্রিল্যান্সাররা৷ তারা দশ হাজার ডলার পুরস্কারও পেয়েছে৷” উল্লেখ্য, বাংলাদেশে ইন্টারনেটভিত্তিক কাজের সুযোগ বাড়লেও এক্ষেত্রে অর্থ লেনদেনের পথে এখনো বাধা অনেক৷ বিশেষ করে, ইন্টারনেটে অর্থ লেনদেনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম ‘পে-পল’ এখনো যাত্রা শুরু করেনি বাংলাদেশে৷ এই বিষয়ে বাংলাদেশ সরকার অবশ্য উদ্যোগ নিয়েছে৷ তবে ঠিক কবে নাগাদ পে-পল বাংলাদেশে যাত্রা শুরু করতে পারে, সে সম্পর্কে এখনো কোনো কিছু জানা যায়নি৷

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT