টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

বাংলাদেশের অর্থনীতির গলা চেপে ধরছে হরতাল: ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : সোমবার, ১২ আগস্ট, ২০১৩
  • ১৪৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

ওয়াশিংটন: চলতি বছরের এপ্রিলে রানা প্লাজা ধসের পর বাংলাদেশ তার ভাবমুর্তি  পুনরুদ্ধারের চেষ্টা করলেও হরতালের সংস্কৃতি দেশটির অর্থনীতির গলা চেপে ধরেছে। আগামী নির্বাচন সামনে রেখে এই হরতাল কর্মসূচি আরো বাড়তে পারে। ফলে বাড়তে পারে অর্থনৈতিক ক্ষতির পরিমাণ।

শনিবার ‘ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল’-এ প্রকাশিত ‘কালচার অব মাস স্ট্রাইকস সাফোকেটস বাংলাদেশ ইকোনমি’ শীর্ষক প্রতিবেদনে এসব তথ্য  দেয়া হয়েছে। প্যাট্রিক বার্তা ও সাঈদ জাইন আল-মাহমুদ প্রতিবেদনটি লিখেছেন।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হরতালের কারণে দোকান খুলতে না পারায় মুনাফার মুখ দেখতে পারছে না ঢাকার ব্যবসা। এমনকি হরতালের কারণে ক্ষুদ্র আম ব্যবসায়ীরাও ঢাকার বাইরে থেকে চালান আনতে পারছেন না।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দক্ষিণ এশিয়ার রাজনীতিতে হরতাল একটি সাধারণ বিষয়। এর প্রভাবে বাংলাদেশ দীর্ঘদিন ধরে বিরূপ ফল ভোগ করছে। মহাত্মা গান্ধী বৃটিশ উপনিবেশ থেকে ভারতকে মুক্ত করতে হরতালের সংস্কৃতি শুরু করলেও বাংলাদেশের বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো একে বেছে নিয়েছে ক্ষমতাসীন দলকে শায়েস্তা করার হাতিয়ার হিসেবে।

‘ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল’-এর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এ বছর সাভারে রানা প্লাজা ধসের পর ভাবমূর্তির সংকটে থাকা বাংলাদেশ হরতালের কারণে আরো নাজেহাল হচ্ছে। একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত জামায়াতে ইসলামীর কয়েকজন নেতাকে মৃত্যুদণ্ড ও কারাদণ্ডের রায় দেয়ার পর এর প্রতিবাদে সংগঠনটি বেশ কয়েকবার হরতাল পালন করে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আসন্ন সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে হরতাল কর্মসূচির আশঙ্কা বাড়ছে। আগামী বছরের জানুয়ারি মাসের মধ্যেই সরকার নির্বাচন দিতে প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

বাংলাদেশের বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে ‘ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল’ জানিয়েছে, এ বছর দেশজুড়ে ৩৬টি হরতাল হয়েছে । গত বছর হরতাল হয়েছিল ২৯টি। অথচ ২০০৯ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত মাত্র ১৭টি হরতাল হয়েছিল।

হরতালে সাধারণত কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্লাস বন্ধ থাকে। সহিংসতার শিকার হওয়ার ভয়ে জনগণ বাসা থেকে বের হয় না। এ বছরের জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত ৮০ জনের বেশি মানুষ মারা  গেছে বলে দাবি করা হয়েছে ওই প্রতিবেদনে।

এফবিসিসিআইয়ের হিসাবমতে, হরতালজনিত কারণে এ বছর সাত বিলিয়ন ডলারের বেশি ক্ষতি হয়েছে, যা দিনে প্রায় ২০০ মিলিয়ন ডলারের বেশি। বিশ্লেষকরা ধারণা করছেন, নির্বাচন ঘনিয়ে আসার সঙ্গে সঙ্গে হরতাল আরও বাড়বে। এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ বলেন, “হরতালের সংস্কৃতি আমাদের ধ্বংস করছে।”

হা-মীম গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল কালাম আজাদ জানান, সম্প্রতি হরতাল চলাকালীন বিক্ষোভকারীরা তার একটি ট্রাকে আগুন ধরিয়ে দেয়। ফলে আড়াই হাজার পোশাক পুড়ে যায়। আজাদ আরো জানান, হরতালের কারণে ক্ষতির পরিমাণ আরও বাড়তে পারে। কারখানা মালিকেরা প্রতিদিন লাখ লাখ ডলারের ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারেন।

এ বিষয়ে স্থানীয় পরামর্শক প্রতিষ্ঠান রিড কনসাল্টিংয়ের চেয়ারম্যান রডনি রিড বলেন, “বিষয়টি যেকোনো কারখানাকে দেউলিয়া করে দেয়ার জন্য যথেষ্ট।”

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT