টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা কলেজটি জাতীয় করণের দাবীতে উখিয়া-টেকনাফ বাসী সোচ্ছার

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শনিবার, ৩১ আগস্ট, ২০১৩
  • ২৪৬ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

দীপন বিশ্বাস::::pic ukhyia 31-08-13জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্ত্রীর নামে প্রতিষ্টিত বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা কলেজকে জাতীয় করণের দাবীটি এখন কক্সবাজারের দুই সীমান্ত উপজেলা উখিয়া-টেকনাফের সাধারণ মানুষের গণদাবীতে পরিণত হয়েছে। সম্প্রতি আওয়ামীলীগ সহ সহযোগী সংঘটনের প থেকে মিছিল মিটিং সমাবেশের মাধ্যমে এই দাবী জোরালো  হচ্ছে। এতধাঞ্চলের অবহেলিত নারীদের জন্য বিগত ১৯৯৯ সালে উখিয়া উপজেলার সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বিশিষ্ট শিাবিদ সমাজ সেবক মরহুম নুরুল ইসলাম চৌধুরী প্রকাশ ঠান্ডা মিয়া চৌধুরী সহ বেশ ক’জন শিানুরাগী ও বর্তমান সাংসদ আব্দুর রহমান বদির পৃষ্টপোষকতায় কলেজটি নির্মাণ হয়েছিল। নানা মুখি সমস্যার মধ্য দিয়ে জেলার অন্যান্য শিা প্রতিষ্টানের সাথে পালা দিয়ে পড়া লেখা চালিয়ে যাচ্ছে। বিগত ১৩বছরে এই কলেজ থেকে ২ হাজার শিার্থী সফলতার সাথে পাশ করে নানা স্থানে চাকুরী করছে।  বিগত জোট সরকারের আমলে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে কলেজটি এমপিও ভুক্তসহ সরকারী সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত থাকে। প্রতিষ্টাতা অধ্য হামিদুল হক চৌধুরী ও শিকদের আন্তরিকতার কারণে প্রতিষ্ঠানটি কোন রকমে ঠিকে থাকে। অবিভাবকদের সাথে কথা বলে জানা যায়, কলেজ প্রতিষ্টার পর থেকে উখিয়া উপজেলা সহ তার আশপাশের ও প্রত্যন্ত অঞ্চলের সাধারণ পরিবারের মেয়েরা উচ্চ শিা গ্রহণের সুযোগ পাচ্ছে। বিগত সরকারের আমলে নানা বঞ্চনার শিকার হতে হয়েছিল শিকদের। বর্তমানে বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা কলেজে একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেণীতে অধ্যায়ন করছে ১ হাজার নারী শিার্থী। শিক কর্মচারী রয়েছেন ২৬ জন। ছাত্রীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, আগামী ৩ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উখিয়ায় আসছে। তার কাছে আমাদের একমাত্র দাবী মায়ের নামে প্রতিষ্টিত বঙ্গমাতা কলেজটি জাতীয় করনের। ২০০৮সালের ২৯ ডিসেম্বর ৯ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ তথা মহাজোট সরকার সংখ্যাগরিষ্ট আসনে জয়লাভ করেন। পাশাপাশি উখিয়া-টেকনাফ আসন থেকে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন আব্দুর রহমান বদি। আব্দুর রহমান বদি নির্বাচিত হলে উখিয়া-টেকনাফের মানুষের দাবী পুরণ করতে বিগত ২০১০সালে মে মাসে বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা কলেজটি এমপিও ভুক্ত করেন। সেই থেকে শিকদের পরিশ্রমের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটি জেলার শীর্ষস্থান দখল করে। জেলায় এ বছর এইচ.এস.সি ফলাফলে কলেজ পর্যায়ে প্রথম স্থান অধিকার করে।
বঙ্গমাতা ফজিলান্নেছা মুজিব মহিলা কলেজের ইসলামের ইতিহাসের অধ্যাপক হুমায়ুন কবির চৌধুরী বলেন, আমার পিতার ঐকান্তিক প্রচেষ্টা ও পরিবারের প থেকে এ কলেজটি প্রতিষ্টার পিছনে যথেষ্ট সংগ্রাম করে এ পর্যন্ত দাঁড়িয়েছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মায়ের নামে হওয়ায় কলেজটি সরকারী করনের দাবী জানাচ্ছি। বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা কলেজের দ্বাদশ শ্রেণীর ব্যবসায় শিা শাখার ছাত্রী পিংকি বড়–য়া জানান, কলেজটি নানান সমস্যা রয়েছে। মেয়েদের জন্য আলাদা হোষ্টেলের ব্যবস্থাসহ সরকারী করণের জোর দাবী জানান। এই কলেজের প্রতিষ্টাতা অধ্য হামিদুল হক চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উখিয়ার জনসভায় তাঁর মায়ের নামে প্রতিষ্টিত কলেজটি সরকারী করণের ঘোষনা দিতে পারে। বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা কলেজ এর পরিচালনা কমিটির সভাপতি প্রফেসর অধ্য ফজলুল করিম বলেন, আমাদের গর্ভনিং বডির সভায় এ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে স্বারক লিপির ব্যবস্থা করা হয়েছে। সংসদ সদস্য আব্দুর রহমান বদি বলেন আমারও একই দাবী, কারণ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বৃতিকে ধরে রাখতে এই কলেজটি সরকারী করা উচিত।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT