টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

ফুটপাতে জমজমাট ঈদ বিকিকিনি

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ২ আগস্ট, ২০১৩
  • ১৯৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

m320130802052453ঈদকে সামনে রেখে নিম্ন ও মধ্যবিত্তদের স্বাচ্ছন্দে কেনাকাটার স্থান নগরীর ফুটপাতগুলো এখন জমজমাট হয়ে উঠেছে। বড় বড় শপিংমলগুলোতে যেতে না পারলেও ঈদের কেনাকাটাতো আর বন্ধ থাকতে পারে না। তাই ফুটপাত যেনো লোকে লোকারণ্য।

শুক্রবার সরকারি ছুটি হওয়ায় বেচাকেনার ধুম পড়েছে ফুটপাতে। সবটুকু সাধ নিয়ে ঈদের কেনাকাটায় ব্যস্ত ক্রেতারা।

সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, রাজধানীর ফার্মগেট, মগবাজার, বেইলি রোডের হকার্স মার্কেট, শিল্পকলা একাডেমি সংলগ্ন সড়ক, নিউমার্কেট, ইডেন কলেজ, ঢাকা কলেজের সামনের সড়কে উৎসব মুখর পরিবেশে চলছে ঈদ বিকিকিনি।

গুলিস্তানের গোলাপ শাহ মাজার থেকে শুরু করে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ জিরোপয়েন্ট, বাইতুল মোকাররমের উত্তর গেট ও দক্ষিণ গেটে ক্রেতাদের ভিড় দেখা গেছে।

পাঞ্জাবি, পায়জামা, লুঙ্গি, শাড়ি, ছেলেদের সার্ট, প্যান্ট, গেঞ্জি, টি সার্ট, জুতা, ছোটদের পোশাক, বেল্ট, মেয়েদের জন্য চুড়ি, মালা, থ্রি-পিচ, লেহেঙ্গা, লিপিস্টিক, মোজা থেকে শুরু করে সব কিছুই বিক্রি হচ্ছে এসব ফুটপাতে।

কি নেই এসব ফুটপাতে? নেই শুধু চার দেয়ালের মধ্যে আটকা পড়া এসির বাতাস। চোখ উজ্জল করা নাল নীল বাতির আলোক সজ্জা। তবুও হকারেরা যে যার মতো করে ঝুড়ি, টেবিল ও কাপড়ের ওপর বিছিয়ে রেখেছে তাদের ঈদ পণ্য।

সুলভ মূল্যে নিম্ন ও মধ্যবিত্তরা তাদের পছন্দের ঈদ সামগ্রী কেনাকাটা করছেন। মালিবাগের গৃহবধূ শায়লা আক্তার নিজের পছন্দের সামগ্রী কেনার জন্য এসেছেন গুলিস্তানে।

এসময় তিনি  বলেন, ‘স্বল্পদামে পছন্দের জিনিস কেনার জন্য এখানে এসেছি। সব কিছুই এখানে পাওয়া যায়, যা সাধ্য মতো কিনতে পারি। এখানে এসে বড় ছেলের জন্য ৪০০ টাকায় একটি পাঞ্জাবি ও বাড়িওয়ালার (স্বামী) জন্য ২৫০ টাকায় একটি লুঙ্গি কিনেছি।’

ঈদ উপলক্ষে ফুটপাতের এসব সড়কগুলোতে এক ধরনের উৎসব লক্ষ্য করা যাচ্ছে। বিক্রেতারা মাথার উপরে বড় অক্ষরে সাদা কাগজে টানিয়ে রেখেছেন, একদাম- হাফ হাতা গেঞ্জি ১৫০, ফুল হাতা গেঞ্জি ২৫০।

যেসব হকাররা দাম টানিয়ে রাখেননি তারা দুই থেকে তিনজন এক হয়ে উচ্চস্বরে স্লোগানের মতো করে দামের কথা প্রকাশ করছেন। দেইখ্যালন ২৫০, বাইচ্ছালন ২৫০, ঈদের কাপড় ২৫০ ইত্যাদি নানা ধরনের স্লোগান সুরে সুরে বলছেন।

বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ আওয়ামী লীগের পার্টি অফিসের কয়েক গজ দূরে। আল মামুন ও তার ৬ জন সহযোগী একসঙ্গে লুঙ্গি বেচাকেনা করছেন। তারা প্রতিটি লুঙ্গি ২৫০ টাকা দরে বিক্রি করছেন। তাদের স্লোগানে ক্রেতাদের উপচেপড়া ভিড় দেখা গেছে।

মামুন বাংলানিউজকে বলেন, ‘অন্যান্যদিন ১৩ থেকে ১৪ হাজার টাকার লুঙ্গি বিক্রি করেছি। আজ (শুক্রবার) সকাল থেকে বেলা ১২টা পার হওয়ার আগেই ১৫ হাজার টাকার লুঙ্গি বিক্রি করেছি। আমরা ক্রেতাদের পছন্দের ওপর ভিত্তি করে কুষ্টিয়া থেকে লুঙ্গি এনে থাকি।’

এসব ফুটপাতের মার্কেটগুলোতে পাঞ্জাবি ৩’শ থেকে ৫’শ টাকা, ফুলহাতা শার্ট ২৫০ টাকা, হাফহাতা শার্ট ১৫০ টাকা, ছেলেদের জিন্সপ্যান্ট ৪০০ থেকে ১ হাজার টাকা, টি-শার্ট ৩০০ থেকে ৪৫০ টাকা, ছোট ছেলেমেয়েদের পোশাক ২৫০ থেকে ৫০০ টাকা, মেয়েদের হিল ১৬০ থেকে ২৫০ টাকা, চামড়ার জুতা ২৫০ থেকে ৩৫০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। ছেলেদের বেল্ট ১২০ থেকে ৩০০ টাকা, চশমা ১৫০ থেকে ২২০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে।

বাইতুল মোকারম জুয়েলারি মার্কেট সড়কে প্রতিটি প্যাঁচানো ‍চুড়ি, লিপস্টিক, মেহেদি, মাথার ব্যান্ড, চুলের কাটা ও নেইলপলিশ ২০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে।

বিক্রেতা বাদশা  বলেন, ‘শুক্রবারে বেচাকেনা একটু বেশি। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত প্রায় ৬ হাজার টাকার বেচাকেনা করেছি। সবাই বেতন বোনাস পাইলে বেচাকেনা আরো বাড়বে। কারণ আমাদের কাছে সব সময় নিম্ন ও মধ্যবিত্তরা এসে থাকেন।’

একটু সস্তায় পছন্দের কাপড় কেনার জন্য দূর-দূরান্ত থেকে এসব মার্টেকে এসেছেন মধ্যবিত্ত মানুষগুলো। তাদের মধ্যে আবার অনেকে বলছে এবার কাপড়ের দাম একটু বেশি। নগরীর শনি আখড়ার মুরাদ নগর কোদার বাজার থেকে এসেছেন গৃহবধূ তাসলিমা খাতুন। তিনি ছেলে মেয়ের জন্য পোশাক ও নিজের জন্য শাড়ি কিনেছেন। এ সময় তিনি বাংলানিউজকে বলেন, ‘একটি ছাপা শাড়ি ৩৬০ টাকায় কিনেছি। ছেলে মেয়েদের জন্য পোশোকও কিনেছি। তবে কাপড়ের দাম একটু বেশি।’

এসব মধ্যবিত্তদের কাছে পোশাক বিক্রি করে স্বাচ্ছন্দ্যবোধও করেন ক্রেতারা। বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে ফুটপাতের কাপড় বিক্রেতা বাবুল হোসেন শেখ বলেন, ‘যারা মিডিয়াম ফ্যামিলি হ্যাগর কাছে মাল (কাপড়) বেইচ্চা সুন্দর আরাম পাওয়া যায়। আর বড় ফ্যামিলি যারা তারা চাইয়া চইল্যা যায়।’

 

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT