টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

পেকুয়া থানার ওসির অপসারণের দাবীতে বিভিন্ন সংগঠনের মানববন্ধন

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ২৯ আগস্ট, ২০১৩
  • ১২১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

পেকুয়া থানার ওসির অপসারণের দাবীতে বিভিন্ন সংগঠনের মানববন্ধনের একাংশ। পেকুয়া থানার ওসির অপসারণের দাবীতে মানববন্ধন ও বিােভ মিছিল নিজস্ব প্রতিবেদক দিয়ে নিউজটা করবেন পেকুয়া থানার ওসি এম, মাঈন উদ্দিনের অপসারণের দাবীতে মানববন্ধন ও বিােভ মিছিল করেছে বিভিন্ন সংগঠন। গতকাল বৃহস্পতিবার (২৯ আগস্ট) সকাল ১১টার দিকে পেকুয়া উপজেলা সদরে বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগ, ছাত্রলীগ ও উপকূলীয় প্রেস কাবসহ আরো কয়েকটি সামাজিক সংগঠন পৃথক পৃথক ভাবে মানববন্ধন শেষে বিােভ মিছিল নিয়ে উপজেলা পরিষদ হল রুমে অবস্থান রত মাননীয় সংরতি মহিলা সংসদ আলহাজ সাফিয়া খাতুন এমপিকে অবগত করে। এসময় বিােভকারীরা পেকুয়া থানার ওসির বিরুদ্ধে নানা শ্লোগান দেন। সাংবাদিক মোঃ ফারুক ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের জন্য স্মারকলীপি প্রদান করে।          অভিযোগ উঠেছে, গত কয়েক মাস পূর্বে পেকুয়া থানায় ওসি হিসেবে যোগদান করেন বি-বাড়িয়া জেলার বাসিন্দা এম, মাঈন উদ্দিন আহমদ। আর পেকুয়া থানায় যোগদান করেই শুরু করেন নানান অপকর্ম। মামলার বাদী-বিবাদীদের জিম্মি করে লাখ লাখ টাকা আদায় করে বেপরোয়া ঘুষ বানিজ্যে, বিএনপি-জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীদের সাথে আঁতাতসহ নানা অভিযোগ রয়েছে। স্থানীয়রা সম্প্রতি এ ওসির অপসারণের জন্য পুলিশের আইজি ও সরকারের উর্দ্ধতন কর্তৃপরে নিকট লিখিত অভিযোগ দায়ের করলেও কোন কাজ না হওয়ায় ওসির বেপরোয়া ঘুষ বানিজ্যে অতিষ্ট হয়ে অবশেষে ফুঁসে উঠেছে পেকুয়ার বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন। এরই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার পেকুয়া সদরে ওসির অপসারণের দাবীতে মানবন্ধন ও বিােভ মিছিল করেছে সংগঠনগুলো।       পেকুয়া উপজেলার গন মানুষের নেতৃত্বে মানববন্ধন ও বিােভ মিছিলে আসা বিভিন্ন জন অভিযোগ করে বলেন, থানার ওসি মাঈনউদ্দিন আহমদ পেকুয়া থানাকে অনিয়ম-দূর্নীতির স্বর্গরোজ্যে বানিয়ে মামলার বাদী-বিবাদীদের কাছ থেকে ঘুষ আদায় করে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। ঘুষ ছাড়া কোন মামলাই নেয়না ওসি। মামলার পরবর্তী বিবাদীদের ডেকে নিয়ে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে কাউন্টার মামলা গ্রহন করে হয়রানী সহ অহরহ অভিযোগ রয়েছে। ইতিমধ্য ঠিক এই রকম একটি ঘটনা জন্ম দিয়ে বর্তমান ওসি পুরো কক্সবাজারে চাঞ্চল্য ও বির্তকের সৃষ্টি করে।  তাই ওসির অপসারণের দাবীতে তাদের বিভিন্ন সংগঠন পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচীর আলোকে মানববন্ধন ও বিােভ মিছিল করেছে বলে তিনি জানালেন।        এই সাংবাদিক ও সৈনিক লীগের সম্পাদক মোঃ ফারুক বলেন, বিগত কিছু দিন আগে আমার বৃদ্ধ পিতার নিজস্ব ও পৈত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত জমিতে ধান রোপন করার সময় পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে মোঃ ইউসুপের নেতৃত্বে বহিরাগত সন্ত্রাসী ও মহিলারা মিলে এলোপাতাড়ি দা,কিরিচ,লাটি সোটা নিয়ে হামলা শুরু করলে খবর পেয়ে আমি গিয়ে পিতাকে বাচানো চেষ্টা করলে তারা আমার উপর লাটি ও কিল ঘষি পেরে চরম আহত করে। পরবর্তীতে পেকুয়া থানার এস আই শফিকুর রহমান ঘটনাস্থলে গিয়ে তদন্ত  করে ঘটনার সত্যতা পেলে মামলা রেকর্ড করে। তার পর পুলিশের অভিযানে ৩ নং বিবাদী ইউচুফকে পুলিশ গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করে। ঠিক উল্টো ৭ দিন পর বিএনপির এক প্রভাবশালী নেতার কাছ থেকে মোটা অংকের উৎকোচ নিয়ে আমাকে ১নং ও মাতা পিতা বোনদের আসামী করে স্ব-প্রনোদিত হয়ে মামলা রেকর্ড করে চরম হয়রানি শুরু করে। তাতে আমার অসুস্থ্য মাতা ও পিতা ভয়ে বাড়ি ঘর চেড়ে অন্যত্র বসবাস করছে। আমিও এই মিথ্যা মামলায়  ১নং আসামী হওয়ায় সাংবাদিক পেশা থেকে সরে গিয়ে চরম অসহায় জিবন যাপন করছি। যার কারণে আমি আইজি,ডিআইজি সহ আগামী ৩ তারিখ প্রধান মন্ত্রি বরাবর স্মারকলীপি দিয়ে প্রতিহার চাইব।          অন্যদিকে পেকুয়া থানার ওসি এম, মাঈন উদ্দিন আহমদ দূনীতির বিষয় সম্পূর্ন মিথ্যা। তবে ফারুক ও তার পরিবারের  বিরুদ্ধে করা মামলা আমি প্রত্যাহার করব।

বার্তা প্রেরক মোহাম্মদ ফারুক পেকুয়া প্রতিনিধি মোবাইল ০১৮১৫-৩৩৫১৬৭ তাং ২৯-০৮-২০১৩

 

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT