হটলাইন

01787-652629

E-mail: teknafnews@gmail.com

সর্বশেষ সংবাদ

প্রচ্ছদবিনোদন

পাত্র পছন্দ হলেই বিয়ে

টেকনাফ নিউজ ডেস্ক ::   একাধারে মডেল, অভিনেত্রী ও উপস্থাপিকা। তবে গ্র্যাজুয়েশন শেষ করে এখন নাটকে নিয়মিত হয়েছেন শবনম ফারিয়া। তাঁকে নিয়ে লিখেছেন জামিল আশরাফ খান নয়ন  ভীষণ ব্যস্ত! ফোনের অন্য পাশ থেকে জানাচ্ছিলেন ফারিয়া। পরদিন পুরান ঢাকায় নাটকের শুটিং। কিন্তু ঠিক জানেন না কোথায় শুটিং হবে। তানিম রহমান অংশুর ‘দুই অংশের শেষ একটাই’ কোরবানির ঈদে প্রচারিত হবে। দুই দিনেই শুটিং শেষ করতে হবে, তাই প্রেশারটাও একটু বেশিই!

কিছুদিন আগে শেষ করলেন ‘স্বপ্নচোর’-এর কাজ। মিনহাজ আল দীনের টেলিফিল্মটি ঈদে প্রচারের কথা রয়েছে।

টেলিফিল্মে তিনি স্কুলছাত্রী। বাস্তবের ফারিয়া স্কুলের গণ্ডি পেরিয়েছেন আরো আগে। ইংরেজি সাহিত্যে অনার্স শেষ করেছেন।

২০১৩ সালে প্রথম অভিনয়ে নাম লেখান ফারিয়া। আদনান আল রাজীবের টেলিফিল্ম ‘অ্যাট এইটিন : অল টাইম দৌড়ের ওপর’-এ অভিনয় করে সাড়া পেয়েছিলেন ফারিয়া। প্রশংসা পেলেও গত এক বছরে নাটক-টেলিফিল্মে কাজ করেছেন খুব কম। গেল ঈদে রেদওয়ান রনির ‘সুবর্ণপুর বেশি দূরে নয়’ টেলিফিল্মে আবারও প্রশংসিত হলেন। এর পর থেকে নাটক-টেলিফিল্মের কাজ বাড়িয়ে দিয়েছেন। ‘এখন পড়াশোনার চাপ নেই, তাই নাটকে বেশি সময় দিচ্ছি। তবে যা পাই তা-ই করছি না; একটু বেছে কাজ করার চেষ্টা করি। মা-মেয়ে মিলে স্ক্রিপ্ট পড়ি, মায়ের ইতিবাচক ইঙ্গিত পেলেই কাজে সায় দিই।’

ঈদ উপলক্ষে কমল চৌধুরীর সাত পর্বের ধারাবাহিক ‘স্ক্রু ড্রাইভার’-এ কাজ করলেন। এ ছাড়া কাজ করছেন রেদওয়ান রনি ও নেয়ামুল মুক্তার ধারাবাহিক ‘ঝালমুড়ি’তে। ঈদের পর ধারাবাহিকটি এনটিভিতে প্রচার করা হবে।

গত ঈদে প্রায় প্রতিটি চ্যানেলেই উপস্থাপনা করেছেন। কিন্তু আর না! ফারিয়ার ভাষায়, ‘উপস্থাপনা আমার জন্য নয়। এই মুহূর্তে মডেলিং আর অভিনয় নিয়েই ভাবছি।’

মডেলিংয়ে ফারিয়ার শুরু ‘প্রাণ চানাচুর’-এর বিজ্ঞাপন দিয়ে। এরপর প্রায় ১২টি বিজ্ঞাপনে কাজ করেছেন। ছোট পর্দার পাশাপাশি বিলবোর্ডেও উঠেছেন অনেকবার। এ ছাড়া ইমরান ফিচারিং নির্ঝরের ‘আরাধনা’ এবং ফাহমিদা নবী ও লিমনের দুটি গানের ভিডিওতে মডেল হন। র‌্যাম্পেও হেঁটেছেন কয়েকবার।

রক্ষণশীল পরিবারের মেয়ে ফারিয়া। জানালেন, মা-বাবা জোরাজুরি করলে মিডিয়া ছাড়তেও রাজি আছেন। তিন বোনের মধ্যে তিনি সবার ছোট। বড় দুই বোনের সঙ্গে তিনিও ছোটবেলায় গান শিখেছিলেন। এইচএসসি পাস করার আগ পর্যন্ত ভেবেছিলেন সংগীতশিল্পীই হবেন। কিন্তু এইচএসসির পর হঠাৎ করেই মডেল হয়ে গেলেন। মডেলিংয়ে আপত্তি ছিল মা-বাবার। ফারিয়ার জোরাজুরিতে তাঁদের মন কিছুটা গলেছে ঠিক, তবে এখনো তাঁদের মন পুরোপুরি জয় করতে পারেননি। মা-বাবা চান পড়াশোনা শেষ করেই ফারিয়া বিয়ে করুক, তাঁর পছন্দের ছেলেতে তাঁদের সমস্যা নেই। তারপর চাকরি।

তা কী চাকরি করবেন ফারিয়া? ‘হতে পারে এমবাসিতে কাজ করব, না হয় টেলিভিশনে।’

আর বিয়ে? পাত্র কি খুঁজছেন, নাকি রেডিই আছে?

কিছুক্ষণ চুপ করে রইলেন ফারিয়া, তারপর বললেন, ‘প্রেম নিয়ে কিছু বলতে চাই না, পাত্র পছন্দ হলেই বিয়ে করব।’

Leave a Response

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.