টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
রোহিঙ্গারা কন্যাশিশুদের বোঝা মনে করে অধিকতর বন্যার ঝূঁকিপূর্ণ জেলা হচ্ছে কক্সবাজার টেকনাফে মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে ৩০ পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর উপহার জমি ও ঘর হস্তান্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান-মেম্বারদের দায়িত্ব নিয়ে ডিসিদের চিঠি আগামীকাল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন (তালিকা) বাংলাদেশ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধান টেকনাফ উপজেলা কমিটি গঠিত: সভাপতি, সালাম: সা: সম্পাদক: ইসমাইল আজ বিশ্ব শরণার্থী দিবস মিয়ানমারে ফেরা নিয়ে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় রোহিঙ্গারা ব্যাটারিচালিত রিকশা-ভ্যান বন্ধের সিদ্ধান্ত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী শেখ হাসিনা যতদিন আছে, ততদিন ক্ষমতায় আছি: হানিফ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা সবচেয়ে বড় ভুল : ডা. জাফরুল্লাহ

পর্যটকরা দিন দিন আগ্রহ হারাচ্ছে বীচ ম্যানেজমেন্ট কমিটির অব্যবস্থাপনা ও দায়িত্বহীনতার কারনে ইনানী সৈকতের সৌন্দর্য ম্লান হতে বসেছে

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
  • ১১২ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

দীপন বিশ্বাস:::::pic - inani (2) বীচ ম্যানেজমেন্ট কমিটির অব্যবস্থাপনা ও দায়িত্বহীনতার কারনে পর্যটন শহর কক্সবাজারের উখিয়ার ইনানী সী-বিচ এখন ভ্রমণ পিপাসুদের জন্য আনন্দের না হয়ে দুর্ভোগের স্থানে পরিনত হয়েছে। খাস কালেকশনের নামে লাখ লাখ টাকা রাজস্ব আয় করা হলেও ইনানী বীচ উন্নয়নে কোনরকম অর্থ বরাদ্দ না দেওয়ায় আজ ইনানী সৈকতের সৌন্দর্য ম্লান হতে বসেছে। সাগরে নামার পথে ময়লাযুক্ত কাঁদা মাটি, চারপাশে ময়লা-আর্বজনার স্তুপ পার হয়ে ইনানী বীচে নামতে গিয়ে পর্যটকরা মারাত্মক দুর্ভোগের শিকার হওয়ায় চরম অসন্তোষ প্রকাশ করেছে। এতে করে দেশী-বিদেশী পর্যটকরা ইনানী সী-বিচ থেকে মুখ ফিরিয়ে নেবে এমন অভিমত সচেতন মহলের। জানা যায়, একটু বৃষ্টি হলে পুরো পথটি জলাবদ্ধতা হয়ে ময়লাযুক্ত হয়ে চলাচল অনুপযোগী হয়ে উঠে। চিত্ত বিনোদন ও প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে এসে এ ধরনের পরিস্থিতির শিকার হওয়ায় পর্যটকরা অনিহা প্রকাশ করতে দেখা গেছে। বীচের চারপাশ জুড়ে ময়লা-আর্বজনার স্তুপ। সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা যায়, কক্সবাজার জেলা প্রশাসন খাস কালেকশনের নামে প্রতিমাসে ১০ হাজার টাকা ইনানী বীচ থেকে রাজস্ব আয় করে থাকে। যার স্মারক নং-১০০৬। তারিখ ৬-২-২০১৩ইং। খাস কালেকশনকারী রুহুল আমিন জানান গাড়ী পার্কিং ও অন্যান্য খাত থেকে প্রতি মাসে ১০ হাজার টাকা সোনারপাড়া ভুমি অফিসে জমা দেওয়া হয়। স্থানীয়দের অভিযোগ পর্যটকদের কাছ থেকে টাকা আদায় করলে ও ইনানী বীচ উন্নয়নে জেলা বীচ ম্যানেজমেন্ট কমিটি কোন পরিকল্পনা গ্রহন করেনি। জেলা প্রশাসনের অব্যবস্থাপনা ও খামখেয়ালীর কারনে ইনানী বীচের এ অবস্থা। এ প্রসঙ্গে উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকতা মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, জেলা বীচ ম্যানেজমেন্ট কমিটি সবকিছু দেখে ভাল করে। ইনানী বীচটি টেন্ডারের মাধ্যমে ইজারা দেওয়া চুড়ান্ত শেষ পর্যায়ে রয়েছে। ইজারা দেওয়ার পর এই বীচটি উন্নয়ন খাতে আনা সম্ভব হবে। তিনি আরও বলেন ইনানী বীচের পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা, পয়নিষ্কাশন, বিশুদ্ধ পানি সরবরাহ সহ ইত্যাদি সমস্যার কথা বীচ ম্যানেজমেন্ট কমিটির কাছে প্রেরন করা হয়েছে। সুশীল সমাজের মতে ইনানী বীচে ভ্রমনে আসা দেশীবিদেশী পর্যটকদের কোন রকম চিত্ত-বিনোদনের সুযোগ সুবিধা, অবকাঠামোর ব্যবস্থা নেই। এ অবস্থা চলতে থাকলে অচিরেই ইনানী পর্যটন শুন্য হয়ে পড়বে। অথচ বীচ ম্যানেজমেন্ট কমিটি ইনানী বীচ থেকে প্রতি বছর ল ল টাকা রাজস্ব আয় করলেও এক টাকাও খরচ বা ব্যয় করছে এমন দৃশ্যমান নেই। ##

দীপন বিশ্বাস নিজস্ব সংবাদদাতা,উখিয়া ০১৮১৮৫৪০০৫৮

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT