টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

নেজামে ইসলাম পার্টি ও ইসলামী ঐক্যজোটের ইফতার মাহফিল

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শুক্রবার, ১৯ জুলাই, ২০১৩
  • ১২৩ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

Cox Nejame islam 03বার্তা পরিবেশক:::::বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টি ও ইসলামী ঐক্যজোট কক্সবাজার জেলা শাখার বিশিস্টজনদের সম্মানে আয়োজিত ইফতার মাহফিলে বক্তাগণ বলেছেন, ‘হযরত মুসার (আ.) জমানায় ফেরাউন যেমন ইসলামের কর্মকান্ডকে ‘বিপর্যয় সৃষ্টি’ বলে আল্লাহর অস্থিত্বকে অস্বীকার করেছিল তেমনি বাংলাদেশেও শাসক দলের কণ্ঠেও ফেরাউনের সেই বাণী শোনা যাচ্ছে। যারা ইসলামের কথা বলে, যারা ঈমানের কথা বলে তাদেরকেই বলা হচ্ছে, ‘বিপর্যয় সৃষ্টিকারি!’ বক্তাগণ বলেন, ‘বর্তমানে মুক্তিযুদ্ধকে ইসলামের বিরুদ্ধে, ইসলামকে মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে দাঁড় করিয়ে দেয়া হয়েছে।’ তবে বক্তাগণ বলেন, ‘অন্ধকারের পরেই আলোর দেখা মেলে! সেই সুবেহ সাদেক আর বেশি দূরে নয়! তাই সকলকে এই সরকারের বিরুদ্ধে ইস্পাত কঠিন ঐক্য সৃষ্টি করতে হবে।’ বৃহস্পতিবার বিকালে কক্সবাজার শহরের একটি আবাসিক হোটেলের রেষ্টুরেন্টে এই ইফতার মাহফিলের আয়োজন করা হয়। নেজামে ইসলাম পার্টি ও ইসলামী ঐক্যজোটের জেলা সভাপতি মাওলানা হাফেজ ছালামত উল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্টিত এই মাহফিলে প্রধান অতিথি ছিলেন কক্সবাজার-৩ (সদর-রামু) আসনের সংসদ সদস্য লুৎফুর রহমান কাজল। এছাড়াও অনুষ্টানে বিশেষ অতিথি ছিলেন কক্সবাজার জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সাংসদ শাহজাহান চৌধুরী, খেলাফত মজলিস জেলা আমীর মাওলানা হাফেজ নুরুল আলম আল মামুন, জেলা জামায়াতে ইসলামির এসিস্টেন্ট সেক্রেটারি এডভোকেট ফরিদ উদ্দিন ফারুকী, পৌর বিএনপির সভাপতি রফিকুল হুদা চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা নেজামে ইসলাম পার্টির সিনিয়র সহ-সভাপতি মাওলানা আ. হ. ম. নূরুল কবির হিলালী। প্রধান অতিথি লুৎফুর রহমান কাজল এমপি বলেন, ‘বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকেই দেশে প্রতিহিংসা ও প্রতিশোধের রাজনীতি শুরু হয়েছে। আমরা জানি না, এই প্রতিহিংসা ও প্রতিশোধের রাজনীতি আমাদের কতদিন বহন করতে হবে।’ তিনি বলেন, ‘দেশে বিভক্তি থাকলে সেই দেশ কখনো উন্নতি করতে পারে না। বিভিন্ন দেশে যে কোন আন্দোলন ও নির্বাচনে দুইটি পক্ষ থাকে। কিন্তু নির্বাচনের পর সেই দুইপক্ষই এক হয়ে দেশের জন্য কাজ করে। কিন্তু আমাদের দেশে সেই সংস্কৃতি এখন আর নেই।’ বিশেষ অতিথি শাহজাহান চৌধুরী বলেন, ‘দেশে এখন যে পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে তাতে এই সরকারকে নামাতে আমাদের ইস্পাত কঠিন ঐক্য সৃষ্টি করতে হবে। তবে বদমেজাজি হলে চলবে না। হতে হবে কৌশলি।’ ইসলামী ঐক্যজোটের সভাপতি মাওলানা হাফেজ ছালামত উল্লাহ বলেন, ‘মাহে রমজান কোরআন নাযিলের মাস। রমজানের শিক্ষায় উজ্জীবিত হয়ে কোরআন সুন্নাহর আলোকে সমাজ বিনির্মাণে সকলকে প্রত্যয়ী হতে হবে।’ তিনি মোনাজাতও পরিচালনা করেন। নেজামে ইসলাম পার্টির জেলা সাধারণ সম্পাদক মাওলানা ইয়াসিন হাবিবের পরিচালনায় অনুষ্টিত এই মাহফিলে রমজানের তাৎপর্যের উপর বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার ইসলামী সাহিত্য ও গবেষণা পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক ড. মাওলানা নুরুল আবছার। তিনি বলেন, ‘রমজান মাসেই আল্লাহ তাঁর সব কিতাব অবতীর্ণ করেছেন। কোরআন যেমন রমজানে নাযিল হয়েছে তেমনি ৬ রমজান তৌরাত, ১৮ রমজান যবুর ও ১২ রমজান ইঞ্জিল নাযিল হয়েছে।’ তিনি বলেন, প্রত্যেক নবীর উম্মতের জন্য রমজান ফরজ করা হয়েছিল। মুসলমানদের জন্য ৩০টি রোজা ফরজ করা হয়েছে। বাইবেলেও ৪০টি রোজার উল্লেখ আছে। এছাড়াও অন্য নবীদের উম্মতের জন্য ৩টি রোজা ফরজ ছিল।’ অনুষ্টানে আরও বক্তব্য রাখেন রাজারকুল আজিজুল উলুম মাদ্রাসার নির্বাহী পরিচালক মাওলানা মোহছেন শরীফ, জেলা ইসলামী ছাত্র সমাজের সভাপতি হাফেজ মুহাম্মদ আবুল মঞ্জুর। বিশিষ্টজনদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন হ্নীলা জামেয়া দারুচ্ছুন্নাহর নির্বাহী পরিচালক মাওলানা আফছার উদ্দিন চৌধুরী, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি সরওয়ার কামাল, জেলা ইসলামী আন্দোলনের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য মাওলানা হাফেজ হারুন, দৈনিক সৈকত সম্পাদক মাহবুবর রহমান, সাংবাদিক ফজলুল কাদের চৌধুরী, পৌর কাউন্সিলর আশরাফুল হুদা সিদ্দিকী জামশেদ, হেফাজতে ইসলামের কক্সবাজার পৌর সভাপতি মাওলানা হাফেজ মুবিনুল হক, সহ-সভাপতি মাওলানা মনজুরে ইলাহী, খুুরুস্কুল তালিমুদ্দিন মাদ্রাসার পরিচালক মাওলানা মুফতি এমদাদুল্লাহ, শহর খেলাফত মজলিসের সভাপতি এরশাদুল হক আরমান, জেলা ইসলামী ছাত্র সমাজের সাবেক সভাপতি এম. নুরুল হক চকোরী, ইসলামী ছাত্র সমাজের জেলা সহ-সভাপতি এম আলী আকবর, সাংগঠনিক সম্পাদক হাফেজ সাইফুল ইসলাম প্রমূখ।

সংবাদ প্রেরক মাওলানা ইয়াসিন হাবিব সাধারণ সম্পাদক বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টি, জেলা শাখা।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT