টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
টেকনাফে ৪ প্রতিষ্ঠানকে অর্থদন্ড টেকনাফ হাসপাতালে ‘মাল্টিপারপাস হেলথ ভলান্টিয়ার প্রশিক্ষণ’ বান্দরবানে রোহিঙ্গা ‘ইয়াবা কারবারি বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত রামুতে পাহাড় ধসে ২ জনের মৃত্যু দেশের ১০ অঞ্চলে আজ ঝড়বৃষ্টি হতে পারে মাধ্যমিকে বার্ষিক পরীক্ষা হচ্ছে না: গ্রেডিং বিহীন সনদ পাবে জেএসসি-জেডিসি পরীক্ষার্থীরা যুক্তরাষ্ট্রের উদ্যোগে রোহিঙ্গা বিষয়ক বৈঠক বৃহস্পতিবার মেজর সিনহা হত্যা মামলা বাতিল চাওয়া আবেদনের শুনানি ১০ নভেম্বর মোবাইল ব্যাংকিংয়ে ক্যাশ আউট চার্জ কমানোর উদ্যোগঃ নগদ’এ ক্যাশ আউট হাজারে ৯.৯৯ টাকায় ড্রাইভিং লাইসেন্সের লিখিত পরীক্ষার স্ট্যান্ডার্ড ৮৫টি প্রশ্ন

নীলা জামেয়া দারুসসুন্নাহ মাদ্রাসায় ইউএনওর নেতৃত্বে অভিযান – বিপুল পরিমান কাপড়সহ আটক-১, অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশ মোতায়েন

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৯ জুন, ২০১২
  • ৩১৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

হুমায়ুন রশিদ/সাইফুল ইসলাম চৌধুরী,টেকনাফ..
কক্সবাজার সদর থানার একদল পুলিশ গোপঁন সংবাদের ভিত্তিতে হোটেল পালংক্যিতে বৈঠককালে ৭জন আটক হওয়ার জেরধরে টেকনাফ ইউএনও-র নেতৃত্বে প্রশাসন নীলা জামেয়া দারুসসুন্নাহ মাদ্রাসায় অভিযান চালিয়ে রোহিঙ্গাদের জন্য সংরক্ষণ করা বিপুল পরিমাণ কাপড়সহ ১ নুরানী শিক্ষককে আটক  করেছে। উল্লেখ্য মাওলানা আফসার উদ্দিন আটক হওয়ার আগের রাতে মাদ্রাসার উত্তরের গেইট দিয়ে ৬৫ বস্তা বিভিন্ন সরঞ্জামাদি মাদ্রাসার নুরানী কেজিতেঢুকিয়ে রাখে। পরে পুলিশের হাতে মৌলানা আফসার উদ্দিন আটক হওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে ১৮জুন গভীর রাতে বেশীরভাগ মালামাল সরিয়ে নেওয়া হয়। তার এ কাজের অন্যতম সহযোগী হচেছ মৌলভী আব্দু শুক্কুর ও কতিপয় রোহিঙ্গা বিদ্রোহী গ্র“পের নেতা। তাদের যোগ-সাজশে রোহিঙ্গাদের সংগঠিত করে স্বার্থের জন্য ব্যবহার করা হয়।

সুত্রে জানাযায়-১৯জুন সকাল সাড়ে ১০টারদিকে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আ.ন.ম নাজিম উদ্দিন ,গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তা ও সদস্য এবং পুলিশের সমন্বয়ে একটি টিম নীলা আল-জামেয়া দারুসসুন্নাহ মাদ্রাসায় অবস্থান করেন। উক্ত মাদ্রাসার শিক্ষকদের সাথে রোহিঙ্গাদের আশ্রয়-প্রশ্রয় ও মদদ না দেওয়ার আহবান জানিয়ে একটি বৈঠক করা হয়। এরপর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উক্ত মাদ্রাসার নুরানী কেজি বিভাগে অভিযান চালিয়ে রোহিঙ্গাদের জন্য মওজুদ রাখা বিপুল পরিমাণ কাপড় জব্দ করা হয়। এ ব্যাপারে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শিক্ষক মাওলানা নুরুল হুদাকে আটক করা হয়। সচেতনমহল রাতের আঁধারে কারা এসব মালামাল খালাস করিয়েছে তা বের করার জন্য মাদ্রাসার নাইটগার্ড ও দায়িত্বশীলদের আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে আসল তথ্য বেরিয়ে আসবে জানায়।

এ ঘটনায় মৌলানা আফসার আটক হওয়ায় তার অতীত অপকর্ম নিয়ে আলোচনা চলছে। বিভিন্ন সুত্র থেকে প্রাপ্ত তার দুর্নীতি ও অনিয়ম হল শাহ আবুল মঞ্জুর ফকির হুজুরের পাসপোর্ট চুরি ও পাকিস্তানী দাতা হাজী মুহাম্মদ হোছনের প্রদত্ত প্রস্রাব খানা নির্মাণের টাকা আতœসাৎ , সৌদি শেখ আসাদ সালেহের দেওয়া ৪টি মসজিদ নির্মাণ ও খতনার জন্য,দেওয়া টাকা আতœসাৎ , থাইল্যান্ড প্রবাসী জনৈক বাবুর দেওয়া ইফতারী ও শিক্ষক-কর্মচারীদের জন্য মোট প্রেরিত ইউএস ডলার হতে জাফরের খরচ দেখিয়ে আতœসাৎ , প্রতিবছর আরব-আমিরাতে চাঁদা করতে গিয়ে ২/১টি রসিদ বই হারিয়েছে বলে গায়েব করে ফেলা ,মাদ্রাসার চাষযোগ্য ৫কানি নালজমি প্রতিবছর লাগিয়ত টাকা আতœসাৎ , পশ্চিম পানখালী জামে মসজিদের মোজাইক করার জন্য প্রেরিত টাকা কাজ না হয়ে হাওয়া হয়ে যাওয়া , ক্ষমতার অপব্যবহার করে তিনি বছরের  বেশীরভাগ সময় বাহিরে থাকলেও হঠাৎ একদিন এসে মাদ্রাসার হাজিরা খাতায় স্বাক্ষর লিখে দেন। মাদ্রাসার কাজে টাকা খরচ করলে তৎক্ষনাদ ভাউচারমুলে হিসাব দেওয়ার নিয়ম থাকলেও তিনি ২/৫মাস পরে হিসাব দাখিল করেন। যা তহবিল তছরুফের নামান্তর , বিগত উপজেলা নির্বাচনে বিনা অনুমতিতে ২/৩ মাস মাদ্রাসার বাইরে সময় ব্যয় করার পরও বেতন-ভাতা উত্তোলন করেন যা জায়েজ হবে কি না সন্দেহ! , এছাড়া এনসিসি ব্যাংকে  ব্যাংক-ব্যালেন্স, কলাতলীতে রম্যপ্রসাদ বাড়ী কোথা হতে এলো , নিজের এসব অপকর্ম জায়েজ করার জন্য মাদ্রাসা পরিচালনা ও শুরা কমিটিতে পছন্দের লোকজন বসিয়ে দিয়ে নিজের গদি অক্ষত রাখে। এ ছাড়া জনৈক মৌলভী ইসহাকের স্ত্রীর সঙ্গে অবৈধ সম্পর্কের কারণে মামলা-মোকদ্দমা মাদ্রাসার ভাবমূর্তিকে ভুলুন্টিত করেছে। মাকে ছিনিয়ে নিয়ে এতিম করেছে ৩ছেলে-মেয়েকে। এতকিছুর পরও মাদ্রাসা উপ-পরিচালকের পদে বহাল থাকতে মরিয়া হয়ে পড়ে। তার আচরণে অতিষ্ঠ ছাত্ররা গত ১০ জানুয়ারী উক্ত মাদ্রাসায় আন্দোলন করলে প্রায় ১মাস মাদ্রাসা বন্ধ হয়ে যায়। বর্তমানে সে আবর-আমিরাতের পার্মেনেন্ট ভিসা নিয়ে আছে। রোহিঙ্গাদের মানবিক সহায়তার নামে যেখানে ইচছা চষে বেড়াচেছ।

স্থানীয় সচেতনমহল মনে করছে রোহিঙ্গাদের সহায়তার নামে মাথায় তুলে রোহিঙ্গাদের পুতুল বানিয়ে রাখা ঠিক হবেনা। তাদের স্বাধীকার আদায়ের বিষয়ে নিজদেশে  রোহিঙ্গাদের প্রতিষ্ঠিত হতে হবে বলে মত প্রকাশ করেন।

##############

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT