টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
মৌলবাদী ফতোয়াবাজরা ফতোয়া দিয়ে সমাজে অস্থিরতা তৈরি করছেঃ তথ্যমন্ত্রী জুমার দিনে মুসলিমদের জোরপূর্বক শূকরের মাংস খাওয়াচ্ছে চীন কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের নবনির্বাচিত ধর্ম সম্পাদকের সাথে হ্নীলা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সৌজন্য সাক্ষাৎ টেকনাফ—উখিয়ায় বিদ্যুৎ থাকবেনা ফ্রান্সে ৪৩টি মসজিদ বন্ধ আরো ৭৬টি মসজিদ বন্ধকরে দিতে পারে চট্টগ্রাম থেকে জাহাজে করে ভাসানচরে প্রথম পা রাখল ১৬৪২ রোহিঙ্গা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে চান ভাস্কর্যবিরোধীরা গোলকিপার জিকুর পাশে মানবপ্রেমিক গরীবের বন্ধু তারুণ্যের মানবিক ছাত্র নেতা শাওন আরমান প্রাথমিকের বই ২৭ ডিসেম্বরের মধ্যে বিদ্যালয়ে পৌঁছে দেওয়ার সুপারিশ ক্ষমা চাইলেন মাওলানা জিয়াউল হাসান

নভেম্বরে ঘূর্ণিঝড়ের পূর্বাভাস

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : সোমবার, ২ নভেম্বর, ২০২০
  • ৫১৫ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

নভেম্বরে সাগরে দুয়েকটি নিম্নচাপ সৃষ্টি হতে পারে, যার মধ্যে একটি ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নিতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

সোমবার চলতি মাসের আবহাওয়ার দীর্ঘমেয়াদী পূর্বাভাসে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক শামসুদ্দিন আহমেদ জানান, এ মাসে দিনের ও রাতের তাপমাত্রা ধীরে ধীরে কমবে। তবে গড় তাপমাত্রা স্বাভাবিক থাকবে।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে তিনি বলেন, “নভেম্বরে স্বাভাবিকের চেয়ে একটু বেশি বৃষ্টিপাত হতে পারে। বঙ্গোপসাগরে দুয়েকটি নিম্নচাপ সৃষ্টি হতে পারে; যার মধ্যে একটি ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে।”

গেল মাসে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টিপাত হয়েছে। ১ ও ২০ অক্টোবর সাগরে লঘুচাপ সৃষ্টি হয়। এরমধ্যে তা ঘনীভূত হয়ে দুটি নিম্নচাপও হয়েছে।

নভেম্বরের প্রথমদিনও লঘুচাপ ছিল। সাগরে তিন নম্বর সতর্কতা দেখাতে বলে। সোমবার সতর্ক সংকেত নামিয়ে ফেলতে বলা হয়।

আবহাওয়াবিদরা বলছেন, নভেম্বর মাসে রাতের তাপমাত্রা কমতে থাকবে। ডিসেম্বরের শেষার্ধে দেশের উত্তর, উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে।

হেমন্তে সন্ধ্যা-রাত ও ভোরে কুয়াশা থাকা বা হালকা বৃষ্টি অস্বাভাবিক কিছু নয়। নভেম্বর মাসের মাঝামাঝি সময়ে শীতালু ভাব বাড়বে। সে সময় উত্তুরে হাওয়া না বইলেও মধ্য কার্তিকে ঝিরঝিরে বৃষ্টি থাকলে শীতের অনুভূতি বাড়িয়ে দেয়।

জানতে চাইলে আবহাওয়াবিদ শাহনাজ সুলতানা জানান, অক্টোবর-নভেম্বরে এ ধরনের লঘুচাপ সৃষ্টি হয়। এ সময় ঘূর্ণিঝড়েরও শঙ্কা থাকে।

তিনি জানন, কয়েকদিন বৃষ্টিও ছিল। তা কেটে গেছে। ইতোমধ্যে শীতের অনুভূতিও বাড়ছে। ডিসেম্বরে শীতের আবহ বিরাজ করবে স্বাভাবিকভাবে।

৩১ অক্টোবর দেশের সবনিম্ন তাপমাত্রা ছিল তেঁতুলিয়ায় ১৬ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT