টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!

নতুন সংসদ সদস্য মুখ খুঁজছে আ’লীগ

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৩ আগস্ট, ২০১৩
  • ২১০ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

amamelik flagআগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী মনোনয়নের বিষয়ে কঠোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।  কষ্টি পাথরে ঘষে ন্যূনতম মানদণ্ড নিশ্চিত না হলে মনোনয়ন পাবেন না বর্তমান সংসদ সদস্যরা। ফলে গত সংসদ নির্বাচনের মতোই বেশ কিছু আসনে আবারো নতুন মুখ খুঁজতে হচ্ছে আওয়ামী লীগকে।

আগামী নির্বাচনে দলীয় পরাজয় এড়াতে নতুন ও পরিষ্কার ইমেজের নেতাদের মনোনয়ন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মূলত পাঁচ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভরাডুবির পর এ বিষয়ে টনক নড়ে আওয়ামী লীগের।

যেসব সংসদ সদস্যদের সঙ্গে তৃণমূল আওয়ামী লীগের সর্ম্পক ভালো নেই, যাদের এলাকায় জনপ্রিয়তা কোমায় নেমে গেছে তাদের মনোনয়ন দেবে না ক্ষমতাসীন দলটি। ফলে এ সরকারের বিগত সময়ে যেসব সংসদ সদস্য আরাম-আয়েশ করেছেন ও শুধু নিজেদের আখের গোছাতে ব্যস্ত ছিলেন, তারা আতঙ্কে রয়েছেন।

বাদ যেতে পারে এমন সংসদ সদস্যদের এলাকায় ক্লিন ইমেজের নতুন নেতৃত্বকে মনোনয়ন দেওয়া হবে। এক্ষেত্রে তৃণমূলের সঙ্গে ভালো সর্ম্পক আছে,  এমন নেতারাই অগ্রাধিকার পাবেন। গত সংসদ নির্বাচনে যারা মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন কিন্তু অযোগ্যতার কারণে মনোনয়ন পাননি তারা এবারও বাদ যাবেন। শুধু বাছাই করা নেতৃত্বই পাবেন আগামী দিনের মনোনয়ন।

উল্লেখ্য, ২০০৮ সালের বিগত সংসদ নির্বাচনেও আওয়ামী লীগ অধিকাংশ ক্ষেত্রে তরুণদের মনোনয়ন দিয়েছিল। যদিও তাদের অধিকাংশই আশানুরূপ পারফরম্যান্স দেখাতে ব্যর্থ হয়েছেন। হতাশ হতে হয়েছে আওয়ামী লীগকে।

কারা আগামী সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন পাওয়ার যোগ্য তা যাচাই করতে সরকারি গোয়েন্দা সংস্থার পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী ও দলের নীতিনির্ধারণী মহল থেকে চালানো হয়েছে বিশেষ জরিপ।  কয়েক দফায় চালানো হয়েছে এসব জরিপ কাজ। আগামীতে আরো দুই একবার জরিপ চালানো হবে বলে দলের দায়িত্বশীল সূত্রে জানা গেছে।

সর্বশেষ জরিপ অনুযায়ী, ৩০০ আসনের মধ্যে ১৫০ আসনে আওয়ামী লীগ সংসদ সদস্যদের অবস্থা মোটামুটি ভালো। ৭০-৮০ জন সংসদ সদস্যের অবস্থা খুবই খারাপ। এর মধ্যে ২০ জনের মতো একেবারেই জনবিচ্ছিন্ন। বাকি আসনগুলোর অবস্থাও খুব একটা সুবিধের নয়।

গোয়েন্দা সংস্থার বাইরে সমাজের বিশিষ্ট ব্যক্তি, সাবেক ও বর্তমান আমলা,  সাবেক ও বর্তমান বিভিন্ন পর্যায়ের নেতা, বুদ্ধিজীবী, আইনজীবীসহ বিভিন্ন পেশাজীবীদের মতামতের ভিত্তিতে এসব জরিপ চালানো হয়েছে। এছাড়াও একটি বিদেশির এনজিওর মাধ্যমে একটি জরিপ চালানো হয়েছে।

এসব জরিপের মাধ্যমে সংসদ সদস্যদের অবস্থান জানার চেষ্টা করা হয়েছে। তাদের সঙ্গে জনগণের সর্ম্পক কেমন, নেতাকর্মীদের সর্ম্পক ও সংসদ সদস্যরা দুর্নীতি-সন্ত্রাসসহ কোনো অপকর্মে জড়িত কিনা সেসব বিষয় জানার চেষ্টা করা হয়েছে। সংসদ সদস্যদের ব্যক্তিগত কর্মকাণ্ডের মূল্যায়নের মাধ্যমে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এদিকে যেসব সংসদ সদস্যের অবস্থা ভালো নয়, তারা আগামী নির্বাচনে মনোনয়ন পাওয়া, না পাওয়া নিয়ে আতঙ্কে রয়েছেন। তাদের মধ্যে অনেকে আঁচ করতে পারছেন নিজেদের নাজুক অবস্থার কথা। সংসদ সদস্যদের মধ্যে ৫০ শতাংশই আগামীতে মনোনয়ন নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন।

দলীয় সূত্র জানায়, ঈদের পর আবারো জরিপ চালানো হবে। সবশেষে নির্বাচনের আগে চূড়ান্ত যাচাই-বাছাইয়ের মাধ্যমে মনোনয়ন দেওয়া হবে আগামী নির্বাচনের জন্য।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য নূহ-উল আলম লেনিন ববলেন, যাদের ইমেজ ভালো, স্বচ্ছ ও যোগ্য তাদের মনোনয়ন দেওয়া হবে। এক্ষেত্রে নতুনরাও আসতে পারেন, গত নির্বাচনে যারা মনোনয়ন পেয়েছেন তাদের মধ্যে থেকেও পেতে পারেন। সম্ভাব্য সব বিষয় বিবেচনা করে সঠিক ব্যক্তিকে মনোনয়ন দেওয়ার চেষ্টা করা হবে।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT