টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
বাহারছড়া শামলাপুর নয়াপাড়া গ্রামের “হাইসাওয়া” প্রকল্পের মাধ্যমে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ ও বার্তা প্রদান প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঘর উদ্বোধন উপলক্ষে টেকনাফে ইউএনও’র প্রেস ব্রিফ্রিং টেকনাফের ফাহাদ অস্ট্রেলিয়ায় গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রী সম্পন্ন করেছে নিখোঁজের ৮ দিন পর বাসায় ফিরলেন ত্ব-হা মিয়ানমারে পিডিএফ-সেনাবাহিনী ব্যাপক সংঘর্ষ ২শ’ বাড়ি সম্পূর্ণ ধ্বংস বিল গেটসের মেয়ের জামাই কে এই মুসলিম তরুণ নাসের রোহিঙ্গাদের এনআইডি কেলেঙ্কারি : নির্বাচন কমিশনের পরিচালকের বিরুদ্ধে দুপুরে মামলা, বিকালে দুদক কর্মকর্তা বদলি সড়কের কাজ শেষ হতে না হতেই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং! আপনি বুদ্ধিমান কি না জেনে নিন ৫ লক্ষণে ৫৫ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশি ভোটার: নিবন্ধিত রোহিঙ্গাও ভোটার! ইসি পরিচালকসহ ১১ জন আসামি

ধরা পড়ছে প্রচুর চিংড়ি: ঈদগাঁওতে লাভের মুখে চিংড়ি চাষ শিল্প

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৩
  • ১২১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

Image-Eidgah-Aআতিকুর রহমান মানিক, ঈদগাঁও:::কক্সবাজার সদর উপজেলার বৃহত্তর ঈদগাঁওতে অবশেষে লাভের মুখ দেখতে শুরু করেছে বাগদা চিংড়ি চাষী ও খামারীরা। ইতোপূর্বে প্রাকৃতিক দূর্যোগ ও ভাইরাস জনিত কারণে কিছু কিছু ঘেরে লোকসান হলেও এখন ক্ষতি পুষিয়ে মুনাফা অর্জনের দিকে এগোচ্ছে চিংড়ি চাষ ও উৎপাদন শিল্প। বৃহত্তর ঈদগাঁও’র অন্তর্গত উপকূলীয় ইউনিয়ন ইসলামপুর, পোকখালী, চৌফলদন্ডী ও ভারুয়াখালীর শতাধিক চিংড়ি খামারে এখন চলছে পুরোদমে চিংড়ি আহরণ, বিক্রি ও সরবরাহ। খামারের পানি নির্গমন ও নিস্কশন গেইটে জাল বসিয়ে ও ঝাঁকি জালের সাহায্যে চিংড়ি আহরণ করা হচ্ছে রাত-দিন। ডিপো মালিক, প্রক্রিয়াজতকরণ কারখানা ও রপ্তানী কারকদের কাছে মানসম্মত চিংড়ির বিপুল চাহিদার প্রেক্ষিতে চলতি মৌসুমে চিংড়ির দাম বেশী। বর্তমানে প্রতি কেজি বাগদা চিংড়ি আকারভেদে ৬০০ থেকে ১২০০ টাকায় ক্রয়  করে নিচ্ছে প্রক্রিয়াজতকারী কারখানা ও রপ্তানিকারকরা। লবণ উৎপাদন মৌসুম শেষে বিগত মে/জুন মাসে উপকূলীয় এসব ঘেরে চিংড়ি চাষ শুরু হয়। সমুদ্রের লবণাক্ত পানি ঢুকিয়ে খামার প্রস্তুতির পরে চিংড়ি চাষের প্রাথমিক প্রক্রিয়া আরম্ভ করা হয়। এর পর পোনামজুদ, মজুদকৃত পোনা নার্সিং, একমাস নার্সিং শেষে মূল খামারে পোনা অবমুক্ত করণ ও ঘেরে প্রতিপালনসহ বিভিন্ন ধাপ অতিক্রম করে এখন আহরণযোগ্য হয়েছে বাগদা চিংড়ি। চিংড়িচাষ বিষয়ক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ক্রিসেন্ট এ্যাকোয়া কনসালটেন্সি সূত্রে জানা গেছে, খামারে চাষকৃত বাগদা চিংড়ি এখন সাব-এডাল্ট ও এডাল্ট পর্যায়ে রয়েছে। তাই আহরণের মূল সময় এখনই। সদরের গোমাতলীর খামার মালিক হান্নান মিয়া বলেন, চলতি পূর্নিমা তিথিতে রাত ও দিনে জোয়ারে সময় ঘেরের হার্ভেষ্টিং পয়েন্টে প্রচুর চিংড়ি ধরা পড়ছে। বাগদা ছাড়াও লইল্যা, চাগা ও বদালী ইছাসহ বিভিন্ন প্রজাতির চিংড়ি পাওয়া যাচ্ছে। আন্তর্জাতিক মৎস্য গবেষনা প্রতিষ্ঠান ওয়ার্ল্ড ফিস’ র কক্সবাজারস্থ ল্যাবরেটরি ম্যানেজার পার্থপ্রতিম দেবনাথ বলেন, পলিমারাল চেইন রি-এ্যাকশন পদ্ধতিতে পরিক্ষিত পিসিআর নেগেটিভ পোনা ঘেরে মজুদ করলে হোয়াইট স্পট ভাইরাস সিনড্রম মুক্ত বাগদা চিংড়ি উৎপাদন সম্ভব। ইউরোপ, আমেরিকা, মধ্যপ্রাচ্য ও অষ্ট্রেলিয়াসহ বিশ্বব্যাপী ভোক্তাদের কাছে বাংলাদেশে উৎপাদিত হিমায়ীত চিংড়ি ব্যাপক সমাদৃত। কক্সবাজার সদর উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা ড. মঈন উদ্দিন আহমদ জানান, চলতি মৌসুমে সদর উপজেলার ২৭১৭ হেক্টর জমিতে বাগদা চিংড়ি চাষ হচ্ছে।

 

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT