টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখা সবচেয়ে বড় ভুল : ডা. জাফরুল্লাহ মাদক কারবারি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত সাংবাদিক আব্দুর রহমানের উদ্দেশ্যে কিছু কথা! ভারী বৃষ্টির সতর্কতা, ভূমিধসের শঙ্কা মোট জনসংখ্যার চেয়েও ১ কোটি বেশি জন্ম নিবন্ধন! বাড়তি নিবন্ধনকারীরা কারা?  বাহারছড়া শামলাপুর নয়াপাড়া গ্রামের “হাইসাওয়া” প্রকল্পের মাধ্যমে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ ও বার্তা প্রদান প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঘর উদ্বোধন উপলক্ষে টেকনাফে ইউএনও’র প্রেস ব্রিফ্রিং টেকনাফের ফাহাদ অস্ট্রেলিয়ায় গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রী সম্পন্ন করেছে নিখোঁজের ৮ দিন পর বাসায় ফিরলেন ত্ব-হা মিয়ানমারে পিডিএফ-সেনাবাহিনী ব্যাপক সংঘর্ষ ২শ’ বাড়ি সম্পূর্ণ ধ্বংস বিল গেটসের মেয়ের জামাই কে এই মুসলিম তরুণ নাসের

ঢাকায় সব ধরনের সভা-সমাবেশ নিষিদ্ধ

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : শনিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৩
  • ১৩১ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

23_BNP_Pআগামী ২৫ অক্টোবর দুই প্রধান দলের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি নিয়ে মানুষের মধ্যে উৎকণ্ঠার মধ্যে রাজধানীতে সব ধরনের মিছিল-সমাবেশে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে পুলিশ।

রোববার সকাল ৬টা থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত এই নিষেধাজ্ঞা বহাল থাকবে বলে ঢাকা মহানগর পুলিশের উপকমিশনার মাসুদুর রহমান ডটকমকে জানিয়েছেন।

“ডিএমপি অধ্যাদেশের ২৮ এবং ২৯ নম্বর ধারার ক্ষমতা বলে পুলিশ কমিশনার বেনজির আহমেদ আগামীকাল সকাল ৬টা থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত ঢাকা মহানগরীতে সব ধরনের সভা, সমাবেশ, মিছিল ও মানববন্ধন নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছেন।”

আওয়ামী লীগ, বিএনপিসহ ১২টি দল ও সংগঠন ২৫ অক্টোবরসহ আগের কয়েকদিনে সমাবেশের অনুমতি চেয়ে পুলিশের কাছে আবেদন করেছিল।

রোববার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে পেশাজীবী সংগঠনের এক সমাবেশে খালেদা জিয়ার যোগ দেয়ার কথা রয়েছে, তাও নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়ছে বলে পুলিশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

অন্তর্ঘাতমূলক তৎপরতা ঘটিয়ে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি করার আশঙ্কা থেকে এই নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন মহানগর পুলিশের যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম।

তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর  ডটকমকে বলেন, “ভেতরে-বাইরে সকল জায়গায় এই নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে।”

ঢাকা মহানগর পুলিশ অধ্যাদেশের ২৯ ধারা অনুযায়ী সরকারের অনুমোদন ছাড়া এই  নিষেধাজ্ঞা ৩০ দিনের বেশি বলবৎ থাকবে না।

নির্দলীয় সরকারের দাবিতে আন্দোলনরত বিএনপি দশম সংসদ নির্বাচনের দিন গণনার শুরুতেই ২৫ অক্টোবর ঢাকায় সমাবেশের কর্মসূচি দেয়, যাতে বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়ার যোগ দেয়ার কথা।

একই দিন আওয়ামী লীগও রাজপথে থাকার ঘোষণা দিলে হানাহানির আশঙ্কায় সাধারণ মানুষের মধ্যে উৎকণ্ঠা ছড়িয়ে পড়ে। ঈদের পর রাজধানীতে দ্রুত ফেরার তাগিদও দেখা যায় মানুষের মধ্যে।

২৫ অক্টোবরের সমাবেশে কোনো ধরনের বাধা না দিতে সরকারকে হুঁশিয়ার করে কর্মীদের সশস্ত্র প্রস্তুতি নেয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন বিএনপির নেতারা।

বিরোধী দলীয় প্রধান হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুক শনিবারও এক অনুষ্ঠানে বলেন, “২৫ অক্টোবরের খালেদা জিয়ার জনসভা পণ্ড করতে সরকার নানা কৌশল করছে। জনসভার জন্য অনুমতি চাইলেও এখনো তা দেয়া হয়নি।

“আমরা বলতে চাই, এই সরকারের শেষ দিন ২৫ অক্টোবর। এরপর থেকে তাদের কথা মতো আর দেশ চলবে না।”

অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অস্থিরতা সৃষ্টির যে কোনো চেষ্টা শক্ত হাতে দমনের কথা বলে আসছেন।

কয়েকদিন আগে এক সভায় তিনি বলেন, “তারা যদি জনগণের জন্য কেয়ামত আনতে চায়- তাহলে জনগণকে রক্ষা করার দায়িত্ব আমাদের আছে।

“জনগণের জানমালের নিরাপত্তা দেয়া ও শান্তি নিশ্চিত করা আমাদের দায়িত্ব। ইনশাল্লাহ, সে দায়িত্ব অতীতে যেভাবে যথাযথভাবে পালন করেছি,সেভাবেই করব।”

২৫ অক্টোবর থেকে সরকার পতন আন্দোলন শুরুর ঘোষণা দিয়ে বিএনপি নেতারা বলে আসছেন, সেদিন খালেদা জিয়া কর্মসূচি ঘোষণা করবেন।

ওই কর্মসূচি চূড়ান্ত করতে শনি ও রোববার দল ও জোটের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বৈঠকেও বসছেন বিএনপি চেয়ারপারসন।

তবে তার মধ্যেই শুক্রবার জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনকালীন সর্বদলীয় সরকার গঠনের প্রস্তাব দিয়ে তাতে বিরোধী দলকে অংশ নেয়ার আহ্বান জানান।

বিএনপি এ বিষয়ে এখনো আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানায়নি। প্রস্তাবটি পুঙ্খনাপুঙ্খ বিশ্লেষণের জন্য সময় নিচ্ছে তারা।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT