টেকনাফ নিউজ:
বিশ্বব্যাপী সংবাদ প্রবাহ... সবার আগে টেকনাফের সব সংবাদ পেতে টেকনাফ নিউজের সাথে থাকুন!
শিরোনাম :
মডেল মসজিদগুলোয় যোগ্য আলেম নিয়োগের পরামর্শ র্যাবের জালে ধরা পড়লেন টেকনাফ সাংবাদিক ফোরামের সদস্য ও ইয়াবা কারবারি বিপুল পরিমাণ টাকা ও ইয়াবা উদ্ধার রোহিঙ্গাদের তথ্য মিয়ানমারে পাচার করছে জাতিসংঘ: এইচআরডব্লিউ প্রশাসনে তিন লাখ ৮০ হাজার পদ শূন্য গোদারবিলের জামালিদা ও নাইট্যংপাড়ার ফয়েজ ইয়াবা ও নগদ টাকাসহ গ্রেপ্তার পরীমনির কান্না অথবা নিখোঁজ ইসলামি বক্তা এসএসসি-এইচএসসির পরীক্ষার সিদ্ধান্ত পরিস্থিতি দেখে : শিক্ষামন্ত্রী টেকনাফে পাহাড় ধ্বসে ৩৩ জনের মর্মান্তিক মৃত্যুর ট্রাজেডি আজ পড়ে আছে বিলাসবহুল বাড়ি,নেই দাবিদার শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ লম্বাবিলে বাস—সিএনজির মুখোমুখী সংঘর্ষে রোহিঙ্গাসহ ২ জন নিহত

টেকনাফ-শামলাপুর মেরিন ড্রাইভ সড়ক খানাখন্দে ভরা, যাত্রী ভোগান্তি চরমে

Reporter Name
  • সংবাদ প্রকাশের সময় : রবিবার, ২৫ আগস্ট, ২০১৩
  • ১২৭ বার এই সংবাদটি পড়া হয়েছে

জেড করিম জিয়া:TEKNAF-PIC-23-08-13-300x191 টেকনাফ থেকে শামলাপুর পর্যন্ত ৩১ কিলোমিটার সড়কের প্রায় তিনশতাধিক স্থানে টানা ভারী বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে ভাঙন সৃষ্টি হয়েছে। এতে করে ওই সড়ক দিয়ে চলাচলকারী ৬০ হাজার মানুষকে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। শুক্রবার দুপুরে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, লেঙ্গুরবিল, হাবিরছড়া, হাতিয়ারঘোনা, মিঠাপানিরছড়া, রাজারছড়া, কচ্ছপিয়া, শীলখালী, মাথাভাঙ্গা, বড়ডেইল, জাহাজপুরা, চৌকিদারপাড়া, বাইন্ন্যাপাড়া, আছারবনিয়া, হলবনিয়া ও মনখালীসহ বিভিন্ন এলাকায় সড়কের দুপাশে ভাঙনের সৃষ্টি হয়েছে। এ ছাড়া সড়কের মাঝখানে বড়-বড় গর্ত ও বহু স্থানে পিচঢালাইও উঠে গেছে। প্রতিদিন কয়েকশতাধিক যানবাহন এ সড়ক দিয়ে চলাচল করে আসলেও টানা ভারী বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে সড়ক ভেঙে গেলে যাত্রীদের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। ভারী বৃষ্টিপাত হলে সড়কটি দিয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। বাসচালক নুরুল আমিন বলেন, টেকনাফ-কক্সবাজার সড়কের চেয়ে এ সড়কটি আকর্ষণীয়। বিশেষ করে সড়কের একপাশে সমুদ্র আরেক পাশে পাহাড় হওয়াই প্রাকৃতিক দৃশ্য দেখার জন্য পযর্টকরা চলাচল করে আসছিল। বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গত সৃষ্টি হওয়াই যাত্রী পরিবহনের ভোগান্তি বাড়ছে। ওই সড়কের চলাচলকারি স্থানীয় বাসিন্দা নজরুল ইসলাম ও জহির উদ্দিন জানান, সড়কের খানাখন্দগুলোয় পিচ-পাথর দিয়ে নিমাণ করা হলেও টানা কয়েকদিনে বৃষ্টিতে সেসব পিচ-পাথর উঠে আবার গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। সড়কে ভারী যানবাহন চলাচলে গর্তগুলো ক্রমেই বড় হতে চলেছে। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, টেকনাফ-কক্সবাজার সড়কের বিকল্প হিসেবে মেরিন ড্রাইভ নামে টেকনাফ-শামলাপুর ভায়া কক্সবাজার সড়ক ২০০৭ সালে জাইকা অর্থায়নের ৩৪কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হয়। এরপর থেকে দেশি-বিদেশি পর্যটকেরা হিমছড়ি ঝর্ণ, ইনানী ও শীলখালী পাথরের স্তুপ, জাহাজপুরা গর্জন বাগান, হোয়াইক্যং কুদুমগুহা ও সেন্টমার্টিন দ্বীপ দেখতে যান এই সড়কপথে। টেকনাফ সদরের ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল আলম ও বাহারছড়া ইউপি চেয়ারম্যান মাওলানা হাবিব উল্লাহ বলেন, সড়কটি দিয়ে দুই ইউনিয়নের প্রায় ৬০হাজার মানুষসহ পযর্টকরা চলাচল করে আসছিল। সড়কের বিভিন্ন স্থানে ভাঙন এবং খানাখন্দ সৃষ্টি হয়ে তাদের ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। তারা আরও বলেন, পর্যটন মৌসুম শুরুর আগে সড়কের সংস্কার কাজ করা না হলে পর্যটক ও স্থানীয়দের ভোগান্তি আরও বাড়বে। বর্তমানে এই সড়কে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা ঘটছে।’ টেকনাফ উপজেলা প্রকৌশলী আমিন উল্লাহ বলেন, চলতি বছরের শুরু থেকে আগামী পাঁচবছরের জন্য এ সড়কটি বিশ্বব্যাংককে দেখাশুনার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। কিন্তু গত কয়েকদিনের ভারী বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে পুরো সড়কজুড়ে ভাঙন দেখা দিয়েছে। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত ভাবে জানানো হয়েছে।

সংবাদটি আপনার পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন...

Comments are closed.

More News Of This Category
©2011 - 2020 সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | TekNafNews.com
Developed by WebArt IT